বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Bengali Serial Update: লাগাতার কম TRP জের, ‘খড়কুটো’র জায়গা নিচ্ছে 'আলতা ফড়িং', ক্ষুব্ধ সৌগুন ভক্তরা
জায়গা হারাল খড়কুটো
জায়গা হারাল খড়কুটো

Bengali Serial Update: লাগাতার কম TRP জের, ‘খড়কুটো’র জায়গা নিচ্ছে 'আলতা ফড়িং', ক্ষুব্ধ সৌগুন ভক্তরা

  • ‘যমুনা ঢাকি’কে চ্যালেঞ্জ জানাতে ব্যর্থ সৌজন্য-গুনগুন জুটি। বড় সিদ্ধান্ত নিল চ্যানেল কর্তৃপক্ষ। 

যেমনটা প্রত্যাশিত ছিল ঠিক তেমনটাই ঘটল নতুন বছরের প্রথম দিন! টিআরপি তালিকায় লাগাতার কম নম্বর আনবার জেরে স্লট হারালো স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘খড়কুটো’। মাস কয়েক আগেও সন্ধ্যা ৭.৩০টা বাজলেই সিরিয়ালপ্রেমী বাঙালি দর্শক জলসার পর্দায় চোখ রাখত সৌজন্য-গুনগুনের রসায়ন হাঁ করে গিলতে, কিংবা পটকা-পুটুপিসি-জেঠাইদের অসাধারণ অভিনয় দেখে মুগ্ধ হতে কিন্তু চটজলদি বদলে গিয়েছে এই অভ্যেস। গত কয়েক মাস ধরে টিআরপি তালিকায় সেরা দশে জায়গা ধরে রাখতে পারেনি এক সময়ের স্লট লিডার ‘খড়কুটো’। সৌগুন জুটির পুরোনো ম্যাজিক যেন চোখে পড়ছে না, অনেকেই বলতে শুরু করেছিলেন খেই হারাচ্ছে 'খড়কুটো'র গল্প। সৌজন্য-গুনগুনের হ্যাপি ম্যারেড লাইফে তিন্নির প্রবেশটা দর্শক এক্কেবারে ভালো চোখে নেয়নি, আর দর্শকদের সেই রিজেকশনের জেরেই স্লট হারালো ‘খড়কুটো’।

আগামী ১০ই জানুয়ারি থেকে স্টার জলসার পর্দায় সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় দেখা যাবে ‘আলতা ফড়িং’। ডিসেম্বরেই সামনে এসেছিল এই সিরিয়ালের প্রোমো। জীবন সংগ্রামের এক অন্যরকম গল্প নিয়ে আসছে প্রযোজক সুশান্ত দাসের প্রযোজনা সংস্থার এই নতুন ধারাবাহিক। সিরিয়ালে লিড রোলে রয়েছেন অর্ণব বন্দ্যোপাধ্যায়, যাঁকে শেষ 'শ্রীময়ী' ধারাবাহিকে ছোটুর (দিঠির স্বামী) ভূমিকায় দেখেছে দর্শক। অন্যদিকে নায়িকার ভূমিকায় রয়েছেন খেয়ালি মণ্ডল। কেন্দ্রীয় চরিত্রে এটা খেয়ালির প্রথম ব্রেক হলেও এর আগে কালার্স বাংলার 'মৌ এর বাড়ি' ধারাবাহিকে দর্শক দেখেছে তাঁকে। পাশাপাশি নাচে বিশেষ পটু এই কন্যে। কালার্স ডান্স রিয়ালিটি শো ‘বিন্দাস ডান্স’ সিজন ১-এর প্রতিযোগী খেয়ালি।

কিন্তু এবার ‘খড়কুটো’র কী হবে! এই ধারাবাহিক কি শেষ হচ্ছে? না, এখনই ‘খড়কুটো’ শেষ করছে না চ্যানেল কর্তৃপক্ষ। যেমনটা ‘মোহর’-এর সঙ্গে হয়েছিল এবারও ঠিক তেমনটাই ঘটল, দুপুরের স্লটে নামিয়ে দেওয়া হল ‘খড়কুটো’কে। আগামী ১০ জানুয়ারি থেকে দুপুর ২.৩০টে দেখা যাবে এই সিরিয়াল। 

এই পরিবর্তনে এক্কেবারে খুশি নয় সৌগুন ভক্তরা, চ্যানেল কর্তৃপক্ষের উপর রেগে কাঁই তাঁরা। কেউ লিখেছেন, ‘এর চেয়ে তো শেষ করাই ভালো ছিলো’, কারুর মতে ‘এটার কোন মানে হয়? এত বড় বড় অভিনেতা গুলাকে অপমান ছাড়া এটাকে আর কি বলে? এটা কোন সময় হলো, এর থেকে বন্ধ করুন গল্পও নষ্ট হয়ে গেছে! কিন্তু এই দুপুরে কেন পাঠালেন, ফালতু চ্যানেল একটা!’ তবে তৃণা-কৌশিকের অন্ধ ভক্তরা কিন্তু বিশেষ চিন্তিত নন, তাঁদের কথায়- ‘নতুন সময় নতুন রূপে খড়কুটো, সময় যাই হোক সেটা ম্যাটার করে না,খড়কুটো যে থাকছে আমাদের কাছে এটাই অনেক, নতুন সময়ও জয় করবে আমাদের খড়কুটো’। 

সব মিলিয়ে নতুন বছরের শুরুতেই স্টার জলসার টাইম স্লটে বড় পরিবর্তন নিয়ে হাজির ‘আলতা ফড়িং’। কেউ কেউ অভিযোগ তুলছেন ৭+ টিআরপি ধরে রাখলেও কেন কোপ পড়ল খড়কুটোর উপর, আসলে প্রতিদ্বন্দ্বী চ্যানেলের মেগা ‘যমুনা ঢাকি’র সঙ্গে লড়াইয়ে এঁটে উঠতে না পারবার জেরেই সিদ্ধান্ত। গত কয়েক মাস টিআরপি তালিকায় লাগাতার দ্বিতীয় বা তৃতীয় স্থানে থাকছে জি বাংলার এই মেগা। সেই জায়গায় প্রথম দশে অস্তিত্ব নেই খড়কুটোর। সৌগুন ভক্তদের রোষের মুখে যে পড়বে নতুন জুটি তা বলাই বাহুল্য, এখন দেখবার কেমনভাবে দর্শকদের মনে জায়গা করে নিতে পারে অর্ণব-খেয়ালি। 

 

 

 

 

বন্ধ করুন