বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ডিভোর্সের পর কী কী বদলেছে মালাইকা-আরবাজের জীবনে? শুনুন সলমনের ভাইয়ের জবাব

ডিভোর্সের পর কী কী বদলেছে মালাইকা-আরবাজের জীবনে? শুনুন সলমনের ভাইয়ের জবাব

মালাইকার সঙ্গে ডিভোর্স নিয়ে মুখ খুললেন আরবাজ। 

১৯ বছরের সম্পর্ক ভেঙে বেরিয়ে এসেছিলেন আরবাজ খান আর মালাইকা আরোরা। সম্প্রতি এই নিয়ে মুখ খুললেন সলমনের ভাই।

১৯৯৮ সালে মালাইকা আরোরার সঙ্গে বিয়ে করেন আরবাজ খান। বলিপাড়ার একসময়ের চর্চিত জুটি ছিলেন তাঁরা। তবে ২০১৬ সালের ২৮ মার্চ বিচ্ছেদের কথা ঘোষণা করেন তাঁরা। এবং অফিসিয়ালি ডিভোর্স হয় ২০১৭ সালের ১১ মে। সেইসময় অনেকেই বিশ্বাস করতে পারেননি এই সম্পর্ক ভাঙতে পারে কখনও। যদিও বিয়ে ভাঙলেও, ছেলে আরহানের সব দায়িত্ব একসঙ্গে পালন করে চলেছেন তাঁরা। 

এর আগে সেভাবে বিচ্ছেদ নিয়ে কথা বলেননি আরবাজ। সম্প্রতি সিদ্ধার্থ কন্ননকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সলমনের ভাইকে বলতে শোনা গেল, ‘হ্যাঁ আমরা দুজনেই মানুষ হিসেবে অনেকটা বদলেছি। অনেকটা পরিণত হয়েছি। দুজন দুজনের অনেককিছু মেনে নিয়েছি।’

আরবাজ বলেন, ‘আমার জীবনে অনেক কিছু জিনিস আছে যা হয়তো মালাইকা এখন মেনে নিয়েছে, বা ওর জীবনের কিছু জিনিস যা আমি মানতে পেরেছি। আমাদের দুজনের একটা মিল আছে, তা হল আমাদের ছেলে। আমরা চাইনি ওর বড় হওয়ার পথে এমন কিছু আসুক যা ওর জীবনটাকে ক্ষতবিক্ষত করে।’

আপাতত দুজনেই আছেন আলাদা আলাদা সম্পর্কে। আরবাজ খানের সঙ্গে সম্পর্ক আছে জর্জিয়া আদ্রিয়ানি। আর মালাইকার খুল্লামখুল্লা প্রেম অর্জুন কাপুরের সঙ্গে। 

এর আগে ডিভোর্স প্রসঙ্গে মালাইকা এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ‘আমার ব্যক্তিজীবনে ঝড় বয়ে গিয়েছিল এই কারণে। অনেক কিছু আমার মাথার মধ্যে চলছিল। পরিবারের চাপ ছিল, আমাকে ভাবতে হয়েছিল এতে আমার ছেলের উপর কী প্রভাব পড়বে, আমি কীভাবে এটার সাথে মানিয়ে নেব, সমাজ কী বলবে, আমি আদৌ কাজ পাব তো-- সব কিছু চলেছিল আমার মাথার মধ্যে। হয়তো এটা আমার জীবনের সবথেকে খারাপ একটা সময়। এমন এক উত্থান-পতন যার সাথে মানিয়ে নিতেই আমার অনেকটা সময় চলে গিয়েছে। কারণ এটা শুধু আমার উপর প্রভাব ফেলেনি, আমার গোটা পরিবারের উপর ফেলেছিল। আমার বাচ্চাটাও এর সাথে জড়িত ছিল।’

 

বন্ধ করুন