বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > সইফিনার কোল আলো করে এল পুত্রসন্তান, ছেলের কী নাম রাখতে পারেন সইফ-করিনা?
তৈমুরের সঙ্গে সইফ-করিনা
তৈমুরের সঙ্গে সইফ-করিনা

সইফিনার কোল আলো করে এল পুত্রসন্তান, ছেলের কী নাম রাখতে পারেন সইফ-করিনা?

  • তৈমুরের নাম নিয়ে নজিরবিহীন আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছিল সইফিনাকে। এবার ছেলের কী নাম রাখছেন তাঁরা? 

রবিবার সকালে ফের ছেলের জন্ম দিয়েছেন করিনা কাপুর খান। নতুন সদস্যের আগমনে খুশির জোয়ার কাপুর ও খান পরিবারে। গত কয়েক মাসে একের পর এক মৃত্যু সংবাদে জর্জরিত কাপুর খানদানে একরাশ খুশির জোয়ার নিয়ে এল এই খুদে অতিথি।  সইফিনার প্রথম সন্তান তৈমুর খালি খান, সোশ্যাল মিডিয়া সেনসেশন। তৈমুরকে লেন্সবন্দি করতে সারাক্ষণ এই স্টারকিডের পিছু ধাওয়া করে হাজারো ক্যামেরা। এবার তৈমুরের ফেম ভাগ করে নিয়ে এসে গিয়েছে তাঁর ছোট ভাই। 

তৈমুরের নামকরণ নিয়ে নজিরবিহীন বিতর্কের মুখে পড়েছিলেন সইফিনা। তাই দ্বিতীয় সন্তানের তাঁরা কী নাম রাখবেন সেই নিয়ে মুখিয়ে রয়েছেন অনেকেই। দ্বিতীয় দফায় আগেভাগে সন্তানের নাম ঠিক না করবার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন এই সেলেব জুটি। নেহা ধুপিয়ার সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় মাসখানেক আগে তেমনটাই জানিয়েছেন বোবো। ওয়াট ওমেন ওয়ান্টের এক এপিসোডে করিনা বলেন, তৈমুরের নাম ঘিরে যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল তা ভেবে আতঙ্কিত তাঁরা। 'গতবার তৈমুরের নাম নিয়ে যে কাণ্ড হয়েছিল! আমি আর সইফু দুজনেই এই নিয়ে ভাবিনি কিছু। শেষ মুহূর্তের জন্য তুলে রেখেছি, এরপর একটা সারপ্রাইজ নিয়ে আসব', হাসতে হাসতে বলেন করিনা।

২০১৬ সালের ডিসেম্বরে জন্ম তৈমুরের। তৈমুরের নামকরণ নিয়ে ব্যাপক বিতর্ক দেখা গিয়েছিল। অনেকের মতেই তুরস্কের স্বৈরাচারী শাসক তৈমুর লঙের নামের কথা মাথায় রেখে সইফিনার এই নামটা সন্তানের জন্য বাছা একেবারেই উচিত হয়নি। তবে সেই সময়ই করিনা জানিয়েছিলেন, তাঁরা সুলতানের নামে নাম রাখেননি। ‘তৈমুর’ শব্দের অন্য অর্থ হল ‘লোহা’। সেই হিসেবে তাঁরা ছেলের নাম রেখেছেন তৈমুর আলি খান।

 করিনা এক সাক্ষাত্কারে জানিয়েছিলেন, তৈমুরের জন্মের পর, ফয়জ নামটি প্রথমে ছেলের জন্য পছন্দ করেছিলেন সইফ। কিন্তু শেষমেষ তৈমুর নামটি রাখেন সইফ-করিনা। ফয়জ (Faiz) আরবি শব্দ, এই নামের অর্থ হল সফল এবং বিজয়ী। এবার হয়ত তৈমুরের ছোটভাইয়ের নাম হিসাবে নিজের প্রথম পছন্দকেই বেছে নেবেন সইফ। এই খুদে অতিথির নাম কী হবে এখন সেটাই লাখ টাকার প্রশ্ন!

বন্ধ করুন