ইন্সটাগ্রামে ইরা জানালেন তাঁর অনুপ্রেরণার নাম সোনা মহাপাত্র
ইন্সটাগ্রামে ইরা জানালেন তাঁর অনুপ্রেরণার নাম সোনা মহাপাত্র

আমির খান নন তবে আমির কন্যা ইরার অনুপ্রেরণা কে?

  • আমির খান ও তাঁর প্রথম স্ত্রী রিনার কন্যা ইরা খান। তাঁর অনুপ্রেরণার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন সঙ্গীতশিল্পী সোনা মহাপাত্র।
  • বি-টাউনে অভিষেক না হলেও পরিচালক হিসাবে ইতিমধ্যেই হাতেখড়ি হয়েছে ইরার। মেডিয়া নামের একটি নাটকের নির্দেশনার দায়িত্ব সামলাচ্ছেন আমির তনয়া।

স্টারকিডরা তাদের বাবা-মা’র পদচিহ্ন অনুসরণ করবেন এটাই স্বাভাবিক। তবে আমির খান কন্যা ইরা কিন্তু বরাবরই আলাদা। বি-টাউনে ডেবিউ করার আগেই ইরার হাতেখড়ি হয়েছে পরিচালক হিসাবে, তাও রঙ্গমঞ্চে। গ্রিক ট্যাজেডি নাটক ‘ইউরিপিদিস মেডিয়া’ অবলম্বনে আমির খান তনয়া তৈরি করেছেন 'মেডিয়া'। চলতি মাসেই মুম্বইয়ে মঞ্চস্থ হয়েছে এই নাটক, যেখানে মুখ্য চরিত্রে দেখা মিলেছে হেজেল কিচের। এবার ইরা জানালেন তাঁর অনুপ্রেরণার কথা। আমির খান নন, অভিনেতার মেয়ের অনুপ্রেরণার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন সঙ্গীতশিল্পী সোনা মহাপাত্র।

ইন্সটাগ্রামে নিজের নতুন ছবি পোস্ট করে ইরা লিখেছেন, ‘আমার অভ্যন্তরের সোনা মহাপাত্রকে জাগিয়ে তুলছি। প্রথমবার আমার নাটককে অন্যত্র নিয়ে যাচ্ছি। পারফর্মার হিসাবে তোমার এনার্জি আর করিশ্মা অতুলনীয় সোনা আন্টি’।

ছবিতে কালো সিল্ক স্কার্ট এবং সোনালি ব্লাউজে লেন্সবন্দী হয়েছেন মোহময়ী ইরা। সাজপোশাকেও ইরা অন্য সকলের চেয়ে আলাদা তা বারবার প্রমাণ করেছেন আমির খান কন্যা। যদিও ইন্সটাগ্রাম পোস্টে ইরা সোনাকে আন্টি বলে উল্লেখ করায় একটু খটকা লেগেছে নেটিজেনদের। এই শব্দ নজর এড়ায় নি সোনা মহাপাত্ররও। আমির খানের প্রতিভাময়ী কন্যাকে জবাবে মুক্তমনা এবং ভয়হীন হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন সোনা। পাশাপাশি সোনা জানিয়েছেন তুমি তো আমাকে কখনও আন্টি বলতে না! তাই এখনও কষ্ট করে আন্টি বলো না। সোনার এই কমেন্টের জবাব দিয়েছেন ইরাও। জানিয়েছেন আমি তোমাকে সবসমই আন্টি বলতাম, তুমি হয়ত খেয়াল করোনি। এই কথা শুনে সোনা ইরাকে পরামর্শ দেন, তুমি আমাকে মাসি বলে সম্বোধন করো,কেমন? এটা অনেক বেশি দেশি লাগে।

ইন্সটাগ্রামে ইরা ও সোনার কথোপকথন
ইন্সটাগ্রামে ইরা ও সোনার কথোপকথন


‘ইউরিপিদিস’ এর নাটককে নিজের প্রথম প্রোজেক্ট হিসাবে বেছে নেওয়া প্রসঙ্গে হিন্দুস্তান টাইমসকে ইরা জানান, ‘ইউরিপিদিস মেডিয়া শুরু একটা কালজয়ী নাটক নয়, এটার চিত্রনাট্যের মধ্যে একটা অদ্ভূত আবেদন রয়েছে। চরিত্রগুলোর মধ্যে অনেক জটিল পরত রয়েছে। এইরকম একটা পৌরানিক কাহিনিকে নতুন প্রজন্ম কীভাবে তুলে ধরবে সেটার মধ্যেই এটার অভিনবত্ব লুকিয়ে রয়েছে'।

পরিচালনায় নিজের আগ্রহ সম্পর্কে ইরা জানান, 'আমি সবসময়ই বেশি স্বচ্ছন্দ এবং উদ্যোগী ক্যামেরার পিছনে কাজ করার ব্যাপারে। ক্যামার সামনে আসতে আমি খুব বেশি ইচ্ছুক নই, যদি না সেটা অ্যাকশন ফিল্ম হয়। তাহলে আমি সমস্ত কুল স্টান্ট শেখার সুযোগ পাব। যদিও.. আমি স্টান্ট করা শিখতে পারি কোনও ছবিতে কাজ না করেও'।


বন্ধ করুন