বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > রঞ্জনা'-ই হচ্ছেন 'বেলা বোস'? ছবিকে কেন্দ্র করে দ্বন্দ্ব চরমে টিমের অন্দরে!
পার্নোকে কেন্দ্র করে নাকি চরম বিবাদে জড়িয়েছেন পরিচালক-প্রযোজক। ( ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)

রঞ্জনা'-ই হচ্ছেন 'বেলা বোস'? ছবিকে কেন্দ্র করে দ্বন্দ্ব চরমে টিমের অন্দরে!

'বেলা বোস' কে হবেন তাই নিয়ে নাকি ইতিমধ্যেই জোর বিবাদ পরিচালক অঞ্জন দত্ত ও প্রযোজক রানা সরকারের মধ্যে। দু'জনের মধ্যেই নাকি চলাচলি হয়েছে নরম গরম কথা। বিবাদে উঠে এসেছে পার্নো মিত্রের নামও।

২০১১ সালে গিটার সরিয়ে 'রঞ্জনা'-কে বড়পর্দায় হাজির করেছিলেন পরিচালক অঞ্জন দত্ত। এরপর ফের একবার নিজের আরও একটি হিট গানকে ভিত করে ছবি তৈরি করতে চলেছেন অঞ্জন। 'বেলা বোস'।অঞ্জন দত্তের বেলা বোস। ২৪৪-১১-৩৯ নম্বরের ফোনের ওপারে বসা থাকা সেই বেলা বোসকে এবার বড়পর্দায় দর্শকদের সামনে আনতে চলেছেন অঞ্জন দত্ত স্বয়ং। আর বড়পর্দায় বেলা বোসকে আনার পিছনে যাঁর ইচ্ছে এবং সঙ্গত পরতে পরতে লেগে রয়েছে, তিনি এ ছবির প্রযোজক রানা সরকার। বৃহস্পতিবার রাতেই হিন্দুস্তান টাইমস আপনাদের জানিয়েছিল এই খবর। এবার জানা গেল 'বেলা বোস' হিসেবে পার্নো মিত্রকে প্রযোজকের প্রাথমিক পছন্দ থাকলেও সরাসরি সেই 'অপশন' নাকি পত্রপাঠ উড়িয়ে দিয়েছেন অঞ্জন দত্ত। অথচ ১০ বছর আগে বড়পর্দাতে 'রঞ্জনা আমি আর আসব না' পার্নো মিত্রকে তিনিই দর্শকদের সামনে হাজির করিয়েছিলেন। কী এমন হলো যার জন্য 'রঞ্জনা'-কে আর 'বেলা বোস' বানাতে চাইছেন না অঞ্জন?

ইন্ডাস্ট্রির অন্দরের খবর, চলতি বছরের প্রথম দিকেও অঞ্জন দত্তের সঙ্গে রসায়ন জমাটি না হলেও বেশ 'টক মিষ্টি'-ই ছিল পার্নো মিত্র। এরপর এ রাজ্যের বিধানসভার নির্বাচনে বিজেপি-র হয়ে রাজনীতির ময়দানে যখন নামেন এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী, তারপর থেকেই তাঁর দূরত্ব শুরু হয় অঞ্জন দত্তের সঙ্গে। বিজেপিতে পার্নোর যোগদান নিয়ে প্রকাশ্যেই হতাশা ও আক্ষেপ প্রকাশ করেছিলেন এই বিখ্যাত অভিনেতা-পরিচালক। পাল্টা মুখ খুলেছিলেন পার্নোও। এরপর জল গড়িয়েছে বহুদূর। শোনা গেছিল, সম্পর্কের সুর কেটে গেছিল অভিনেত্রী আর পরিচালকের মধ্যে। অন্যদিকে,বরাহনগরের প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়ালেও হেরে যান 'রঞ্জনা'। তবে এরপরেও বিজেপি নেত্রীর সঙ্গে কোনওরকম কথার আদানপ্রদান করেননি অঞ্জন।

