বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Bengali Serial Piracy: টিভিতে আসার আগেই ফেসবুকে সিরিয়াল দেখেন? চুরির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ চায় টলিপাড়া
সিরিয়াল পাইরেসি বন্ধ হোক চাইছে টলিপাড়া। 

Bengali Serial Piracy: টিভিতে আসার আগেই ফেসবুকে সিরিয়াল দেখেন? চুরির বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ চায় টলিপাড়া

সিনেমার পর এবার সিরিয়ালের পাইরেসিও শুরু হয়েছে। আর তাতেই মজেছে দর্শক। ফলে ব্যবসার ক্ষতি হচ্ছে প্রযোজকদের। 

মুঠোফোন এসে যেন অনেক কাজই সহজ করে দিয়েছে। যখন ইচ্ছে লাগিয়ে দিলেন ভিডিয়ো কল। সেই কোন সুদূরে বসে থাকা সঙ্গীকে দেখে নিলেন চট করে। অজানা জিনিস জানতে শুধু ইন্টারনেটের সার্চ বটনে গিয়ে তা লিখে ফেলার অপেক্ষা। সিনেমার টিকিট কাটা হোক বা প্লেনের টিকিট, এখন সব কাজটাই করে দেয় আপনার মোবাইল ফোন। তবে, এর ফলে পাইরেসি অর্থাৎ চুরির সমস্যাও বেড়েছে। আগে যেমন সিনেমার অভিনেতা-প্রযোজকরা শুধু পাইরেসির জালে জর্জরিত ছিলেন। এবার সেই ছাপ পড়েছে ছোট পরদাতেও। 

ছোট পরদা অর্থাৎ টিভি বললেই আমরা বুঝি সিরিয়াল। পরিবারের সবাই বিকেল থেকে বসে যাবে টিভির সামনে। একটার পর একটা চরিত্র, গল্প দেখতে দেখতে কখন যে রাত কাবার হওয়ার জোগার হবে তা বোঝা যাচ্ছে না। তবে এখন কিন্তু তেমন হচ্ছে না। এর কারণ, এপিসোড টিভিতে আসার আগেই তা চলে আসছে মোবাইলে। আর সেখান থেকেই দর্শক যেহেতু তা দেখে ফেলছেন, তাই টিভির সামনে না বসলেও চআরও পড়ুন: ৪ সন্তান কীভাবে সামলান সইফ? সারার সঙ্গে একা দেখা করলে বাড়িতে বলেন? করিনা বললে

ওটিটি-র সাবস্ক্রিপশন নেওয়া থাকলে আপনি বিকেলে যে এপিসোড দেখানো হবে, সকালে বা আগের দিন রাতেই তা দেখে নিতে পারবেন। তবে ফেসবুকে সম্প্রতি কিছু পেজ চালানো হচ্ছে। যেখানে ওটিটি-তে নতুন এপিসোড আপলোড হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই ডাউনলোড করে দিয়ে দেওয়া হচ্ছে ফেসবুকে। ফলে ওটিটি-র সাবস্ক্রিপশন নিচ্ছেন না অনেকেই। ফ্রি-তে যদি এপিসোড দেখা যায় তবে খরচ করে ওটিটি নেওয়ার বা টিভি খোলার দরকার কী! ফলত লোকসান হচ্ছে প্রযোজকদের। বহু কষ্ট করে অর্থ ব্যয় করে করা এপিসোড দর্শক ফ্রি-তেই দেখে নিচ্ছেন। আরও পড়ুন: লাল সিং চাড্ডা ‘বয়কট’ করার ট্রেন্ড ছড়িয়েছেন আমির খান নিজেই? বিস্ফোরক

এই নিয়ে সম্প্রতি মুখ খুললেন টলিউডের লেখিকা-প্রযোজক লীনা গঙ্গোপাধ্যায়। এই ঘটনার নিন্দা করে তিনি দাবি তুললেন যেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়। যত জলদি সম্ভব সেটা করা হয়। নয়তো যে মানুষগুলো রাতদিন কষ্ট করছে তাঁরা সঠিক মূল্যায়ণ পাবে না। ক্ষতি হবে ব্যবসার। 

এই একই মত টলিপাড়ার বহু কলাকুশলীদেরও। তাঁরাও দাবি করছেন যেন এই চুরি বন্ধ করতে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয় খুব জলদি।

  কঙ্গনান…লছে।

বন্ধ করুন