বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'যাচাই করে শেয়ার করুন', কোভিড হেল্পলাইন নম্বর শেয়ার করা নিয়ে সকলকে সাবধান করলেন মধুরিমা
মধুরিমা বসাক (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
মধুরিমা বসাক (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

'যাচাই করে শেয়ার করুন', কোভিড হেল্পলাইন নম্বর শেয়ার করা নিয়ে সকলকে সাবধান করলেন মধুরিমা

  • ছোট পরদায় ‘শ্রীময়ী’ কিংবা ‘মোহর’ ধারাবাহিকে তাঁর নেতিবাচক চরিত্রের পরিচয় মিললেও বাস্তবে মধুরিমা বসাক কিন্তু খুব হেল্পফুল!

পরিস্থিতি ক্রমশই ভয়ঙ্কর থেকে আরও ভয়ঙ্কর হচ্ছে ৷ দেশে বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৷ বাড়ছে মৃত্যুও ৷ করোনার দ্বিতীয় ঢেউইয়ে বিপর্যস্ত গোটা ভারত ৷ সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তারকা থেকে রাজনীতিবিদরা। বেশ কিছু হেল্পলাইন নম্বর শেয়ার করা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। রয়েছে ব্ল্যাড ব্যাঙ্ক, প্লাজমা ব্যাঙ্ক বা অক্সিজেন পাওয়ার ঠিকানা। তবে, এসবের মাঝে বেশ কিছু ভুয়ো নম্বরও শেয়ার হচ্ছে। যেখানে ফোন করে আশাহত হতে পচ্ছে সাহায্যপ্রার্থীদের। 

সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ব্যাপারেই একটি ভিডিয়ো শেয়ার করলেন মোহরের শ্রেষ্ঠা ওরফে মধুরিমা বসাক। ছোট পরদায় ‘শ্রীময়ী’ কিংবা ‘মোহর’ ধারাবাহিকে তাঁর নেতিবাচক চরিত্রের পরিচয় মিললেও বাস্তবে মধুরিমা কিন্তু খুব হেল্পফুল। ইনস্টায় শেয়ার করা ভিডিয়ো বার্তায় মধুরিমা বলেছেন,  ‘অনেকে মনে করছেন আমি শুধু ইনফেরমেশন পাস করছি বা এর-ওর পোস্ট ফেসবুকে শেয়ার করছি। কিন্তু তা নয়! আমি কিন্তু কাজ করছি। সকাল ১০টায় কল ছিল। রাত ১১টা পর্যন্ত কাজ চলবে। এর মাঝে যে ব্রেক পাচ্ছি, তখন ফোন করে নম্বর ভেরিফাই করার চেষ্টা করছি। আপনাদের বুঝতে হবে, প্রত্যেকটা মানুষের ব্যক্তিগত জীবনে কিছু না কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। আমি ব্যক্তিগত ভাবে ভেরিফায়েড ইনফরমেশন শেয়ার করছি… সকলের কাছে অনুরোধ আপনারাও ভেরিফায়েড নম্বর শেয়ার করুন।’

সোশ্যাল মিডিয়ায় চলা সমালোচনার প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘আমরা যদি বেঁচে থাকি, সমালোচনা করার জন্য পরে অনেক সময় পাব বিশ্বাস করুন। পাশে থাকুন।’ প্রয়োজনে তাঁকে সরাসরি ম্যাসেজ করার কথাও জানিয়েছেন এই অভিনেত্রী। 

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের রিপোর্ট অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ভারতে কোভিডে আক্রান্ত ৩ লাখ ৭৯ হাজার ২৫৭ জন ৷ মৃত্যু হয়েছে ৩৬৪৫ জনের ৷ পাশাপাশি সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন ২ লাখ ৬৯ হাজার ৫০৭ জন ৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় চোখ রাখলেই দেখা যাচ্ছে প্লাজমা, রক্ত, অক্সিজেনের জন্য হাহাকার। হাসপাতালে বেড না পেয়ে পাগলের মতো অবস্থা সাধারণ মানুষের।

বন্ধ করুন