বাড়ি > বায়োস্কোপ > সুশান্তের মৃত্যু: সুপ্রিম কোর্টে রিয়ার পিটিশনের পালটা ক্যাভিয়েট দাখিল বিহার সরকারের
সুশান্তের পরিবারের পাশে বিহার সরকার 
সুশান্তের পরিবারের পাশে বিহার সরকার 

সুশান্তের মৃত্যু: সুপ্রিম কোর্টে রিয়ার পিটিশনের পালটা ক্যাভিয়েট দাখিল বিহার সরকারের

  •  সুশান্তের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে বিহার সরকার রিয়ার পিটিশনের পালটা ক্যাভিয়েট দায়ের করেছে দেশের সর্বোচ্চ আলাদতে।
  • এই মামলায় বিহার সরকারের প্রতিনিত্ব করছেন প্রাক্তন অ্যাটোর্নি জেনারেল,মুকুল রোহাতগি।

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে আইনি লড়াই জমে উঠেছে। পাটনা পুলিশের এই মামলায় হস্তক্ষেপের বিরোধিতা করে গতকালই সুপ্রিম কোর্টের দরজায় কড়া নেড়েছেন রিয়া চক্রবর্তী। রিয়ার হয়ে এই মামলা লড়ছেন দেশের অন্যতম সেরা ক্রিমিন্যাল লইয়াল সতীশ মানেসিন্ধে। রিয়া জানিয়েছেন, পাটনা পুলিশের থেকে মুম্বই পুলিশের হাতে এই মামলার তদন্তভার স্থানান্তরিত করা হয়। বৃহস্পতিবার সকালে জানা যায়,রিয়ার পিটিশনের তরফা শুনানি আটকাতেই সুপ্রিম কোর্টে ক্যাভিয়েট দাখিল করেছে প্রয়াত অভিনেতার পরিবার। রিয়ার পিটিশন শোনার আগে যাতে সুশান্তের পরিবারের পক্ষ শোনে কোর্ট, সেকথা বলা হয়েছে ক্যাভিয়েটে। সুশান্তের পরিবারের হয়ে এই মামলা লড়ছেন দুঁদে আইনজীবী সঞ্জয় সিং। 

অন্যদিকে সুশান্তের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়ে এদিন বিহার সরকারও রিয়ার পিটিশনের পাল্টা ক্যাভিয়েট দায়ের করেছে দেশের সর্বোচ্চ আলাদতে। এই মামলায় বিহার সরকারের প্রতিনিত্ব করছেন প্রাক্তন অ্যাটোর্নি জেনারেল মুকুল রোহাতগি। কেন সুশান্তের মৃত্যু মুম্বইতে ঘটার পরেও এফআইআর পাটনায় দায়ের হয়েছে, কী কারণে এই সিদ্ধান্ত বিহার সরকারের এবং কেন বিহার পুলিশের টিম মুম্বইতে মামলার তদন্ত করছে-সেই সব প্রশ্নের উত্তর আদালতকে জানাবেন মুকুল রোহাতগি। টাইমস নাও সূত্রে খবর, ইতিমধ্যেই এই পিটিশনের ভিত্তিতে মুম্বই পুলিশকে সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত সংক্রান্ত তথ্য জানতে চেয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

সুশান্তের বাবা কেকে সিং রিয়া ও অভিনেত্রীর পুরো পরিবার এবং ম্যানেজাদের বিরুদ্ধে চক্রান্ত, সুশান্তের সঙ্গে প্রতারণা (আর্থিক ও মানসিক) এবং তাঁকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার মতো অভিযোগ এনেছেন কেকে সিং। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৬ (আত্মহত্যায় প্ররোচনা), ৩৪১,৩৪২,৩৮০,৪০৬, ৪২০-ধারায় পাটনার রাজীব নগর থানায় অভিযোগ জানিয়েছে সুশান্তের পরিবার। সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত মুম্বই পুলিশ করলেও কেন পাটনায় এফআইআর দায়ের করা হল সেই নিয়েই আপত্তি জানিয়েছেন রিয়া। পাশাপাশি অন্তর্বর্তীকালীন জামিনেরও আবেদন জানিয়েও আদালতের দারস্থ হয়েছেন রিয়া।

গত ১৪ জুন মুম্বইয়ের বান্দ্রার অ্যাপার্টমেন্ট থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার হয় সুশান্তের দেহ। বিহার পুলিশের চার সদস্যের দল বৃহস্পতিবার সুশান্তের ব্যাঙ্ক ডিলেটস সংক্রান্ত বিষয়গুলো খতিয়ে দেখেছেন। বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে সুশান্তের দিদি মিতু সিং, সুশান্তের পরিচারক,রাঁধুনিরও। জানা গিয়েছে শুক্রবার অঙ্কিতা লোখান্ডের বয়ান রেকর্ড করেন তাঁরা। 

বন্ধ করুন