বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > জি বাংলার পর স্টার জলসা, বিজ্ঞাপন ছাড়াই চলবে ধারাবাহিক! অবাক বাংলাদেশের দর্শক
বিজ্ঞাপন ছাড়াই চলবে ধারাবাহিক
বিজ্ঞাপন ছাড়াই চলবে ধারাবাহিক

জি বাংলার পর স্টার জলসা, বিজ্ঞাপন ছাড়াই চলবে ধারাবাহিক! অবাক বাংলাদেশের দর্শক

  • চলতি মাসের শুরুতেই বাংলাদেশে নতুন সম্প্রচার আইন প্রণয়ন হয়েছে।

জি বাংলার পর এবার স্টার জলসার সম্প্রসারণ শুরু হল বাংলাদেশে। জি বাংলার মতোই ‘ক্লিন ফিড’ করে দেখানো হচ্ছে স্টার জলসার। শনিবার থেকেই বাংলাদেশের দর্শকেরা দেখতে পাচ্ছেন এদেশের ধারাবাহিক। দেখতে পাচ্ছেন 'খড়কুটো', 'দেশের মাটি', 'ধুলোকণা'র মতো ধরাবাহিকগুলো।

প্রসঙ্গত, চলতি মাসের শুরুতেই বাংলাদেশে নতুন সম্প্রচার আইন প্রণয়ন হয়েছে। সেই নতুন সম্প্রচার আইন অনুযায়ী, বিজ্ঞাপন সহ কোনও বিদেশী চ্যানেল সম্প্রচার করা যাবে না ওই দেশে। যার জেরে কেবল অপারেটর এবং DTH (ডিরেক্ট টু হোম) সংযোগকারীরা যাবতীয় বিদেশী চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছিল। তবে জি বাংলা বাংলাদেশের দর্শকদের জন্য বিজ্ঞাপন ছাড়াই ধারাবাহিক সম্প্রচারের সিদ্ধান্ত নেয়। সেই পথেই হাঁটল স্টার জলসাও।

মূলত, জি-বাংলায় সিরিয়াল বা রিয়েলিটি শো-র ফাঁকে বিজ্ঞাপন দেখানো হত। কিন্তু এখন সেই সময় ওই দেশেরই চ্যানেলের অন্য অনুষ্ঠানের প্রোমো দেখানো হচ্ছে। তবে স্টার জলসার ক্ষেত্রে সেটা হচ্ছে না। বিজ্ঞাপন চলার সময় লেখা থাকছে, ‘গ্রাহক, বিধিনিষেধের জন্য বিজ্ঞাপন সম্প্রচার বন্ধ রয়েছে। বিজ্ঞাপন বিরতি শেষে অতি শিগগিরই আমরা মূল অনুষ্ঠানে ফিরে আসছি। আমাদের সঙ্গে থাকার জন্য ধন্যবাদ।’

বাংলাদেশের তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাসান মেহমুদ জানিয়েছেন, যে কোনও বিদেশী চ্যানেল বিজ্ঞাপন ছাড়াই ধারাবাহিক বা অন্য কিছু সম্প্রচার করতে হবে। তেমনটাই জানানো হয়েছে। কেবল অপারেটর, ডিস্ট্রিবিউটরদের বিষয়টির দিকে নজর রাখতে বলেছেন। ২০০৬ সালের কেবল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক পরিচালনা আইনের ১৯ (১৩) ধারা অনুযায়ী, বিদেশী টেলিভিশন চ্যানেল অনুষ্ঠানের ফাঁকে বিজ্ঞাপন প্রচার করা যাবে না। এতদিন সেই নিয়ম কার্যকর না হলেও, চলতি মাসের শুরু থেকে তা কার্যকর করা হয়েছে। 

জানা গিয়েছে, বাংলাদেশের দর্শকেরা এখন জি-বাংলা, স্টার জলসা ছাড়াও BBC, CNN, KBS ওয়ার্ল্ড, লোটাস, ট্রাভেল XP HD, আল কুরান, আল সুন্না, দুরদর্শন দেখতে পাচ্ছেন। ওপার বাংলায় এই চ্যানেলগুলো বিজ্ঞাপন ছাড়া সম্প্রচারিত হচ্ছে। বাংলাদেশের কেবল অপারেটরদের সংগঠন কোয়াবের সভাপতি এস এম আনোয়ার পারভেজ জানান, আরও অনেক বিদেশী রয়েছে, যারা ক্লিন ফিডে সম্প্রচার করতে চাইছে না। তাই ওই চ্যানেলগুলি এখন বাংলাদেশে বন্ধ করা হয়েছে। তারা স্টার জলসা, জি বাংলার মতো ‘ক্লিন ফিড’ দিলে সেই চ্যানেলগুলিও সম্প্রচারিত হবে। তবে একাধিক বিদেশি চ্যানেলের তরফে পরিস্কার করা হয়েছে, বাংলাদেশের বাজার ছোট। তাই তাদের পক্ষে সেখানে ‘ক্লিন ফিড’ দেওয়া সম্ভব নয়।

 

 

বন্ধ করুন