বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Aindrila Sharma: ক্যানসারকে হারাল ঐন্দ্রিলা! প্রেমিকার ক্যামেরার সামনে ফেরার দিন জানাল সব্যসাচী
ক্যানসারকে হারিয়ে সুস্থ ঐন্দ্রিলা। 

Aindrila Sharma: ক্যানসারকে হারাল ঐন্দ্রিলা! প্রেমিকার ক্যামেরার সামনে ফেরার দিন জানাল সব্যসাচী

  • ভ্যালেন্টাইন্স ডে-র দিনই ক্যানসার ধরা পড়ে অভিনেত্রীর। এই প্রথম সেদিনের কথা লিখলেন সব্যসাচী

সব ভালোবাসার গল্প রূপকথার হয় না! বরং কিছু গল্প লেখা হয় বাস্তমের রুক্ষ মাটিতে। যদিও তাতে টান বা প্রেম কিছুই সেভাবে কমে না! বরং জীবনের চরাই-উৎরাই পার করে আরও খাঁটি হয়ে ওঠে। ঠিক এরকমই একটা প্রেমের গল্প উপহার দিয়েছে টলিউড! তবে, রিল লাইফ মানে পরদায় নয়, এই প্রেম বাস্তবের! যেখানে একে-অপরের হাত ছেড়ে দিচ্ছেন একটুতেই সেখানে চারটে হাত যেন একে-অপরকে আরও জাপটে ধরছে, ভালো থাকার জন্য, ভালো রাখার জন্য। 

ক্যানসার আক্রান্ত ‘জিয়ন কাঠি’র নায়িকা ঐন্দ্রলা শর্মার লড়াই প্রতি মাসে সোশ্যাল মিডিয়ায় তুলে ধরেন অভিনেতা-প্রেমিক সব্যসাচী চৌধুরী। তাঁর দীর্ঘ লেখায় ভালোবাসার দিশা দেখতে পায় অনুরাগীরা। এবার তিনি জানালেন, প্রেমিকাকে নিয়ে এটাই তাঁর শেষ লেখা। কারণ, ঐন্দ্রিলার চিকিৎসা সম্পূর্ণ। ফেব্রুয়ারিতে দ্বিতীয় বার ধরা পড়ে ক্যানসার তাঁর শরীরে। তারপর হয় জটিল অস্ত্রোপচার। কেমোথেরাপি। আপাতত চিকিৎসার সময়সীমা শেষ। ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠছেন ঐন্দ্রিলাও। 

সামনেই আসছে ভ্যালেন্টাইস ডে। প্রেমের দিন। আর ওই দিনেই সব্যসাচী জানতে পেরেছিলেন তাঁর প্রাণের থেকে প্রিয় মানুষটার শরীরে বাসা বেঁধেছে ক্যানসার নতুন করে। ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’র বামা লিখেছেন, ‘১৪ই ফেব্রুয়ারী নাকি ভালোবাসার দিবস, আমি বড়ই কাঠখোট্টা মানুষ, এসব বিশেষ দিনে কিছুই করি না কখনও। কিন্তু এই বছর (২০২১), এই প্রথমবার তিনি বায়না করেছিলেন যে দিনটি মাসের দ্বিতীয় রবিবার, তাই দুজনেরই ছুটি, অতএব রাতে রেস্টুরেন্টে খেতে যেতে হবে। ভালো কথা, টেবিল বুক করা হলো, বললো দুপুরে একটু ঘুমাচ্ছি, উঠে তৈরী হবো। ঘুমালো কিন্তু আর উঠতে পারলো না। পিঠের যন্ত্রনায় পরিত্রাহি চিৎকার করছে, এদিকে আমি বুঝতেই পারছি না যে কি হয়েছে… পরের দিন জানা গেলো ছয় বছর আগের সেই কালসদৃশ অসুখ আবার ফিরে এসেছে এবং ফুসফুসে এক লিটার রক্ত জমেছিলো, আমরা কেউ তা বুঝিনি। এরপর থেকে, আমাদের জীবনে আর কোনও নির্দিষ্ট ভালোবাসার দিন নেই। জীবনেও তা পালন করবো না।’

ক্যানসার হয়েছে শুনলে প্রায় প্রত্যেক রোগী প্রাথমিক ভাবে মানসিক দিক থেকে ভেঙে পড়েন। আর সেখানে তো এই নিয়ে দু'বার ক্যানসার থাবা বসাল অভিনেত্রীর শরীরে। প্রথমবার সবে উচ্চমাধ্যমিক দিয়েছিলেন। আর এবার কেরিয়ারের মাঝপথে, যখন সব ভুলে নতুন করে স্বপ্ন দেখার শুরু হয়েছিল। তবে আর কোনও ভয় নেই। কারণ এসেছে নতুন ভোর। সব্যসাচী জানালেন, ‘কিছুদিন আগে, অস্ত্রোপচারের ঠিক ছয় মাস পর পুনরায় পরীক্ষা করা হয় ওকে। ডাক্তার জানিয়েছেন যে কোনও বদ কোষ অবশিষ্ট নেই ওর শরীরে। এই মুহূর্তে, ঐন্দ্রিলা সুস্থ এবং বিপদমুক্ত।’

সব্যসাচীর এই পোস্ট শেয়ার করেছেন, কমেন্ট করেছেন, লাইক করেছেন হাজার হাজার নেট-নাগরিক। যাঁদের অনেকেই ঐন্দ্রিলার জন্য প্রার্থনা করেছিলেন, পুজো দিয়েছিলেন মন্দিরে, শুভেচ্ছা বার্তা-উপহার পাঠিয়েছিলেন উৎসাহ দিতে। সমস্ত ভালোবাসা আগলে রেখেছেন অভিনেত্রী। সঙ্গে এদিকে দর্শকরাও নিজেদের সমস্ত উৎসাহ নিয়ে অপেক্ষা করে আছেন আবার পরদায় হাসি-খুশি মিষ্টি মুখের মেয়েটাকে দেখার জন্য। সেই সুখবরও দিয়েছেন অভিনেতা। লিখেছেন, ‘ঐন্দ্রিলা আমায় জানিয়েছে যে ধীরে-সুস্থে ওজন কমিয়ে, একেবারে সুস্থ হয়ে পরের বছর পুনরায় ক্যামেরার সামনে দাঁড়াবেই, ফিরবে স্বাভাবিক জীবনের ছন্দে।’

বন্ধ করুন