বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Aryan Khan: ‘আরিয়ান বলিউডের নামী অভিনেতার ছেলে’, শাহরুখ-পুত্রের জামিনে ‘আজব’ যুক্তি আদালতে!
আরিয়ানের জামিন পেতে মরিয়া শাহরুখ। 
আরিয়ানের জামিন পেতে মরিয়া শাহরুখ। 

Aryan Khan: ‘আরিয়ান বলিউডের নামী অভিনেতার ছেলে’, শাহরুখ-পুত্রের জামিনে ‘আজব’ যুক্তি আদালতে!

  • বুধবার আদালতেও হাজির থাকার কথা আছে আরিয়ানের। ওই দিন আরিয়ানের জামিনের জন্য চেষ্টা চালাচ্ছেন সতীশ মানশিন্ডে। 

বারবার শাহরুখ ও গৌরী খানের বড় ছেলে আরিয়ান খানের জামিনের আবেদন খারিজ করে দিচ্ছে আদালত। যা দেখে স্বভাবতই মন ভেঙেছে খান পরিবারের। সাথে মন খারাপ শাহরুখ-ভক্তদেরও। সোমবার সোমবার মুম্বাইয়ের বিশেষ নারকোটিক ড্রাগস অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্সস (NDPS) আদালতে শাহরুখ-পুত্রের জামিন আবেদনের শুনানি করেন সতীশ মানশিন্ডে। যার জবাব বুধবারের মধ্যে দিতে বলা হয়েছে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (NCB) কে। বুধবার আদালতেও হাজির থাকার কথা আছে আরিয়ানের। 

২ অক্টোবর মুম্বই থেকে গোয়া-গামী এক প্রমোদতরীতে গ্রেফতার করা হয় আরিয়ানকে। সেই প্রমোদতরী থেকে উদ্ধার হয়েছিল মাদক। তারপর ৩ অক্টোবর এনসিবি গ্রেফতার করে আরিয়ানকে। আপাতত আর্থার রোড জেলে আছে আরিয়ান। 

আরিয়ান খানের জামিনের জন্য ১০টি দলিল আদালতে খাড়া করেছেন মানশিন্ডে:

১. জামিনের আবেদনে প্রথমেই বলা হয়েছে আরিয়ান ‘নির্দোষ’। তিনি কোনও ‘অপরাধ’ করেননি। আবেদনে বলা হয়েছে, ‘আরিয়ান খানকে বর্তমান মামলায় মিথ্যাভাবে জড়িত করা হয়েছে।’

২.  আবেদনে বলা হয়েছে NCB আরিয়ানের কাছ থেকে কোনও মাদক পায়নি। 

৩. জামিনের আবেদনে বলা হয়েছে আরিয়ান খান যে কোনওভাবে মাদক তৈরি, মাদক পাচার, বিক্রি, ক্রয়, পরিবহনের সঙ্গে যুক্ত সে তথ্যও এনসিবি-র রেকর্ডে নেই। এমনকী, তিনি কখনও কোনও মাদক চোরাচালানকারীকে আশ্রয় দেননি। 

৪. আরিয়ান খানের সঙ্গে মাদক বিক্রয়কারীদের চ্যাটের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু এই মামলার সঙ্গে চ্যাটের কোনও সম্পর্ক নেই। 

৫. দলিলে আরও বলা হয়েছে যেহেতু আরিয়ানের কাছ থেকে কোনও মাদক উদ্ধার হয়নি, তাই NDPS আইন, ১৯৮৫ এর অনুসারে ধারা ৩৭ (১) প্রযোজ্য নয়। অরিয়ান এমন কোনও গুরুতর অপরাধ করেননি যা অ-জামিন যোগ্য। 

৬. জামিনের আবেদনে বলা হয়েছে এনসিবি আরিয়ানের বিরুদ্ধে যে অপরাধের অভিযোগ এনেছে তাতে সর্বোচ্চ ১ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে বা আর্থিক জরিমানা বা দুটোই। 

৭. জামিনের আবেদনে আরও বলা হয়েছে, বর্তমান মামলায় ধৃতদের কাছ থেকে আরিয়ানের বিরুদ্ধে কোনও প্রমাণ বা অভিযোগ হাতে আসেনি, নাকি ভবিষ্যতে কোনও প্রমাণ হাতে আসার আর সম্ভাবনা আছে। 

৮. জামিনের আবেদনে আরও বলা হয়েছে আরিয়ানের ‘বয়স অল্প’। তাঁর বিরুদ্ধে কোনওরূপ অপরাধের অভিযোগ এর আগে কখনও হয়নি। কোনও মাদক সেবনের ইতিহাসও তাঁর নেই। 

৯. আরিয়ান খানের দেশে ‘মজবুত শিকড়’ রয়েছে। তিনি পুরো পরিবারের সঙ্গে মুম্বইয়ের বাসিন্দা। তাই পালানোর কোনও সম্ভাবনা আরিয়ানের নেই। 

১০. আরিয়ান খানের জামিন আবেদনে আরও বলা হয়েছে যে তিনি ‘বলিউডের একজন বিশিষ্ট চলচ্চিত্র অভিনেতার ছেলে’, যিনি যুক্তরাষ্ট্রের সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সিনেমাটিক আর্টে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছেন। আবেদনে বলা হয়, ‘তিনি ভারতের একজন দায়িত্বশীল নাগরিক এবং আজ পর্যন্ত তার খ্যাতি এবং সুনামের রেকর্ড রয়েছে।’

বন্ধ করুন