বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘তোমাকে জানতে পেরে ধন্য’, ডি’ভিলিয়ার্সের অবসরের সিদ্ধান্তে মন ভাঙল বৌদি অনুষ্কার
সব ধরণের ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেন ডি’ভিলিয়ার্স
সব ধরণের ক্রিকেট থেকে অবসর নিলেন ডি’ভিলিয়ার্স

‘তোমাকে জানতে পেরে ধন্য’, ডি’ভিলিয়ার্সের অবসরের সিদ্ধান্তে মন ভাঙল বৌদি অনুষ্কার

  • অনুষ্কার জীবনে দেখা শুধু অন্যতম সেরা ক্রিকেটার নন, সেরা পুরুষ আব্রাহাম বেঞ্জামিন ডি'ভিলিয়ার্স।

আরসিবি-র ওই লাল জার্সি গায়ে আর ২২ গজে দেখা যাবে না এবি ডি’ভিলিয়ার্স-কে। সব ধরনের ক্রিকেট থেকে শুক্রবার অবসর ঘোষণা করবেন দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা ক্রিকেটার এবি ডি ভিলিয়ার্স। দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন অধিনায়ক এদিন সোশ্যাল মিডিয়ায় লম্বা পোস্ট দিয়েছেন। তিনি লিখেছেন ‘এটা ছিল অসাধারণ যাত্রা, কিন্তু আমি সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

৩৭ বছর বয়সী এই তারকা ক্রিকেটার ২০১১ সালে দলে প্রথম রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরে যোগ দিয়েছিলেন। এরপর থেকে ১১টা বছর ও টানা ১০টা মরশুম আরসিবিতেই খেলেছিলেন তিনি। আর আরসিবি-র সঙ্গে এই নিবিড় বন্ধনের জেরেই বিরাট কোহলি ও অনুষ্কা শর্মার সঙ্গেও পারিবারিক বন্ধুত্ব এবি ডি’ভিলিয়ার্স-এর। স্বভাবতই এই সিদ্ধান্তে ‘মন ভাঙল' বিরাট ঘরনির।

ডি’ভিলিয়ার্স-এর ছবি ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে শেয়ার করে অনুষ্কা লেখেন, ‘অন্যতম সেরা পুরুষ এবং ক্রিকেটার, তোমাকে জানতে পারার সুযোগ পেয়ে আমি ধন্য, তোমার খেলা দেখে আমি মু্গ্ধ। তোমাকে, ড্যানিয়েল এবং তোমার সন্তানদের আগামীর জন্য অনেক শুভেচ্ছা। যা কিছু সুন্দর সেই সবকিছু তোমার জন্য অপেক্ষায়…. আরও অনেক কিছু… এটা সত্যি খুব হৃদয়বিদারক’। 

অনু্ষ্কার ইনস্টাগ্রাম স্টোরি
অনু্ষ্কার ইনস্টাগ্রাম স্টোরি

আরসিবির দীর্ঘদিনের সতীর্থ হিসেবে বিরাট কোহলির সঙ্গে ডি'ভিলিয়র্সের বন্ধুত্বের কথা এতদিনে সকলের জানা। মাঠের বাইরেও দু'জনের ব্যক্তিগত সম্পর্কের বাঁধন অত্যন্ত দৃঢ়। স্বাভাবিকভাবেই বন্ধু ডি'ভিলিয়র্স আর কখনও ব্যাট হাতে মাঠে নামবেন না জেনে ব্যথিত বিরাট। সোশ্যাল মিডিয়ায় এবিডিকে আগামী জীবনের শুভেচ্ছা জানাতে গিয়ে কোহলিকে রীতিমতো আবেগপ্রবণ দেখায়। বিরাট ডি'ভিলিয়র্সকে নিজের প্রজন্মের সেরা ক্রিকেটার আখ্যা দেন। সেই সঙ্গে তাঁকে সবথেকে বেশি অনুপ্রাণিত করা মানুষ হিসেবে বর্ণনা করেন ভারত অধিনায়ক।

এবি ডি’ভিলিয়ার্স এবার নিজের পরিবারকে বেশি সময় দিতে চান। তিনি লিখেছেন, ‘আমি প্রত্যেক সতীর্থ, প্রতিপক্ষ, কোচ, ফিজিও স্টাফ সদস্যদের ধন্যবাদ জানাতে চাই, যারা একই পথে সফর করেছে এবং দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারত কিংবা যেখানেই খেলেছি সবার যে সমর্থন পেয়েছি তাতে আমি সম্মানিত। শেষ কথা, আমি জানি আমার পরিবার- বাবা মা, ভাই, আমার স্ত্রী ড্যানিয়েল ও সন্তান যে ত্যাগ স্বীকার করেছে সেটা ছাড়া কিছুই সম্ভব হতো না। আমাদের জীবনের পরবর্তী অধ্যায়ের জন্য আমি মুখিয়ে রয়েছি।’

বন্ধ করুন