বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘হিন্দুবিরোধী’ মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক,নিখোঁজ ব়্যাপারকে নিয়ে উদ্বিগ্ন অনুরাগীরা
নিঁখোজ ব়্যাপার এমসি কোড (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 
নিঁখোজ ব়্যাপার এমসি কোড (ছবি-ইনস্টাগ্রাম) 

‘হিন্দুবিরোধী’ মন্তব্য নিয়ে বিতর্ক,নিখোঁজ ব়্যাপারকে নিয়ে উদ্বিগ্ন অনুরাগীরা

  • ২০১৬ সালের ব়্যাপ ব্যাটেলের ভাইরাল ভিডিয়ো নিয়ে বিপাকে এমসি কোড। বিতর্কের আগুন ছড়িয়ে পড়তেই নিখোঁজ ব়্যাপার। 

নয়া দিল্লি থেকে নিখোঁজ ব়্যাপার এমসি কোড (MC Kode)। সম্প্রতি এক পুরোনো ভিডিয়োর জেরে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে এই ব়্যাপার। ভাইরাল ভিডিয়োতে হিন্দু বিরোধী এবং নারী-বিদ্বেষী অশালীন মন্তব্য করতে শোনা গিয়েছে এমসি কোডকে। 

একদিকে যখন সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটিজেনরা ব়্যাপারের গ্রেফতারির দাবিতে সরব তখন এমসি কোডে-এর ইনস্টাগ্রাম ফলোয়াররা চিন্তায় পড়েছেন তাঁর জীবন নিয়ে। প্রাইভেট ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে এমসি কোড ওরফে আদিত্য তিওয়ারির পোস্ট করা শেষ বার্তা দেখে তাঁরা আশঙ্ক্ষায়, সেখানে নিজের জীবন শেষ করে ফেলার প্রছন্ন ইঙ্গিত দিয়েছেন এমসি কোড। 

@forreal_kode- এই হ্যান্ডেলের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে পোস্ট হওয়া ওই স্টোরিতে তিনি জানিয়েছেন, কীভাবে লাগাতার ট্রোলিং এবং হুমকির মুখে পড়ে যন্ত্রণায় ভুগছেন তিনি। ক্ষমা প্রার্থনা করলেও বেশ কয়েক বছর আগেকার ভুলের জন্য নেটিজেনরা তাঁর পিছু ছাড়ছে না, এমনকি স্থানীয় গুন্ডাদের থেকেও লাগাতার হুমকি পাচ্ছেন তিনি। তিনি নিজের শেষ ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে জানান, যমুনা নদীর ব্রিজে দাঁড়িয়ে আছেন তিনি, স্রোতের ঢেউ তাঁকে জীবন নিয়ে সঠিক দৃষ্টিভঙ্গি জানিয়ে দিয়ে যাচ্ছে। এই মুহূর্তে এমসি কোডের ফেসবুক, টুইটার এবং ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ডি-অ্যাক্টিভেট রয়েছে, এবং গতকাল রাত থেকে কোনওরকমভাবে যোগাযোগ করা যাচ্ছে না তাঁর সঙ্গে। 

এমসি কোডের শেষ ইনস্টাগ্রাম স্টোরি
এমসি কোডের শেষ ইনস্টাগ্রাম স্টোরি

গোটা বিতর্কের সূত্রপাত গত সপ্তাহে। যখন এমসি কোডের ব়্যাপ ব্যাটেলের একটি ক্লিপিংস ভাইরাল হয়ে যায়। ভিডিয়োটি ২০১৬ সালের ১২ই জুনের। সেই ভিডিয়োতে 'মহাভারত' নিয়ে অশালীন মন্তব্য করেন, শুধু তাই নয় ভিডিয়োতে অপর প্রতিযোগির মাকে ‘ধর্ষণ’-এর হুমকি দেন এমসি কোড, পুরুষদের গোপনাঙ্গ নিয়ে লাগাতার কুরুচিকর মন্তব্য করেন। এই ভিডিয়ো ভাইরাল হওয়ার পর থেকেই নেটিজেনরা লাগাতার দিল্লি ও উত্তরপ্রদেশ পুলিশের কাছে এমসি কোড-কে গ্রেফতার করবার দাবি জানিয়েছে। তাঁদের দাবি, এই ধরণের ভাষাকে 'বাক স্বাধীনতা'র বহিঃপ্রকাশ বলা যায় না। 

এমসি কোড বারবার ক্ষমা প্রার্থনা করে জানান, কিশোর বয়সে ভুল করে তিনি এইসব অশালীন মন্তব্য করেছিলেন। এই ঘটনার সঙ্গে তাঁর পরিবারের কোনও সম্পর্ক নেই সেই কথাও উল্লেখ করেন এমসি কোড। মানুষজন তাঁকে এবং তাঁর পরিবারকে পিটিয়ে ফেলার হুমকি দেওয়াতে আতঙ্কিত তিনি, সেকথাও বলেন। 

এমসি কোড আগেই জানিয়েছিলেন, ৯টি ব্র্যান্ড এই বিতর্কের জেরে তাঁর সঙ্গে চুক্তি বাতিল করেছে, তাঁর ৩টি শো বাতিল হয়েছে- আর্থিক দিক থেকে বেজায় সংকটজনক পরিস্থিতিতে তিনি। তা সত্ত্বেও ইউটিউব থেকে নিজের সমস্ত ভিডিয়ো মুছে দেওয়ার আবেদন কর্তৃপক্ষের কাছে রেখে সকলের কাছে ক্ষমা চান তিনি। 

ব়্যাপারের অনুরাগীদের দাবি, কারুর জীবন কোনও বিতর্কের চেয়ে বড় নয়। তাই এমসি কোডে-র সুস্থতা কামনা করে তাঁর খোঁজ চালাচ্ছেন তাঁরা। 

বন্ধ করুন