বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মায়ের মৃত্যুর ছয় মাসের মাথায় পরিবারের আরেক সদস্যকে হারিয়ে শোকে কাতর অক্ষয়

ঠিক যতটা শ্যুটিং, অ্যাকশন-ক্যামেরা ভালোবাসেন অক্ষয়, ততটাই ভালোবাসেন পরিবারের সাথে সময় কাটাতে। তাঁর ‘ফ্যামিলি ম্যান’ হওয়ার পরিচয় মেলে সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখলেই। সকাল সকাল অভিনেতা সকলের সাথে ভাগ করে নিলেন মন খারাপের খবর। পোষ্য সেলোকে হারিয়ে তিনি যে কতটা শোকে কাতর তা স্পষ্ট হল এই পোস্ট থেকেই। 

সেলোর কিছু ছবি শেয়ার করে অক্ষয় লিখলেন, ‘সবাই বলে সারমেয়রা তোমাদের হৃদয়ে ওদের পায়ের ছাপ রেখে যায়। তুমি আজ আমার হৃদয়ের একটা বড় অংশ নিয়ে চলে গেলে। চিরঘুমের দেশে ভালো থেকো ক্লিও। তোমায় খুব মিস করব।’

ভূমি পেডনেকর, বরুণ ধাওয়ানরা এই পোস্টে নিজেদের ভালোবাসা জাহির করেছেন ক্লিওর জন্য। প্রসঙ্গত, ঠিক ৬ মাস আগেই ৮ সেপ্টেম্বর মা অরুণা ভাটিয়াকে হারান অক্ষয়। মায়ের মৃত্যুতেও ভাঙা মন নিয়ে পোস্ট করতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। লিখেছিলেন, ‘তিনি আমার সবকিছু ছিলেন। এবং আজ আমার অস্তিত্বের গভীরে আমি এক নিদারুণ ব্যথা অনুভব করছি। আমার মা, শ্রীমতি অরুণা ভাটিয়া আজ সকালে ইহলোক ত্যাগ করেছেন এবং পরলোকে আমার বাবার সঙ্গে পুনরায় মিলিত হলেন। এই কঠিন পরিস্থিতিতে আপনাদের সকলের প্রার্থনাকে আমি সম্মান জানাই। ওম শান্তি।’

ভূমি পেডনেকর, বরুণ ধাওয়ানরা এই পোস্টে নিজেদের ভালোবাসা জাহির করেছেন ক্লিওর জন্য। প্রসঙ্গত, ঠিক ৬ মাস আগেই ৮ সেপ্টেম্বর মা অরুণা ভাটিয়াকে হারান অক্ষয়। মায়ের মৃত্যুতেও ভাঙা মন নিয়ে পোস্ট করতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। লিখেছিলেন, ‘তিনি আমার সবকিছু ছিলেন। এবং আজ আমার অস্তিত্বের গভীরে আমি এক নিদারুণ ব্যথা অনুভব করছি। আমার মা, শ্রীমতি অরুণা ভাটিয়া আজ সকালে ইহলোক ত্যাগ করেছেন এবং পরলোকে আমার বাবার সঙ্গে পুনরায় মিলিত হলেন। এই কঠিন পরিস্থিতিতে আপনাদের সকলের প্রার্থনাকে আমি সম্মান জানাই। ওম শান্তি।’

|#+|সেলো মারা যাওয়ায় মন খারাপ টুইঙ্কেলেরও। তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় লিখেছেন, ‘আমদের সুন্দর ক্লিও আমাদের ছেড়ে চলে গেল। আমাদের সাথে ১২ বছর ছিল ও। আমি জানি হৃদয় কীভাবে এত ভারী আর খালি একসাথে লাগতে পারে।’

বন্ধ করুন