বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > পরিচালক রবি কিনাগীর নাম করে ভুয়ো আইডি; অভিনেত্রীকে কুপ্রস্তাব, দায়ের হল অভিযোগ
পায়েল সরকার। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)
পায়েল সরকার। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)

পরিচালক রবি কিনাগীর নাম করে ভুয়ো আইডি; অভিনেত্রীকে কুপ্রস্তাব, দায়ের হল অভিযোগ

  • মিলবে বড়পর্দায় অভিনয়ের সুযোগ।বদলে রাত কাটাতে হবে। ছোটপর্দার অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে দেওয়া হলো কুপ্রস্তাব। প্রস্তাব এসেছে টলিপাড়ার বিখ্যাত পরিচালক রবি কিনাগীর নামের এক ফেসবুক প্রোফাইল থেকে। 

মিলবে বড়পর্দায় অভিনয়ের সুযোগ। অবশ্য তার বদলে করতে হবে 'কম্প্রোমাইজ'। বাংলা ধারাবাহিকের অন্যতম ব্যস্ত অভিনেত্রী পায়েল সরকারকে দেওয়া হলো কুপ্রস্তাব। 'টাপুর টুপুর', 'অন্দরমহল', 'প্রথমা কাদম্বিনী', 'বেনে বউ', 'তুমি রবে নীরবে' এর মতো বহু জনপ্রিয় ধারাবাহিকে দেখা গেছে পায়েলকে। অভিনেত্রীর অভিযোগ, সেই প্রস্তাব এসেছে টলিপাড়ার বিখ্যাত পরিচালক রবি কিনাগীর নামের এক ফেসবুক প্রোফাইল থেকে। দেরি না করে দ্রুত পুলিশের দ্বারস্থ হন অভিনেত্রী। ইতিমধ্যেই ব্যারাকপুরের সাইবার সেলে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার সকালের ঘটনা। অভিনেত্রীর তরফেই জানা গেল রবি কিনাগীর নাম থেকে একটি ফেসবুক প্রোফাইল থেকে তাঁর কাছে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট আসে। স্বাভাবিকভাবেই বড়পর্দা ও ছোটপর্দায় সমান জনপ্রিয় এই জনপ্রিয় পরিচালকের তরফে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পেয়ে আপ্লুত হন পায়েল। ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাকসেপ্ট করার ব্যাপারে দু’বার ভাবেননি।কথাবার্তাও শুরু হয় মেসেঞ্জারে। ' আমাকে বলা হয় ওনার পরের ছবিতে আমাকে নায়িকার চরিত্রে ভাবা হচ্ছে। বিস্তারিত জানতে চাইলে সরাসরি বলা হয় ওঁর সঙ্গে রাত কাটাতে হবে!' জানিয়েছেন পায়েল। 

সেই কথোপকথনের স্ক্রিনশট নেটমাধ্যমে পোস্ট করেছেন পায়েল সরকার। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)
সেই কথোপকথনের স্ক্রিনশট নেটমাধ্যমে পোস্ট করেছেন পায়েল সরকার। (ছবি সৌজন্যে - ফেসবুক)

বলাই বাহুল্য এমন প্রস্তাব পেয়ে অবাকই হয়েছিলেন তিনি। এরপর সন্দেহ হওয়াতে ওই প্রোফাইলে গিয়ে দেখা যায় রবি কিনাগীর কয়েকটি ছবি দিয়ে প্রোফাইল বানানো। পোস্টগুলিতে ২-৩টে লাইক। ভুল বানানও রয়েছে। অভিনেত্রীর বুঝতে দেরি হয় না আইডিটি ভুয়ো।

এরপরই দেরি না করে ওই কথোপকথনের স্ক্রিনশট ফেসবুকে পোস্ট করে প্রতিবাদে সোচ্চার হন পায়েল। কলকাতা পুলিসের কাছেও দ্বারস্থ হন তিনি। সেখান থেকে এই কেসটা ব্যারাকপুর পুলিসের কাছে ট্রান্সফার করা হয়।বিষয়টি খতিয়ে দেখছে ব্যারাকপুর পুলিসের সাইবার ক্রাইম ডিপার্টমেন্ট। ইতিমধ্যেই প্রোফাইলটা ডি-অ্যাক্টিভেট করে দেওয়া হয়েছে। তবে অভিনেত্রীর তরফে জানা গেছে প্রোফালটি নাকি ট্রেস করতে পেরেছে পুলিশ। চলছে তদন্ত।

বন্ধ করুন