বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘বিনা খরচে সিনেমা বানাব’, অর্পিতার সাথে আয়ুষকে দেখে একথাই নাকি ভেবেছিলেন সলমন!
প্রেমিককে আয়ুষকে সটান বাড়িতে নিয়ে এসে বিয়ে করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন অর্পিতা। 
প্রেমিককে আয়ুষকে সটান বাড়িতে নিয়ে এসে বিয়ে করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছিলেন অর্পিতা। 

‘বিনা খরচে সিনেমা বানাব’, অর্পিতার সাথে আয়ুষকে দেখে একথাই নাকি ভেবেছিলেন সলমন!

  • ২০১৪ সালে আয়ুষ আর অর্পিতা বিয়ে করেন। শুরু থেকেই সলমনের খুব ঘনিষ্ঠ আয়ুষ। 

দুই বোন অর্পিতা আর আলভিরাকে নজরছাড়া করেন না সলমন খান কখনও। সলমন ঘনিষ্ঠদের মতে, দুই বোনই সলমনের খুব কাছের। আর বোনদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য সবরকম কাজ করতে পারেন ভাইজান। আর ছোট বলে অর্পিতা আবার খুব আদুরে। তবে, আয়ুষকে বিয়ে করবেন এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর যখন তা পুরো পরিবারের সাথে সলমনকে জানিয়েছিলেন অর্পিতা, তখন বেশ মজার এক কাণ্ড হয়েছিল। যা এক সাক্ষাৎকারে নিজেই জানিয়েছেন। 

অর্পিতা যখন বিয়ের কথা ভাবছিলেন, তখন সলমনের ছোট ভাই সোহেল ভাবছিলেন তাঁর পরবর্তী ছবির কথা। আর কাকতালীয়ভাবে দুই ক্ষেত্রেই এক ব্যক্তিকে মাথায় রেখেই এই চিন্তাভাবনা চলছিল, তিনি হলেন আয়ুষ শর্মা! যা জানতে পেরে মজা পেয়েছিলেন সলমন। 

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সলমন জানিয়েছেন, ‘আমার জন্য একটা ছবি ভাবা হয়েছিল-- মাই পঞ্জাবি নিকহা। তবে, আমি তা করব না ঠিক করি বয়সের জন্য। তখন সোহেল আমায় জানায় জিমে সে একটা ছেলেকে দেখেছে, যে এই সিনেমার জন্য আদর্শ। আমিও তখন সোহেলকে বলি সব দেখেশুনে কনট্র্যাক্ট সাইন করিয়ে নিতে। কিন্তু তার ক'দিন পরে এসে ও আমাকে জানায় ছেলেটা জিমে আসা বন্ধ করে দিয়েছে হঠাৎই!’

আয়ুষ-অর্পিতার সাথে সলমন ও সোহেল।
আয়ুষ-অর্পিতার সাথে সলমন ও সোহেল।

দুই বোন অর্পিতা আর আলভিরাকে নজরছাড়া করেন না সলমন খান কখনও। সলমন ঘনিষ্ঠদের মতে, দুই বোনই সলমনের খুব কাছের। আর বোনদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য সবরকম কাজ করতে পারেন ভাইজান। আর ছোট বলে অর্পিতা আবার খুব আদুরে। তবে, আয়ুষকে বিয়ে করবেন এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর যখন তা পুরো পরিবারের সাথে সলমনকে জানিয়েছিলেন অর্পিতা, তখন বেশ মজার এক কাণ্ড হয়েছিল। যা এক সাক্ষাৎকারে নিজেই জানিয়েছেন। 

অর্পিতা যখন বিয়ের কথা ভাবছিলেন, তখন সলমনের ছোট ভাই সোহেল ভাবছিলেন তাঁর পরবর্তী ছবির কথা। আর কাকতালীয়ভাবে দুই ক্ষেত্রেই এক ব্যক্তিকে মাথায় রেখেই এই চিন্তাভাবনা চলছিল, তিনি হলেন আয়ুষ শর্মা! যা জানতে পেরে মজা পেয়েছিলেন সলমন। 

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে সলমন জানিয়েছেন, ‘আমার জন্য একটা ছবি ভাবা হয়েছিল-- মাই পঞ্জাবি নিকহা। তবে, আমি তা করব না ঠিক করি বয়সের জন্য। তখন সোহেল আমায় জানায় জিমে সে একটা ছেলেকে দেখেছে, যে এই সিনেমার জন্য আদর্শ। আমিও তখন সোহেলকে বলি সব দেখেশুনে কনট্র্যাক্ট সাইন করিয়ে নিতে। কিন্তু তার ক'দিন পরে এসে ও আমাকে জানায় ছেলেটা জিমে আসা বন্ধ করে দিয়েছে হঠাৎই!’|#+|

‘এরপর একদিন অর্পিতা আমায় ফোন করে। বলে দেখা করতে। ও আমাদের একটা ফ্লোর ওপরেই থাকত। তাই ফোন পেয়েই সবাই চলে যাই। আর দেখি ওই ছেলেটার সাথেই অর্পিতা দাঁড়িয়ে আছে, আর পাশে আমার মা-বাবা। আমরা ওকে এর আগেও আশেপাশে দেখেছি। অর্পিতা তখন জানায়, ‘বাবা ওকে আমি বিয়ে করতে চাই’। আমি অর্পিতাকে জিজ্ঞেস করি, ‘এটা জিমার ছেলেটাই’? ও বলে ‘হ্যা’! সোহেলকে জিজ্ঞেস করি, ‘একে নিয়েই সিনেমা বানাবে ভেবেছিলে?’ ও বলে হ্যাঁ। আর যাতে আমার উত্তর ছিল, বাহ! আমাকে আর একটাও টাকা খরচ করতে হবে না।’

২০১৪ সালে বিয়ে করেন আয়ুশ আর অর্পিতা। তাঁদের দুই সন্তানও রয়েছে। ইতিমধ্যে মুক্তি পেয়েছে আয়ুষের দ্বিতীয় বলিউড ছবি ‘অন্তিম: দ্য ফাইনাল ট্রুথ’, যেখানে তিনি প্রথমবার স্ক্রিন শেয়ার করেছেন সলমন খানের সাথে।

বন্ধ করুন