বোরখা বিতর্কে আবারও মেয়ের সমর্থনে গলা ফাটালেন সঙ্গীত পরিচালক এ আর রহমান (সৌজন্যে-ইন্সটাগ্রাম)
বোরখা বিতর্কে আবারও মেয়ের সমর্থনে গলা ফাটালেন সঙ্গীত পরিচালক এ আর রহমান (সৌজন্যে-ইন্সটাগ্রাম)

'পুরুষরা বোরখা পরে না, না হলে আমিও পরতাম', বোরখা বিতর্কে মেয়ের পাশে এ আর রহমান

  • বোরখা বিতর্কে মেয়েকে শুধু সমর্থনই করলেন না এ আর রহমান, বরং একধাপ এগিয়ে অস্কার জয়ী সঙ্গীত পরিচালক দাবি করলেন সুযোগ থাকলে তিনিও বোরখা পরতেন।

কিছুতেই থামছে না রহমান কন্যা খতিজার বোরখা বিতর্ক। খতিজার বোরখা পরা ছবি দেখে টুইটারে তাঁকে ট্রোল করেন বাংলাদেশের নির্বাসিত সাহিত্যিক তসলিমা নাসরিন। গোটা ঘটনায় মেয়ের পাশেই দাঁড়ালেন রহমান। সমর্থন করলেন মেয়ের বোরখা পড়ার সিদ্ধান্তকে। দ্য কুইন্টকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে রহমান বলেন, পুরষরা বোরখা পরে না..তা না হলে আমিও বোরখা পরতাম। জীবনটা অনেক সোজা হত, সহজেই আমি বেরিয়ে পড়তে পারতাম, শপিং করতে পারতাম। আমার মনে হয় ও নিজের স্বাধীনতাটা খুঁজে পায়(বোরখায়)। কারণ খাতিজা এমন একজন মানুষ যে একজন পরিচারিকার আত্মীয়ের মৃত্যুতেও ছুটে যায়। আমি ওর এই মানসিকতায় মুগ্ধ হয়ে যাই। সমাজের জন্য ও যেটা করে সেটা সত্যিই প্রশংসনীয়।

রহমান আরও জানান, খতিজা কোনওদিনই তাঁকে অথবা পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে পরামর্শ করেননি তসলিমা নাসরিনকে জবাব দেওয়ার আগে। আমার মনে হয় ধর্মীয় বিষয়ের থেকে এই জিনিসটা মনোবিজ্ঞানের সঙ্গে যুক্ত। ও একটা গান গেয়েছে এবং প্রায় ১ কোটি মানুষ সেই গান নিজেদের রিংটোন হিসাবে বেছে নিয়েছে! একটা ছোট বাচ্চা যে খুব বেশি কথা বলে না, নিজের মধ্যে থাকে সে আচমকাই মানুষের থেকে নিজের সম্পর্কে ভালো-খারাপ মন্তব্য শুনছে-তাঁর মাথা ঘুরে যেতেই পারে।


সম্প্রতি টুইটারে অস্কার জয়ী সঙ্গীত পরিচালক এ আর রহমানের কন্যা খতিজার বোরখা পরা ছবি পোস্ট করে তসলিমা মন্তব্য করেন, ‘এ আর রহমানের সংগীত খুব পছন্দ করি। কিন্তু যখনই ওঁর আদরের মেয়েকে দেখি, তখনই মনে হয় শ্বাসরোধ হয়ে যাচ্ছে। সংস্কৃতিবান পরিবারের শিক্ষিত মহিলারাও এত সহজে মগজধোলাইয়ের শিকার হচ্ছেন দেকে বিমর্ষ বোধ করি।’


শুধু তাই নয়, তসলিমার আক্রমণাত্মক টুইটের স্ক্রিনশট শেয়ার করে ইন্সটাগ্রামে রহমান কন্যা লেখেন, ‘সবে একবছর কেটেছে, এই বিষয়টি নিয়ে আবার চর্চা শুরু হয়েছে... দেশে এত কিছু ঘটে চলেছে আর মানুষ শুধুমাত্র এক মহিলার পোশাকের অংশ নিয়ে চিন্তিত হচ্ছে। সত্যিই অবাক হচ্ছি। যখনই বিষয়টি উঠে আসে, তখনই নিজের ভিতরের আগুন ফের জ্বলে ওঠে আর অনেক কিছু বলার ইচ্ছে জাগে।’

এরপর সরাসরি তসলিমার নাম উল্লেখ করে আক্রমনাত্মক ভাষায় খতিজা লেখেন, 'প্রিয় তসমিলা নাসরিন, আমি খুব দুঃখিত যে আমার পোশাকের জন্য আপনি শ্বাসরুদ্ধ পরিস্থিতি অনুভব করছেন। দয়া করে একটু খোলা বাতাস নিন,আমি কিন্তু শ্বাসরুদ্ধ হচ্ছি না বরং, আমি গর্বিত এবং নিজেকে ক্ষমতাশালী বলেই মনে করি। আমি অনুরোধ করছি আপনি গুগল করে জানুন নারীবাদের আসল অর্থ কী,কারণ অন্য মহিলার সম্মানহানি করা বা তাঁদের বাবাকে কোন বিষয়ের মধ্যে টেনে আনাটা আমার মনে হয় না নারীবাদের অর্থ। এছাড়া আমার তো মনে পড়ছে না আমি কোনদিও আপনাকে আমার ছবি পাঠিয়েছি বলে!'


বোরখা পরাকে কেন্দ্র করে রহমান কন্যার ট্রোলিং নতুন ঘটনা নয়। গত বছরও এ আর রহমানের সঙ্গে একটি অনুষ্ঠানে বোরখা পরে উপস্থিত হওয়ায় সোশ্যাল মিডিয়ায় ট্রোলের শিকার হন খতিজা। যদিও সে সব নিয়ে মাথা ঘামাতে নারাজ তিনি। ইনস্টাগ্রামে হামেশাই নিজের বোরখা পরা ছবি প্রায়ই পোস্ট করে থাকেন খতিজা।


বন্ধ করুন