বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'কুলি'-র দুর্ঘটনার পর বাবার চোখে প্রথম জল, স্মৃতিমেদুর ‘মৃত্যুকে হারানো’ অমিতাভ
বাবা হরিবংশ রায় বচ্চনের সঙ্গে অমিতাভ বচ্চন
বাবা হরিবংশ রায় বচ্চনের সঙ্গে অমিতাভ বচ্চন

'কুলি'-র দুর্ঘটনার পর বাবার চোখে প্রথম জল, স্মৃতিমেদুর ‘মৃত্যুকে হারানো’ অমিতাভ

  • স্মৃতির সাগরে ডুব দিলেন অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন। প্রথমবার বাবা হরিবংশ রায় বচ্চনকে কাঁদতে দেখেছিলেন তিনি।

‘কুলি’ ছবির শ্যুটিংয়ের সময় একটি দৃশ্যের শ্যুটিং করতে গিয়ে শরীরে আঘাত পেয়েছিলেন অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন। সেই ছবি অভিনেতার এক ভক্ত সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেন। নজরে আসে অভিনেতার। এরপরই সেই ছবি নিজের সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেন তিনি। এমনকী হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার পর বাবা হরিবংশ রায় বচ্চন অমিতাভকে নিজের কবিতা দিয়ে স্বাগত জানিয়েছিলেন সেই সময়। সম্প্রতি অভিনেতার টুইটারে ফলোয়ার্সের সংখ্যা ৪৫ মিলিয়ন পার করেছে। তাঁদের সঙ্গে ছবি শেয়ার করতে দেখা যায় অভিনেতাকে।

ছবি পোস্ট করে অভিনেতা লিখেছেন, ‘টুইটারে ৪৫ মিলিয়ন মানুষ এই ক্যাপশন দেখতে পাচ্ছেন... ধন্যবাদ জেসমিন, কিন্তু ছবিটা অনেকটা বেশি কিছু বলে.. ‘কুলি’ অ্যাক্সিডেন্টের পর মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছিলাম এটা সেই সময়কার ছবি.. এই সময় প্রথমবার আমি আমার বাবাকে ভেঙে পড়তে দেখেছিলাম ! ছোট অভিষেক উদ্বিগ্ন হয়ে দেখছিল !’

ছবিতে দেখা যাচ্ছে যাচ্ছে, মাথা নীচু করে বাবার পায়ে হাত দিয়ে আশীর্বাদ নিচ্ছেন অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন। সেই সেময় তাঁর বাবাকে প্রথমবার ভেঙে পড়তে দেখেছিলেন অভিনেতা। বাবার চোখে জল দেখেছিলেন তিনি। অন্যদিকে, পাশে দাঁড়িয়ে খুদে অভিষেক, উদ্বিগ দৃষ্টিতে বাবা অমিতাভকে দেখছে সে। পোস্টে অভিনেতার অসংখ্য ভক্তদের কমেন্ট করতে দেখা যায়। সেই সময় ভয়াবহ অ্যাক্সিডেন্টের অভিজ্ঞতাকে স্মরণ করতে দেখা যায় তাঁদের। অনেককেই অমিতাভের বাহবা জানিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, ১৯৮২ সালের ২৬ জুলাই বেঙ্গালুরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ছবির শ্যুটিং চলাকালীন বড়সড় দুর্ঘটনার মুখে পড়েন অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন। পুনিত ঈশ্বরের সঙ্গে লড়াইয়ের একটি দৃশ্যে ভুল করে লাফ দিয়ে টেবিলের উপর এসে পড়েন অমিতাভ। এরপরই গুরুতর চোট পান তিনি। এছাড়াও অন্যান্য ছবির শ্যুটিং সেটে একাধিকবার আঘাত পেয়েছেন অভিনেতা।

বন্ধ করুন