বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > মালাইকা নন, জীবনের এই বিশেষ নারীর নাম হাতে খোদাই করলেন অর্জুন কাপুর
অর্জুন কাপুর ও মালাইকা আরোরা
অর্জুন কাপুর ও মালাইকা আরোরা

মালাইকা নন, জীবনের এই বিশেষ নারীর নাম হাতে খোদাই করলেন অর্জুন কাপুর

  • অর্জুনের হাতের ট্যাটুতে খোদাই করা হল তাঁর নামের আদ্যোক্ষর। ইনিই অর্জুন কাপুরের জীবনের সবচেয়ে স্পেশ্যাল নারী। 

মালাইকা আরোরার সঙ্গে অর্জুন কাপুরের প্রেম সম্পর্কের কথা সকলের জানা। বয়সে ১৪ বছরের বড়, মালাইকার সঙ্গে অর্জুনের প্রেম নিয়ে কম কাটা ছেঁড়া চলে না সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেইসব পাত্তা দেন না দুজনেই। তবে এবার অর্জুন কাপুর বিশেষ মানুষের নাম খোদাই করে ফেললেন নিজের হাতে। তবে সেই বিশেষ নারী কিন্তু মালাইকা অরোরা নন, ভাবছেন তিনি কে? 

জবাবটা হল, অংশুলা কাপুর। সম্পর্কে অর্জুনের ছোট বোন। বনি কাপুর ও তাঁর প্রথম স্ত্রী মোনা শৌরির একমাত্র মেয়ে। বয়সে ছোট বোন জীবনে অনেক আত্মত্যাগ করেছেন অর্জুন কাপুরের জন্য, দিন কয়েক আগেই এমনই আবেগঘন স্বীকারোক্তি করেছেন ‘ইকশজাদে’ তারকা।এবার গোটা জীবনের মতো বোনকে নিজের সঙ্গে জুড়ে নিলেন অর্জুন। অংশুলা কাপুরই অর্জুনের গোটা পৃথিবী, তাই বোনের নাম এবার হাতে ট্যাটু করলেন অভিনেতা। অর্জুন-অংশুলার স্ট্রং বন্ডিংয়ের কথা কারুরই অজানা নয়। নানা সময় সোশ্যাল মিডিয়ায় ভেসে উঠে ভাই-বোনের মিষ্টি মুহূর্ত। বোনের জন্য জন্য হাতে আঁকা ট্যাটুর ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেছেন অর্জুন। ইংরাজিতে লেখা অংশুলার নামের আদ্যোক্ষর A, সঙ্গে তাসের টেক্কার চিহ্ন। কেন এই চিহ্ন? তাও নিজের ক্যাপশনে স্পষ্ট করে দেন অর্জুন। জানান, অনুশলাই অর্জুনের জীবনের টেক্কা। সারাজীবনের মত তাকে বেঁধে নিয়েছেন নিজের সঙ্গে, আর এবার নিজের হাতেও অংশুলাকে বাঁধলেন তিনি।

খুব ছোট বয়সেই বাবা-মা'য়ের ডিভোর্স। কেরিয়ার শুরুর আগেই ক্যানসারে মা-কে হারানো- জীবনে বহু চড়াই-উতরাইয়ের মধ্যে দিয়ে গিয়েছেন অর্জুন কাপুর। আর এই জার্নিতে তাঁর সবচেয়ে বড় সাপোর্ট হিসাবে হামেশা তাঁর হাত শক্ত করে ধরে রেখেছেন অংশুলা কাপুর।

বোনের সঙ্গে অর্জুন  (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
বোনের সঙ্গে অর্জুন  (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

দাদার এই ভালোবাসায় আপ্লুত অংশুলা। অর্জুনের পোস্টের কমেন্ট বক্সে লেখেন- ‘তোকে খুব ভালোবাসি’। 

প্রযোজক বনি কাপুর এবং তাঁর প্রথম পক্ষের স্ত্রী মোনা কাপুরের দুই সন্তান অর্জুন-অংশুলা। ১৯৯৬ সালে মোনাকে ডিভোর্স দিয়ে শ্রীদেবী বিয়ে করেন বনি। এরপর দুই সন্তানের সঙ্গে কোনও যোগাযোগ ছিল না তাঁর। ইশকজাদে মুক্তির মাস কয়েক আগে মৃত্যু হয় মোনা সিংয়ের। ছেলের অভিনয় সফরের শুরুটাও দেখে যেতে পারেননি মোনা।

এখন অবশ্য বাবার সঙ্গে অর্জুনের সম্পর্ক অনেকটা স্বাভাবিক। শ্রীদেবীর মৃত্যুর পর সত্‍ বোন জাহ্নবী ও খুশিকেও বড় দাদার মতোই আগলে রেখেছেন অর্জুন।

বন্ধ করুন