বাড়ি > বায়োস্কোপ > আনন্দপুর কাণ্ডের বীরাঙ্গনাকে কুর্নিশ মিমির, বললেন ‘আপনার মতোন আরও মানুষ প্রয়োজন’
নীলাঞ্জনাকে কুর্নিশ মিমির 
নীলাঞ্জনাকে কুর্নিশ মিমির 

আনন্দপুর কাণ্ডের বীরাঙ্গনাকে কুর্নিশ মিমির, বললেন ‘আপনার মতোন আরও মানুষ প্রয়োজন’

  • রাতের কলকাতায় সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছেন নায়িকাও। বছর তিনেক আগে এক হিট অ্যান্ড রান মামলা চোখের সামনে দেখে ঘাতক গাড়িটি ধাওয়া করে আটকে ছিলেন মিমি চক্রবর্তী। 

তাঁর বীরত্বের কাহিনী ইতিমধ্যেই সংবাদ সংস্থা এবং সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে দিকে দিকে ছড়িয়ে পড়েছে । ভেসে আসছে একের পর এক শুভেচ্ছা বার্তা । ইতিমধ্যেই ফোন করে পাশে থাকার বার্তা জানিয়েছেন খোদ কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা, সাবাসি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। আর এবার সত্যের পথে থেকে অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়তে গিয়ে জখম হওয়া সৈনিক তথা আনন্দপুর কাণ্ডের বীরাঙ্গনা , শ্রীমতি নীলাঞ্জনা চট্টোপাধ্যায়কে কুর্নিশ জানালেন অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী । টুইটারে তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনা করে পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন যাদবপুরের সাংসদ ।

মিমি টুইটারে লেখেন, ‘আপনার মতোন আরো মানুষের প্রয়োজন নীলাঞ্জনা দেবী .. আপনি অনুপ্রেরণা আমার এবং আমাদের মতো অনেক মেয়ের কাছে আজ। কুর্ণিশ জানাই আপনাকে... আপনার দ্রুত আরোগ্য কামনা করি’।

গত শনিবার রাত ৮টা নাগাদ আনন্দপুর এলাকায় একটি গাড়ি থেকে এক তরুণীর আর্তনাদ শুনে স্বামীকে অ্যালার্ট করেন নীলাঞ্জনা। স্বামীর সঙ্গে অপর একটি গাড়িতে যাচ্ছিলেন তিনি। তরুণীকে বাঁচাতে গাড়ি থেকে নেমে এগিয়ে যান তিনি। এরই মধ্যে তরুণীকে গাড়ি থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়। গাড়ি ঘুরিয়ে নীলাঞ্জনাকে ধাক্কা মারে গাড়িটি। নীলাঞ্জনা রাস্তায় পড়ে গেলে তাঁর পায়ের ওপর দিয়ে গাড়ি চালিয়ে দেন অভিযুক্ত। নীলাঞ্জনার বাঁ পায়ের ২টি হাড়ই ভেঙে গিয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ২০১৭ সালে অনেকটা এই ধরণেরই সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছিলেন স্বয়ং মিমি । সেবার রাতের দিকে বাইপাসের ওপর সংঘটিত এক দুর্ঘটনায় অপরাধীর গাড়িকে রীতিমতো ধাওয়া করে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছিলেন অভিনেত্রী । ওই দিন অভিনেতা দেবের সাথে চাকদায় একটি শো করে ফিরছিলেন মিমি । পথের মধ্যেই রাত সাড়ে ১১ নাগাদ দেখতে পান একটি গাড়ি একটি বাইককে পিছন থেকে ধাক্কা মেরে পালিয়ে যাচ্ছে । বাইক আরোহী রাস্তায় ছিটকে পরেন এবং ঘাতক গাড়ির সাথে কোনো ভাবে তাঁর দেহাংশ আটকে যায় । গাড়িটি আহত ব্যক্তিকে হেঁচড়ে টেনে এগিয়ে চললেও থামার কোনো লক্ষণ না দেখে নিজের গাড়ি নিয়ে ধাওয়া করেন মিমি । অবশেষে লেকটাউনের কাছে গাড়ি আটকে , গাড়ির ভিতরকার দুই মদ্যপ যাত্রী এবং চালককে বাউন্সারদের সহায়তায় টেনে বার করেন অভিনেত্রী। রীতিমতো প্রহার করে বাগুইআটি থানার হাতে তুলে দিয়েছিলেন মিমি।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় নীলাঞ্জনা দেবীকে তাঁর সাহসিকতার জন্য বাহবা জানিয়েছেন । তাঁর চিকিৎসার সমগ্র ব্যয় ভার বহন করছে রাজ্য সরকার । ধীরে ধীরে সেরে উঠছেন তিনি।

এদিকে তদন্ত শুরু হওয়ার পরে আক্রান্ত তরুণীর বিরুদ্ধে অভিযুক্তের নাম ভুল বলে পুলিশকে বিভ্রান্তের অভিযোগ উঠেছে । জানা গিয়েছে অভিযুক্ত যুবককে অন্তত পাঁচ বছর ধরে চিনতেন ওই নিগৃহীতা । অভিষেক  পাণ্ডেকে তিনদিন পর গ্রেফতার করে পুলিশ।

বন্ধ করুন