বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Aparajita Apu: বিডিও হওয়ার স্বপ্ন দেখলে কপালে জুটত মার, সেই বাবাই এখন অপুর সাফল্যে আনন্দে গদগদ!
মেয়েকে চমকে দিল অপুর বাবা
মেয়েকে চমকে দিল অপুর বাবা

Aparajita Apu: বিডিও হওয়ার স্বপ্ন দেখলে কপালে জুটত মার, সেই বাবাই এখন অপুর সাফল্যে আনন্দে গদগদ!

  • মেয়ের সাফল্যে আনন্দে গদগদ অপুর বাবা। অতীতের ভুলে জন্য চাইলেন ক্ষমা।

ছেলেবেলা থেকেই স্বাধীনচেতা অপু। তাঁর দু-চোখে কোনওদিন সংসার পাতার স্বপ্ন ছিল না, বরং পড়াশোনা করে বড় অফিসার হওয়ার স্বপ্ন দেখত ছোট্ট মেয়েটা। অথচ এর জেরেই দিনরাত বাবার কাছে বকুনি শুনত সে, কপালে জুটত মারও। কিন্তু তা সত্ত্বেও নিজের লক্ষ্যে অবিচল ছিল অপু, তাঁর বিশ্বাস টলাতে পারেনি কেউ। 

জীবনে অনেক ঝড়-ঝঞ্ঝা এসেছে, সবকিছুর মোকাবিলা করেছে অপু, এমনকি বিয়ের পরেও বিডিও হওয়ার স্বপ্ন থেকে একচুল সরেনি সে। ফলস্বরূপ আজ নিজের লক্ষ্যে পৌঁছাতে পেরেছে অপু। এই মুহূর্তে বাংলা বিনোদন জগতের অন্যতম হিট সিরিয়াল ‘অপরাজিতা অপু’। সন্ধ্যা হলেই জি বাংলার পর্দায় দর্শক হাঁ করে গিলে খায় অপু আর দীপুর এই কাহিনি। 

একটা সময় অপুর পড়াশোনা নিয়ে আপত্তি তুলেছিল শাশুড়ি মা। কিন্তু এখন অপুই শাশুড়ির নয়নের মণি, বউমার সাফল্যে গর্বিত তিনি। বিডিও-র দায়িত্ব কাঁধে তুলে নিতেই দুর্নিতিবাজদের আতঙ্ক সে। মেয়ের এই বিরাট সাফল্যের সেলিব্রেশনে ব্যান্ড বাজা নিয়ে অপুর শ্বশুর বাড়িতে হাজির তাঁর বাবা। সকলে তো অবাক এই কীর্তিতে। ব্যক্তিক্রমী অপুর ইচ্ছেগুলোর গলা যতবার টিপে ধরেছে তাঁর স্ট্রিক্ট বাবা, ততবার সে আরও জোরে আকাশে উড়বার প্রতীজ্ঞা করেছে। কিন্তু সময়ের সঙ্গে সঙ্গে নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন অপুর বাবা। তিনিও বুঝেছেন মেয়েদের জীবনেও কিছু স্বপ্ন থাকে, কিছু লক্ষ্য থাকে। মেয়ের সাফল্যে গর্বে বুক ফুলেছে তাঁর, প্রকাশ্যেই এদিন মেয়ের কাছে ক্ষমাও চান তিনি। 

বাবার এই পরিবর্তন দেখে চোখে জল অপুর. তবে সে স্পষ্ট জানায়- ‘জীবনে সকলকে সঙ্গে নিয়েই চলতে চায় সে’। সেটাই তাঁর লক্ষ্য। কেরিয়ার আর সংসার কেমনভাবে ব্যালেন্স করে চলবে অপু, সেটাই এখন দেখবার। 

বন্ধ করুন