বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > KBC 14: 'অনেক আপত্তিকর মন্তব্য পাই, পোস্ট করার আগে অনেক ভাবতে হয়', ট্রোলিং নিয়ে অমিতাভ
কেবিসির মঞ্চে একগুচ্ছ সিক্রেট ফাঁস করছেন অমিতাভ বচ্চন

KBC 14: 'অনেক আপত্তিকর মন্তব্য পাই, পোস্ট করার আগে অনেক ভাবতে হয়', ট্রোলিং নিয়ে অমিতাভ

  • নেটমাধ্য়মে ট্রোলিং নিয়ে বিরক্ত বিগ বি। কেবিসির মঞ্চে ফাঁস করছেন একগুচ্ছ মজার সিক্রেট।

বলিউডের 'শহেনশা' অমিতাভ বচ্চন। যুগের পর যুগ বলিউডে রাজত্ব করছেন তিনি। বড় পর্দায় দাপিয়ে বেড়ানো থেকে বর্তমানে কেবিসির মতো অন্যতম জনপ্রিয় রিয়ালিটি শো-এর সঞ্চালকের আসনে রয়েছেন। নেটমাধ্যমে দারুণ সক্রিয় বিগ বি। টুইটার, ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুকে নিত্যদিন পোস্ট করেন। ব্লগ লিখতেও ভালোবাসেন তিনি। 

নেটমাধ্যমে যে কোনও পোস্ট করার আগে অনেক ভাবনা চিন্তা করেন অমিতাভ। বিগ বি-র কথায়, প্রায়শই ট্রোলিং এবং গালিগালাজের মুখোমুখি হয়ে হয় তাঁকে। এগুলি থেকে দূরে থাকতে চান তিনি। অভিনেতা তার জনপ্রিয় কুইজ গেম শো ‘কৌন বনেগা ক্রোড়পতি’ (কেবিসি)-তে একথা বলেছিলেন। 

কেবিসির হট সিটে বসা ছিলেন মুম্বইয়ের সমিত শর্মা। তখন অমিতাভ শেয়ার করেন কীভাবে তিনি সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার শুরু করেন। এমনকি ট্রোলড হওয়ার বিষয়ে কথা বলেন বিগ বি। বলেছেন, ‘আমি ব্লগিং সম্পর্কে বলা হয় এবং ব্লগ লিখতে শুরু করি। আমি এইসব কিছুতেই বুঝি না। প্রায়শই আমি একটি করে ছবি পোস্ট করি বা কিছু লিখি। এরপরই আমাকে ট্রোল করা হয়। অনেক আপত্তিজনক মন্তব্য পাই। গালিগালাজ করে।’

আরও পড়ুন: ২৯ বছরে কেরিয়ারের শীর্ষে থেকে মা হচ্ছেন আলিয়া, সিদ্ধান্তকে ‘সাহসী’ বললেন করিনা

অভিনেতা-সঞ্চালক বলেন, ‘আমি জানতাম না যে লোকেরা আপনার পোস্ট করা ছবিতেও মন্তব্য করতে পারে। কেউ লিখেছেন, নিজেকে কী মনে করেন। এবং আরও অনেক কিছু যা আমি মুখে আনতে পারব না। লেখার আগে অনেক ভাবতে হয়। আমাকে কিছু পোস্ট করার আগে অনেক চিন্তা করতে হয়।'

শোতে একটি মজার ঘটনাও স্মরণ করেন অমিতাভ। অভিনেতা বলেন, ‘বিরাট আয়োজনে খাওয়া-দাওয়া ছিল- একটি রাজনৈতিক স্তরের, যেখানে প্রধানমন্ত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। জাপানের প্রধানমন্ত্রী ভারত সফরে এসেছিলেন। খাবারের পর বড় পাত্রে গোলাপের পাপড়ি দেওয়া হাত ধোওয়ার বাটি এসেছে। অতিথি মনে করেন ওটা একটা কোনও খাবেরর ডিস। উনি পান করে নেন। অতিথি যেন বিব্রত বোধ না করেন, তাই আমাদের প্রধানমন্ত্রীও তা পান করেন।’

বিজ্ঞাপনে কাজ করার অভিজ্ঞতাও শেয়ার করেছেন অমিতাভ। অভিনেতা বলেন, ‘আপনি যত বড় অভিনেতাই হোন না কেন এবং আপনি যতই ভালো কাজ করেন না কেন, যখনই আপনি শট দেন, পুরো ফ্লোর নীরব থাকে। বিজ্ঞাপন সংস্থার লোকেরা কয়েক মিনিটের জন্য নীরব থাকে এবং কেউ একটি শব্দও উচ্চারণ করে না। কেউ কোনও টেক বা অভিনয় সম্পর্কে কোনও টু শব্দ করেনা। বিজ্ঞাপন সংস্থা শটটি সঠিক না বলা পর্যন্ত কেউ মন্তব্য করেনা। ১৫-২০ মিনিট পর তাঁরা লক্ষ্য করবে, পিছনে একটা পাতার অবস্থান সঠিক নেই। আমি ইন্ডাস্ট্রিতে ৫০ বছর কাটিয়েছি। ওঁরা পাতা নিয়ে বিরক্ত।’

বন্ধ করুন