বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Sovan-Baisakhi: ‘মম চিত্তে হাতি নাচে’, শোভন-বৈশাখীকে কটাক্ষ করে ছড়া ভাস্বরের! হল তুমুল চর্চা
শোভান-বৈশাখীকে কটাক্ষ করেলেন অভিনেতা ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়। 
শোভান-বৈশাখীকে কটাক্ষ করেলেন অভিনেতা ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়। 

Sovan-Baisakhi: ‘মম চিত্তে হাতি নাচে’, শোভন-বৈশাখীকে কটাক্ষ করে ছড়া ভাস্বরের! হল তুমুল চর্চা

  • সেই কবিতায় মিডিয়াকেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তিনি।

এবারের পুজোর সবথেকে চর্চিত জুটি শোভন-বৈশাখী। অর্থাৎ শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। পুজোর ফোটোশ্যুট থেকে পুজো প্ল্যান, এবার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমের তরফে বারবার সামনে আনা হয়েছে এঁদেরকে। আর সেইসব ভিডিওতে কখনও তাঁরা একে-অপরের ব্যাপারে গোপন তথ্য ফাঁস করেছেন, কখনও নেচেছেন, তো কখনও ঘোড়াার গাড়িতে চড়ে কলকাতার রাস্তায় ঘুরেছেন। 

আর তা নিয়ে কটাক্ষ করার সুযোগ ছাড়েনি নেট-নাগরিকরা। ‘বুড়ো বয়সে ভীমরতি ধরেছে’ থেকে শুরু করে ‘দশমীর পর এদেরও ভাসান দেওয়া হোক’র মতো নানা কথা শোনা গিয়েছে। আর কিছুটা এই পথেই হাঁটতে দেখা গেল অভিনেতা ভাস্বর চট্টোপাধ্যায়কে। কটাক্ষ করে গোটা একটা ছড়াই লিখে ফেললেন। 

সেই কবিতায় মিডিয়াকেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি তিনি। ‘Digi media,news channel দেয় coverage/ বাড়ে trp কিন্তু ব্যাপারটা below average’-র মতো লাইন ব্যবহার করেছেন লেখায়। দুই বাংলার মানুষ যে শোভন-বৈশাখীকে দেখে মজা নিচ্ছে সেকথাও লিখেছেন নিজের কবিতায়-- ‘গোটা বংগ দেখে রংগ দুই অংগে/ করে রই করে রই করে রই।’

যদিও বিতর্ক থেকে কম যান না ভাস্বরও। তাঁকে নিয়ে ট্রোলিং চলে প্রায়শই। ইদে রোজা রাখার ছবি নেটমাধ্যমে শেয়ার করে সকলের চোখ রাঙানির শিকার হয়েছিলেন এই অভিনেতা। ব্রাহ্মণ সন্তান হয়ে তিনি কীভাবে এমনটা করলেন তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছিলেন কেউ কেউ। ভোটের পর রুদ্রনীলকে বিধেঁছিলেন সোজাসুজি। আর তাই স্পষ্টবক্তা হিসেবেই নেটপাড়ার একটা অংশের মন কেড়েছেন। 

যেমন এইবার তাঁর লেখা ছড়াও যথার্থ বলে মনে করেছেন অনেকে। ‘দাদা অসাধারণ। কতই রঙ্গ দেখি দুনিয়ায়’, ‘দারুণ দারুণ 👏👏👏😄😄😄’, ‘জব্বর লিখেছে তোমার কলম! এক্কেবারে খাঁটি সত্যি কথা লিখেছো! আর সহ্য  হচ্ছেনা! মনে হচ্ছে আমার হাতে যদি কোনো ক্ষমতা থাকতো, তাহলে এসব ন্যাকামি আর নোংরামো বন্ধ করে দিতাম, সমাজকে কলুষিত করার এ এক অভিনব পন্থা বের করেছে এরা....’-র মতো নানা কমেন্টও পড়েছে।

বন্ধ করুন