বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Aindrila Sharma Health Update: করা হল ট্র্যাকিওস্টোমি, উপসর্গের ভিত্তিতে চলছে চিকিৎসা, এখন কেমন আছেন ঐন্দ্রিলা

Aindrila Sharma Health Update: করা হল ট্র্যাকিওস্টোমি, উপসর্গের ভিত্তিতে চলছে চিকিৎসা, এখন কেমন আছেন ঐন্দ্রিলা

কেমন আছেন ‘জিয়ন কাঠি’ নায়িকা ঐন্দ্রিলা?

Aindrila Sharma Health Update: হাওড়ার আন্দুলের এক বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকের কড়া পর্যবেক্ষণে রয়েছেন ঐন্দ্রিলা। শনিবার থেকে 'ট্র্যাকিওস্টোমি' শুরু হল তাঁর। গলায় ফুটো করে নল ঢোকানো হয়েছে। চিকিৎসকেরা ট্র্যাকিওস্টোমি করেছেন যেন ভেন্টিলেশন সাপোর্টের মাত্রা কমানো যায়।

শুক্রবার বাম চোখ, কাঁধ সামান্য নাড়িয়েছিলেন ‘জিয়ন কাঠি’ নায়িকা ঐন্দ্রিলা শর্মা। আশার আলো দেখেছিলেন অভিনেত্রীর শুভানুধ্যায়ীরা। তবে এখনও ভেন্টিলেশনে রয়েছেন ঐন্দ্রিলা। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, উপসর্গের উপর ভিত্তি করে চিকিৎসা চলছে অভিনেত্রীর। 

শনিবার থেকে 'ট্র্যাকিওস্টোমি' শুরু হল ঐন্দ্রিলার। গলায় ফুটো করে নল ঢোকানো হয়েছে। চিকিৎসকেরা ট্র্যাকিওস্টোমি করেছেন যেন ভেন্টিলেশন সাপোর্টের মাত্রা কমানো যায়। অভিনেত্রীর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত। তবে চিকিৎসকের ভাষায়, এখনও সম্পূর্ণ বিপদমুক্ত নন তিনি। 

মঙ্গলবার রাতে আচমকা ব্রেন স্ট্রোক হওয়ায় এক বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অভিনেত্রীকে। হাওড়ার আন্দুলের এক বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকের কড়া পর্যবেক্ষণে রয়েছেন তিনি। ব্রেন স্ট্রোকের ফলে মাথায় রক্তজমাট বেঁধেছিল। মঙ্গলবার রাতে সেটি অস্ত্রোপচার হয়। সেই থেকে কোমায় রয়েছেন নায়িকা।

আরও পড়ুন: হাসপাতালে প্রথম পরিচয়, ‘ও নিজেই এসেছিল আলাপ করতে’, ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে লিখলেন গৌরব

প্রসঙ্গত, শুক্রবার সন্ধ্যায় একটু স্বস্তির খবর মিলেছিল হাসপাতাল সূত্রে। জানা গিয়েছিল, সংজ্ঞা না ফিরলেও চোখ খোলার চেষ্টা করেছেন ঐন্দ্রিলা। তাঁর শরীরের বাঁ দিকে সাড় ফিরছে। বাম চোখ এবং বাম কাঁধ সামান্য নাড়াতে পারেছিলেন অভিনেত্রী। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, ধীরে ধীরে ভেন্টিলেটর সাপোর্ট কমিয়ে ঐন্দ্রিলা যেন স্বাভাবিক শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে পারে, সেই চেষ্টাই করছেন তাঁরা।

ঐন্দ্রিলার দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠার কামনা করছেন তাঁর সহকর্মী, ভক্ত এবং শুভানুধ্যায়ীরা। এর আগেও দু'বার ক্যানসার জয় করে ফিরেছেন অভিনেত্রী। শুক্রবার দুপুরের দিকে প্রেমিক সব্যসাচী চৌধুরী জানিয়েছেন, 'মেয়েটা লড়ে যাচ্ছে, সাথে লড়ছে একটা গোটা হাসপাতাল। নিজের হাতে করে নিয়ে এসেছিলাম, নিজের হাতে ওকে বাড়ি ফিরিয়ে নিয়ে যাবো। এর অন্যথা কিছু হবে না।’

বন্ধ করুন