সূত্রের খবর, সম্প্রতি পার্নো মিত্রের সঙ্গে 'বেলা বোস' নিয়ে নাকি একটি ছোট বৈঠকও সেরে ফেলেছিলেন 'বেলা বোসের জন্য' ছবির প্রযোজক রানা সরকার। তবে অঞ্জন দত্তের কানে এ খবর যেতেই রানা সরকারকে সরাসরি তিনি 'না' বলে দেন। ওই সূত্রের তরফে আরও জানা গেছে এক এবং একমাত্র পরস্পরের সম্পূর্ণ বিপরীত রাজনৈতিক অবস্থানের জন্যই নাকি অঞ্জন দত্ত ও পার্নো মিত্রর মধ্যে তৈরি হয়েছে এমন পরিস্থিতি।

এ বিষয়ে অঞ্জন দত্ত এবং পার্নো মিত্রকে হিন্দুস্তান টাইমসের তরফে বার কয়েক ফোন করা হলেও তাঁরা তোলেননি। হোয়াটস অ্যাপ-এও এ প্রসঙ্গে কোনও কিছু জানাননি তাঁরা। তবে হিন্দুস্তান টাইমসকে এ প্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করতে না চাইলেও পরে ফোনের ওপর থেকে রানা সরকার জানিয়েছেন পার্নো মিত্র 'বেলা বোস' হতে চাইলে তিনি অখুশি হবেন না বটে তবে এই ছবির ক্ষেত্রে অঞ্জন দত্তের কথাই শেষ কথা। 'বেলা বোস' এর স্রষ্টাই এক্ষত্রে 'ক্যাপ্টেন অফ দ্য শিপ।' মজা করেই রানা সরকার বললেন, ' ওই যে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। আর এক্ষেত্রে নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন আম্পায়ারটি কে।'

তবে প্রশ্ন উঠেছে, নেটমাধ্যমে পার্নোর সঙ্গে সদ্য একটি ছবি পোস্ট করেছেন রানা সরকার। ছবির ক্যাপশনও যথেষ্ট ইঙ্গিতপূর্ণ!  টলিপাড়ায় গুঞ্জন, যদি পরিচালকই কথাই  শেষ কথা হয়, তাহলে এহেন পরিস্থিতিতে কেন পার্নোর সঙ্গে সেলফি পোস্ট করলেন রানা? কেনই বা ওরকম ক্যাপশন জুড়লেন তিনি? দুইয়ে দুইয়ে চার করা কিন্তু শুরু করে দিয়েছে দর্শক। 

আরও শোনা যাচ্ছে, অঞ্জন যাই বলুক না কেন পর্নোকেই নাকি 'বেলা বোস' হিসেবে পছন্দ করা হয়েছে ছবি নির্মাণ সংস্থার তরফে। ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর, পার্নোকে কেন্দ্র করে পরিচালক এবং প্রযোজকের মধ্যে নাকি ইতিমধ্যেই দ্বন্দ উঠছে চরমে! দু'তরফেই নাকি চলেছে নরম গরম বাক্যের আদান প্রদান ।এদিন অঞ্জন কিংবা পার্নো ফোন না তলায় সেই জল্পনা যে আরও কংক্রিট হলো সেকথা বলাই বাহুল্য।

পাশাপাশি এদিন সন্ধ্যায় অঞ্জন দত্তও ফেসবুকে একটি ছোট্ট পোস্ট করেন 'বেলা বোস আসছে' যদিও কে হচ্ছেন 'বেলা বোস' সে বিষয়ে একটি শব্দও খরচ করেননি তিনি। এরমধ্যেই হাজারের ওপর শেয়ার হয়েছে সেই পোস্ট। তবে কি শেষপর্যন্ত পার্নোই হচ্ছেন 'বেলা বোস'? জল্পনা কিন্তু বাড়ছে টলিপাড়ায়।

বন্ধ করুন