বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Arunita Kanjilal: বাড়ি ফিরেই দাদার সঙ্গে খুনসুটিতে ব্যস্ত অরুণিতা, বোনের ডাকনাম ফাঁস করলেন অনীশ!
দাদার সঙ্গে দুষ্টুমি 
দাদার সঙ্গে দুষ্টুমি 

Arunita Kanjilal: বাড়ি ফিরেই দাদার সঙ্গে খুনসুটিতে ব্যস্ত অরুণিতা, বোনের ডাকনাম ফাঁস করলেন অনীশ!

  • রাখি উপলক্ষ্যে শনিবারই বনগাঁয় ফিরেছেন অরুণিতা। দীর্ঘ ১০ মাস পর বাড়ি ফিরলেন ইন্ডিয়ান আইডল ১২-র রানার্স আপ। 

ইন্ডিয়ান আইডল ১২-র সুবাদে এখন গোটা দেশ চিনে গিয়েছে বনগাঁর এই মেয়েকে। ফাইনালে ট্রফি হাতছাড়া হলেও লক্ষ লক্ষ মানুষের ভালোবাসা আর আবর্শীবাদের জোয়ারে ভাসছেন অরুণিতা কাঞ্জিলাল। দীর্ঘ ১০ মাস ধরে চলা ইন্ডিয়ান আইডল প্রতিযোগিতা গত সপ্তাহেই শেষ হয়েছে। এরপর মুম্বইতে টানা বেশ কিছু প্রমোশন্যাল ইভেন্টের কাজ সামলে শনিবার বনগাঁর মাটিতে পা রেখেছেন অরুণিতা। 

অরুণিতার ঘরে ফেরা নিয়ে সাজোসাজো রব বনগাঁর কাঞ্জিলাল পরিবারে। পরিবারের সঙ্গে রাখির উত্সব পালন করতেই শনিবার তড়িঘড়ি বনগাঁয় ছুটে এসেছেন অরুণিতা। রবিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় বোনের সঙ্গে একটি আদুরে ছবি পোস্ট করেছেন অরুণিতার দাদা অনীশ। শুধু ছবি পোস্ট করেই ক্ষান্ত থাকেননি তিনি, বরং অরুণিতার ডাকনামটাও ফাঁস করে দিয়েছেন সকলের সামনে! 

দাদার ঘাড়ে চেপে দাপাদাপিতে ব্যস্ত অরুণিতা, তেমনই এক মিষ্টি মুহূর্ত ইনস্টাগ্রামের দেওয়ালে পোস্ট করে অনীশ লিখেছেন, ‘পুকু’ সঙ্গে ভালোবাসার চিহ্ন এঁকেছেন। অরুণিতা এই ছবির কমেন্ট বক্সে লিখেছেন, ‘পুকি টুকি টুকি’। 

অরুণিতার দাদার ইনস্টাগ্রাম পোস্ট
অরুণিতার দাদার ইনস্টাগ্রাম পোস্ট

অরুণিতার ফ্যানেরা তো বেজায় খুশি দাদা-বোনের এই ছবি দেখে। কমেন্ট বক্সে একজন লিখেছেন, ‘ও আচ্ছা অরুর বাড়ির নাম তবে পুকু… খুব মিষ্টি নাম, একদম আমাদের অরুর মতোই’। 

ঘুমানোর ফুরসতটুকু নেই, তবে ক্লান্তির ছাপ নেই অরুণিতার চোখেমুখে। বরং, এক অদ্ভূত প্রশান্তি ঘরে ফেরার। গায়িকা এক সাক্ষাত্কারে জানিয়েছেন, ‘ঘুমোনোর সময় অনেক পাবো, ১০ মাস পরিবারের থেকে দূরে ছিলাম, এখন সব সময়টুকু ওদের সঙ্গে কাটাতে চাই। আজকের দিনটা দাদাদের সঙ্গে সেলিব্রেট করতে চাই। বাড়ির মতো অনুভূতি অন্য কিছু হতে পারে না। কাল থেকে সব লোকজন আসছেন, আর্শীবাদ করছেন। খুব ভালো লাগছে’।

এদিন দাদা, অণীশের হাতে রাখি বেঁধেছেন অরুণিতা, দাদাও বোনকে রাখি পরিয়েছেন। উপহার হিসাবে কী পেলেন? হাসি মুখে অরুণিতা বললেন, ‘দাদা আজ চকোলেট দিয়েছে, বলল বাকি গিফট আসছে সব। তবে এইসব উপহার একদম জরুরি নয় আমার কাছে। দাদা পাশে থাকাটাই জরুরি’।

বন্ধ করুন