বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘মুক্তির স্বাদ চাই’ বৈশাখীর ডিভোর্সের পর বললেন শোভন, ‘হানিমুনের’ উল্লেখ রত্নার!
বৈশাখীর ডিভোর্সের পরই শোভন-রত্নার তরজা তুঙ্গে

‘মুক্তির স্বাদ চাই’ বৈশাখীর ডিভোর্সের পর বললেন শোভন, ‘হানিমুনের’ উল্লেখ রত্নার!

  • কাশ্মীর বেরিয়ে এসেই ডিভোর্স বৈশাখীর। এবার স্ত্রী রত্নার কাছ থেকে ‘মুক্তির স্বাদ চাই’ বললেন শোভন। বৈশাখীর ডিভোর্সের পরই শোভন-রত্নার তরজা তুঙ্গে।

স্বামী মনোজিৎ মণ্ডলের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে মিউচুয়াল ডিভোর্সের মামলা করেছিলেন বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। এই মর্মে বুধবার বিবাহ বিচ্ছেদ হয় তাঁদের আলিপুর আদালতে। এ দিন দীর্ঘ বৈবাহিক সম্পর্কের ইতি হল বৈশাখী এবং মনোজিতের। তাঁদের একটি মেয়েও রয়েছে।

এ দিন বৈশাখীর সঙ্গে আদালত চত্বরে হাজির ছিলেন তাঁর জীবনের অন্যতম শক্তি শোভন চট্টোপাধ্য়ায়। বান্ধবীর ডিভোর্সের পরই শোভন বাবু বলেন, ‘মুক্তির স্বাদ পেল বৈশাখী।’ একইসঙ্গে জানিয়েছেন, এই মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছেন তিনি নিজেও।

বৈশাখী ও মনোজিতের বিবাহ বিচ্ছেদ মামলায় আলিপুর আদালত সম্মতি দেওয়ার পরই আদালত চত্বরে দাঁড়িয়ে শোভন চট্টোপাধ্য়ায় বলেন, ‘আমার বৈশাখীর সঙ্গে যতদিন ধরে পরিচয় আমি ওর লড়াইটা দেখেছি। সেখান থেকে আজ একটা পর্যায়ে মুক্তির স্বাদ পেয়েছে। আমিও সেই মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছি।’

আরও বলেন, ‘আমি জানি বহু চক্রান্ত, অসত্য পরিবেশন করা হয়েছে। আজও দেখলাম, অন্যান্য সময়ও দেখেছি। কিন্তু একটা কথা আমি আবারও বলব, আমি যেখানে বুক দেখাই সেখানে পিঠ দেখাই না। সমস্ত বিষয়ে দায়িত্ব নিতে, দায়িত্বশীল ভূমিকা নিতে আমি কোনওদিন পিছু পা হইনি। অসত্যের কাছে, বিভিন্ন জায়গায় দ্বিচারিতার কাছে আমি নতি স্বীকার করি না। বিশ্বাসযোগ্যতা যাদের নেই, তাদের সঙ্গে আমি কখনওই আপোস করি না।’

স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের মামলা চলছে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের। সন্তানদের স্বার্থের এই বিচ্ছেদের পথে হাঁটতে নারাজ রত্না। তাঁর স্ত্রী তথা কাউন্সিলর রত্না চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, তিনি এত সহজে শোভনকে বিবাহবিচ্ছেদ দেবেন না। যদিও শোভন চট্টোপাধ্যায় কোনও ভাবেই রত্না চট্টোপাধ্য়ায়ের সঙ্গে ফের সংসার করতে রাজি নন। বিগত কয়েক বছরে তাঁদের ‘দাম্পত্য কলহ’ চরম পর্যায়ে এসে পৌঁছেছে।

এ দিকে সমাজ, বয়স কোনও কিছুর পরোয়া করেননি শোভন-বৈশাখীর প্রেম। ভূ-স্বর্গ কাশ্মীর থেকে বেরিয়ে এসেই বিবাহবিচ্ছেদ হল বৈশাখীর। কাশ্মীর সফরে গিয়েছে বৈশাখী দেবীর একমাত্র কন্যা মেহুলও।

শোভন চট্টোপাধ্যায় যখন বান্ধবী বৈশাখীর মতোই ‘মুক্তির স্বাদ’ পেতে মুখিয়ে রয়েছেন, রত্না চট্টোপাধ্যায়ের মন্তব্য, ‘এই তো কিছুদিন আগে কাশ্মীরে গেল হানিমুন করতে। এখন ডিভোর্স হচ্ছে শুনে ধেই ধেই করে নাচতে নাচতে আদালতে গেছে। ওদের ব্যাপারে এর থেকে বেশি আমার আর কিছু বলার রুচি নেই।’

 

বন্ধ করুন