বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > আরেকটু হলে শ্যুটিং ফ্লোরে অনিল কাপুরের হাতে খুন হয়ে যেতেন রাহুল বসু!

আরেকটু হলে শ্যুটিং ফ্লোরে অনিল কাপুরের হাতে খুন হয়ে যেতেন রাহুল বসু!

দিল ধড়কনে দো ছবির দৃশ্য 

দিল ধড়কনে দো ছবির শ্যুটিংয়ে চিত্রনাট্যের বাইরে হেঁটে তার দিয়ে রাহুলের শ্বাসরোধ করবার চেষ্টা করেছিলেন অনিল কাপুর, চমকে গিয়েছিল গোটা ইউনিট। 

অনিল কাপুরের কেরিয়ারের অন্যতম চর্চিত ছবি ‘দিল ধড়কনে দো’। জক্কাস তারকা পরিচালক জোয়া আখতারের এই ছবিতে অভিনয় করেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও রণবীর সিংয়ের বাবার ভূমিকায়। সম্প্রতি এই ছবির শ্যুটিংয়ের অনেক অজানা গল্প ভাগ করে নিয়েছেন অনিল।  ২০১৫ সালে মুক্তি পেয়েছিল এই ছবি, যেখানে কমল মেহতা নামে এক ধনী ব্যবসায়ীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অনিল। 

এই ছবির একটি দৃশ্যের শ্যুটিংয়ের জন্য শুরু থেকেই মুখিয়ে ছিলেন অভিনেতা। সেই দৃশ্যে নিজের মেয়ে আয়েশা (প্রিয়াঙ্কা)-র জন্য রুখে দাঁড়াতে দেখা যায় অনিলকে। সেই দৃশ্যে ছবির লিড কাস্টের প্রায় সকলেই মজুত ছিল। শেফালি শাহ, প্রিয়াঙ্কা-রণবীর এবং অবশ্যই রাহুল বসু। যে দৃশ্য শ্যুট করতে চিত্রনাট্য পড়বার পর থেকেই মুখিয়ে ছিলেন অনিল, সেটি তাঁর ভাবনার তুলনায় আরও ভালোভাবে পর্দায় ফুটে উঠেছে বলে জানান অভিনেতা।

দিল ধড়কনে দো ছবিটি মূলত ক্রুজে শ্যুট হয়েছে। কারণ ছবির প্রেক্ষাপট একটি বিলাসবহুল প্রমোদতরী। যদিও এই দৃশ্যটি মুম্বইয়ের মেহবুব স্টুডিওতে পরবর্তী সময়ে শ্যুট করা হয়। দৃশ্যে কী দেখানো হয়েছে ?  দেখা যাচ্ছে গোটা মেহরা পরিবার একটি ঘরের মধ্যে বসে যাচে এবং বিবাহিত দম্পতি রাহুল ও প্রিয়াঙ্কার সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা চলছে। প্রিয়াঙ্কা শাশুড়ি মা, যে ভূমিকায় জরিনা ওয়াহাব অভিনয় করেছেন তিনি প্রিয়াঙ্কাকে লাগাতার অপমান করছিলেন। এরপর রণবীর তাঁকে কটূকথা শোনালে মেজাজ হারান রাহুল বসু এবং তিনি প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে খারাপ আচরণ করেন, এক কথায় শারীরিক নিগ্রহ করে। যা দেখে অনিল কাপুর রেগে গিয়ে রাহুল বসুকে মাটিতে লুটিয়ে ফেলে দেওয়ার কথা ছিল, এবং ‘তেরা হাত উখাড় দুঙ্গা (তোর হাত ভেঙে দেব)’ এটি ছিল তাঁর ডায়লদ। যদিও সেই সময় হাতের কাছে একটি তার দেখতে পেয়ে সেটি হাতে তুলে নেন অনিল, এবং রাহুল বসুর গলায় পেঁচিয়ে ধরেন। যা চিত্রনাট্যের অংশ ছিল না। বাস্তব জীবনে দুই কন্যা সন্তানের বাবা, অনিল কাপুরকে থামাতে হয়েছিল এবং মনে করাতে হয়েছিল এখানে শ্যুটিং চলছে। অনিল নিজেও আক্ষেপের সুরে বলেন, ‘ওই দৃশ্যে আরকেটু হলে আমার হাতে রাহুল বসু খুনই হয়ে যেত’। 

বন্ধ করুন