বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Pori Moni: শান্তি নেই পরীমনির! 'বাড়িতে মদ ও মাদকদ্রব্য রাখার' মামলায় বড় নির্দেশ আদালতের
পরীমনি (ছবি সৌজন্যে, ফেসবুক @pori.monii)
পরীমনি (ছবি সৌজন্যে, ফেসবুক @pori.monii)

Pori Moni: শান্তি নেই পরীমনির! 'বাড়িতে মদ ও মাদকদ্রব্য রাখার' মামলায় বড় নির্দেশ আদালতের

  • র‌্যাবের মুখপাত্র খন্দকার আল মইন বলেছিলেন, চিত্রনায়িকা পরীমনির ফ্ল্যাটে ‘মিনি বার' ছিল৷

পরীমনির বাড়িতে মদ ও মাদকদ্রব্য রাখার অভিযোগে বনানী থানার মামলায় চিত্রনায়িকার বিচার শুরুর আদেশ দিয়েছে আদালত৷

ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঢাকার ১০ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক নজরুল ইসলাম বুধবার এ মামলায় পরীমনি-সহ তিন অভিযুক্তের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর জন্য ১ ফেব্রুয়ারি দিন ঠিক করে দেন৷ পরীমনি এবং অপর দুই অভিযুক্ত আশরাফুল ইসলাম দিপু ও মো. কবীর হাওলাদার নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রার্থনা করেন৷

গত ৪ অগস্ট রাতে ঢাকার বনানীতে পরীমনির বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাঁকে গ্রেফতারের পরদিন তাঁর বিরুদ্ধে বনানী থানায় মাদক আইনে এই মামলা করা হয়৷ র‌্যাবের জব্দ তালিকায় পরীমনির বাড়ি থেকে ‘মদ এবং আইস ও এলএসডির মতো মাদকদ্রব্য' উদ্ধারের কথা বলা হয়৷

পরীমনিকে গ্রেফতারের পর র‌্যাব মুখপাত্র খন্দকার আল মইন বলেছিলেন, চিত্রনায়িকা পরীমনির ফ্ল্যাটে ‘মিনি বার' ছিল৷ তিনি নিয়মিত মদ পান করতেন এবং ‘ঘরোয়া পার্টি' আয়োজন করতেন৷ তাঁর কাছে মদ ব্যবহারের একটি লাইসেন্স পাওয়া গেলেও তার মেয়াদ শেষ হয়েছে ‘অনেক আগে'৷

পরীমনিকে গ্রেফতারের পর তিন দফা রিমান্ডে নেওয়া নিয়ে তুমুল আলোচনার মধ্যে হাইকোর্টও বিষয়টি নিয়ে প্রশ্ন তোলে৷ পরে গত ৩১ অগস্ট বিচারিক আদালত থেকে তাঁর জামিনের আদেশ হলে পরদিন গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে ছাড়া পান৷

তদন্ত শেষে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি গত ৪ অক্টোবর পরীমনি-সহ তিনজনকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র দেয় ৷ চিত্রনায়িকা পরীমনির সঙ্গে এক ডিবি কর্মকর্তার ‘১৮ ঘণ্টা সময় কাটানোর' খবর গণমাধ্যমে আসার পর এ মামলার তদন্তভার সিআইডির কাছে যায়৷

২০১৫ সালে ঢাকার চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে পরীমনি নামে নড়াইলের মেয়ে শামসুন্নাহার স্মৃতির৷ গ্রেফতার হওয়ার কয়েক মাস আগে ঢাকা বোট ক্লাবে যৌন নিপীড়িত হওয়ার অভিযোগ তুলে আলোচনায় আসেন পরীমনি৷ চিত্রনায়িকার করা মামলায় ব্যবসায়ী নাসিরউদ্দিন মাহমুদ-সহ তিনজনের বিরুদ্ধে পুলিশ ইতিমধ্যে অভিযোগপত্র দিয়েছে৷

(বিশেষ দ্রষ্টব্য : প্রতিবেদনটি ডয়চে ভেলে থেকে নেওয়া হয়েছে। সেই প্রতিবেদনই তুলে ধরা হয়েছে। হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার কোনও প্রতিনিধি এই প্রতিবেদন লেখেননি।)

বন্ধ করুন