বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > অক্ষয়ে মুগ্ধ আমির,তবে লক্ষ্মী বম্বের ট্রেলার দেখে একটাই আক্ষেপ তারকার
আমিরি প্রশংসা 
আমিরি প্রশংসা 

অক্ষয়ে মুগ্ধ আমির,তবে লক্ষ্মী বম্বের ট্রেলার দেখে একটাই আক্ষেপ তারকার

  • লাল শাড়ি, মাথায় লাল টিপে খিলাড়ি কুমারের ‘লক্ষ্মী’ অবতার চমকে দিল আমিরকে।

অক্ষয় কুমারের লক্ষ্মী বম্বের ট্রেলার ইতিমধ্যেই বেশ শোরগোল ফেলেছে। তবে এবার এই ছবিতে আক্কির অদেখা অবতার দেখে মুগ্ধ আমির খান। এবং স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে প্রকশ্যেই অক্ষয় কুমারকে প্রশংসায় ভরালেন আমির খান। এই ছবি দেখতে আর অপেক্ষা করতে পারছেন না আমির, সে কথাও জানাতে ভোলেননি পর্দার লাল সিং চড্ডা। উল্লেখ্য এই ছবিতেই প্রথমবার রূপান্তরকামীর অবতারে দেখা যাবে অক্ষয়কে। সেই লুকে বহু আগে থেকেই সাড়া ফেলেছেন খিলাড়ি কুমার।

অক্ষয়কে প্রশংসায় ভরানোর পাশাপাশি এই ছবি ঘিরে একটি আক্ষেপের কথাও জানিয়েছেন আমির। তারকার কথা.. ‘যদি এই ছবিটা থিয়েটারে মুক্তি পেত’। উল্লেখ্য ৯ নভেম্বর সরাসরি ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ডিজনি প্লাস হটস্টারে মুক্তি পাবে এই ছবি। 

নিজের টুইটারের দেওয়ালে লক্ষ্মী বম্বের ট্রেলার শেয়ার করে নিয়ে আমির লেখেন- ‘প্রিয় অক্ষয়, কী দুর্দান্ত ট্রেলার আমার বন্ধু। আমি তো আর অপেক্ষা করতে পারছি না এটা দেখার জন্য। এটা বিশাল হিট হতে চলেছে! তবে যদি এটা থিয়েটারে মুক্তি পেত! তোমার পারফরম্যান্স তো অসামান্য! সকলকে অনেক শুভেচ্ছা’। 

বলিউডের মিস্টার পারফেকশানিস্টের কাছ থেকে এমন প্রশংসা পেয়ে নিজের খুশি চেপে রাখতে পারেননি আক্কি। তিনি আমিরের টুইটের পালটা জবাব দেন। লেখেন- ‘ধন্যবাদ আমির, তোমার থেকে এই ধরণের প্রশংসা পাওয়াটা সত্যি ভাগ্যের। এই সমর্থন, উত্সাহ সত্যি আমাদের কাছে খুব দামি এই কঠিন সময়ে। আমি ধন্য’।

অক্ষয়ের লক্ষ্মী বম্ব কো-স্টার কিয়ার আডবানিও আমির খানকে ধন্যবাদ জানিয়েন। তাঁদের ছবির সমর্থনে এগিয়ে আসার জন্য। 

‘লক্ষী বম্ব’ প্রকৃতপক্ষে তামিল হরর কমেডি ‘মুনি ২ : কাঞ্চনা’ ছবির হিন্দি রিমেক। মূল তামিল ছবির পরিচালক রাঘব লরেন্স এই ছবির মাধ্যমেই নিজের বলিউড কেরিয়ারের অভিষেক ঘটাতে চলেছেন। অক্ষয়- কিয়ারা ছাড়ার এই ছবিতে রয়েছেন তুষার কাপুর, শরদ কেলকার, অশ্বিনী কালসিকাররা।

এই ছবিতে এক রূপান্তরকামী আত্মার খপ্পরে পড়বেন অক্ষয়, এরপর লক্ষ্মীর অবতারে অবতীর্ণ হবেন তিনি। এই ছবি প্রসঙ্গে অক্ষয় জানিয়েছেন- 'আমার পছন্দের জঁর-হরর কমেডি। আমি ভুলভুলাইয়ার পর সবসময়ই এই জঁরের ছবি করতে চাইছিলাম। ৩০ বছরের কেরিয়ারে মানসিকভাবে এটাই আমার সবচেয়ে কঠিন চরিত্র। আমি প্রায় ১৫০টি ছবিতে অভিনয় করেছি, তবে আমি প্রতিদিন এই ছবির সেটে যতটা এক্সাইটেড থাকতাম আগে কোনওদিনও হয়নি। আমি কোনওদিন এত রিটেকও দিইনি,তাও নিজের ইচ্ছায়। এই ছবি আমাকে লেন্ডার ইকুয়ালিটি সম্পর্কে অনেকবেশি সংবেদনশীল করেছে'।

বন্ধ করুন