বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘জয়া সাদা শাড়ি পরলে…', খোদা গাওয়াহ'র প্রযোজককে এই হুমকি দিয়েছিলেন অমিতাভের মা
‘খোদা গাওয়া’ ছবিতে অমিতাভ বচ্চন, শ্রীদেবী

‘জয়া সাদা শাড়ি পরলে…', খোদা গাওয়াহ'র প্রযোজককে এই হুমকি দিয়েছিলেন অমিতাভের মা

  • অমিতাভের মা তেজি বচ্চনের মতো শ্রীদেবীর মা রাজেশ্বরীও ছবির প্রযোজক মনোজ দেশাইকে হুমকি দিয়েছিলেন।

একবার অমিতাভ বচ্চনের মা তেজি বচ্চন এবং প্রয়াত অভিনেত্রী শ্রীদেবীর মা রাজেশ্বরী আফগানিস্তানে ‘খোদা গাওয়াহ’ ছবির শ্যুটিং চলাকালীন প্রযোজক মনোজ দেশাইকে হুমকি দিয়েছিলেন। এক সাক্ষাত্কারে, মনোজ বলেছেন দুজনের মা-ই আফগানিস্তানে শ্যুটিং হওয়ার কথা শুনে ভয় পেয়েছিলেন। তেজি বচ্চন বলেছিলেন, অমিতাভের কিছু হলে জয়া বিধবা হবে, সঙ্গে মনোজের স্ত্রীও বিধবা হবে।

মনোজের কথায়, তেজি বচ্চন আমাকে বলেছিলেন, ‘অমিতের যদি কিছু হয় আর জয়া যদি সাদা শাড়ি পরে তাহলে তোমার স্ত্রী কল্পনাও সাদা শাড়ি পরবে। তুমি এখানে ফিরেই এসো না।’ একই সময়ে শ্রীদেবীর মা-ও তাঁকে বলেছিলেন, কাবুলে তাঁর মেয়ের কিছু হলে তিনি মনোজের জীবন নিয়ে নেবেন। সে যেন শ্রীদেবীকে ছাড়া ভারতে ফিরে না আসে।

‘খোদা গাওয়াহ’ শ্যুটিং চালাকালীন ছবি
‘খোদা গাওয়াহ’ শ্যুটিং চালাকালীন ছবি

মনোজের কথায়, শ্রীদেবীর মায়ের বক্তব্য ছিল, যদি শ্রী-এর কিছু হয়, তাহলে তিনিও যেন কাবুল থেকে ফিরে না আসেন। তাহলে তিনি এখানে তাঁর খুন করে ফেলবেন। মনোজ আরও বলেন, ‘আফগানিস্তানে শ্যুটিং করা অনেকটা ঝুঁকিপূর্ণ ছিল জানি। কিন্তু অমিতাভ বচ্চন রিয়াল স্পটে শ্যুটিং করতে চেয়েছিল।’

১৯৯২ সালে মুক্তি পেয়েছিল ‘খোদা গাওয়াহ’। আফগানিস্তানে ১৮ দিন ধরে এই ছবির শ্যুটিং চলেছিল। কাবুল ও মাজার-ই-শরীফে ছবিটির বেশির ভাগ অংশের শ্যুটিং হয়েছে। সে সময় আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ নাজিবুল্লাহ ছবিটির শ্যুটিংয়ের জন্য কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছিলেন।

‘খোদা গাওয়াহ’সেট থেকে ছবি
‘খোদা গাওয়াহ’সেট থেকে ছবি

এক সাক্ষাত্কারে আফগানিস্তানে শ্যুটিংয়ের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে অমিতাভ বচ্চন বলেছিলেন, ‘শ্যুটিংয়ের সময়টাা বেশ মজার ছিল। ফাইটার জেট প্লেন ক্রমাগত আকাশে ঘোরাফেরা করছিল এবং সেটের চারপাশে সেনার ট্যাঙ্ক দাঁড়িয়ে ছিল, দেখে মনে হচ্ছিল যেন যুদ্ধক্ষেত্র।’ ছবিতে অপর গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন কিরণ কুমার।

বন্ধ করুন