বাড়ি > বায়োস্কোপ > সুশান্তের মৃত্যু তদন্ত: মুম্বই পৌঁছোতেই পাটনার এসপিকে 'জোর করে' কোয়ারেন্টাইনে পাঠাল BMC
জোর করে এসপি বিনয় তিওয়ারিকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠাল বিএমসি,বলল বিহার পুলিশ 
জোর করে এসপি বিনয় তিওয়ারিকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠাল বিএমসি,বলল বিহার পুলিশ 

সুশান্তের মৃত্যু তদন্ত: মুম্বই পৌঁছোতেই পাটনার এসপিকে 'জোর করে' কোয়ারেন্টাইনে পাঠাল BMC

  • রবিবারই সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তে বিহার পুলিশের চার সদস্যের দলকে নেতৃত্ব দিতে মু্ম্বই পৌঁছান পাটনার এসপি বিনয় তিওয়ারি।
  • রাতেই তাঁকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দিল বিএমসি। 

সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তদন্ত নিয়ে বিহার ও মহারাষ্ট্র সকারের দ্বন্দ্ব ক্রমেই প্রকাশ্যে আসছে। গত মঙ্গলবার সামনে আসে সুশান্তের বাবা কেকে সিং রিয়া চক্রবর্তী ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া সহ একাধিক ধারায় মামলা দায়ের করেছেন পাটনার রাজীব নগর পুলিশ থানায়। সেই এফআইআরের ভিত্তিতেই মুম্বই পৌঁছায় বিহার পুলিশের চার সদস্যের একটি দল। বারবার সেই টিমের সঙ্গে অসহযোগিতা করবার অভিযোগ উঠেছে মুম্বই পুলিশের বিরুদ্ধে। রবিবারই সেই দলের নেতৃত্বে মুম্বই পৌঁছান পাটনার (সেন্ট্রাল) এসপি বিনয় তিওয়ারি। এবার তাঁকে ‘জোর করে’ কোয়ারেন্টাইন করার অভিযোগ উঠল মহারাষ্ট্র সরকারের বিরুদ্ধে। 

রবিবার রাতে বিহার পুলিশের ডিজিপি গুপ্তেশ্বর তিওয়ারি সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান, সুশান্তের মৃত্যুর তদন্তে আজ মুম্বই পৌঁছেছেন  আইপিএস অফিসার বিনয় তিওয়ারি,উনি অফিসিয়্যাল ডিউটিতে ওখানে গিয়েছেন পাটনা পুলিশের দলকে নেতৃত্ব দিতে কিন্তু ওঁনাকে রাত ১১টা নাগাদ জোর করে কোয়ারেন্টাইন করেছে বিএমসি আধিকারিকরা'। 

গুপ্তেশ্বর তিওয়ারি আরও যোগ করেন, ‘বিনয় তিওয়ারিকে আইপিএস মেসেও জায়গা দেওয়া হয়নি। উনি আপাতত গোরেগাঁওয়ের একটি গেস্ট হাউসে রয়েছেন’। উল্লেখ্য ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এসপি বিনয় তিওয়ারিকে। ভিন রাজ্য থেকে আসার কারণেই করোনা সংক্রান্ত বিধি মেনে তাঁকে আগামী ১৪ দিন ঘরবন্দি থাকতে হবে, বলে জানায় বিএমসি। যদিও আশ্চর্যের বিষয় এর আগে পাটনা পুলিশের তরফে দুই ইন্সপেক্টর ও দুইজন সাব-ইন্সপেক্টর পদের অফিসার মুম্বইতে এই মামলার তদন্তে এলে তাঁদের কোয়ারেন্টাইনে থাকার কোনওরকম নির্দেশ দেয়নি বৃহন্মুম্বই পুরনিগম। 

এর আগে রবিবার দুপুরে পাটনা পুলিশের তরফে মুম্বই পুলিশের কাছে সুশান্তের ম্যানেজার দিশা সাহিয়ানের মৃত্যুর তদন্ত ফাইল চাওয়া হলে, মুম্বই পুলিশ জানায় ‘ভুলবশত সেই ফাইল ডিলিট হয়ে গিয়েছে’। এমনটাই খবর বিহার পুলিশ সূত্রে। সুশান্তের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট সহ অন্যসকল তথ্য পাটনা পুলিশ দলের হাতে তুলে দেয়নি মুম্বই পুলিশ। 

সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত নিয়ে দুই রাজ্যের মধ্যে টানাপোড়েন যে চলছে তা স্পষ্ট। ইতিমধ্যেই এই মামলার জল গড়িয়েছে সুপ্রিম কোর্টে। সুশান্তের বাবার এফআইআরের খবর সামনে আসতেই সুপ্রিম কোর্টে পিটিশন দায়ের করেন রিয়া চক্রবর্তী, তাঁর দাবি এই মামলা আইনগত অধিকারক্ষেত্রের মধ্যে পড়ে না তাই কোনওভাবেই এই মামলার তদন্ত করতে পারেনা পাটনা পুলিশ। রিয়ার দাবি সমর্থন করে আদালতে ক্যাভিয়েট দাখিল করেছে উদ্ধব ঠাকরে সরকারও। অন্যদিকে পাল্টা ক্যাভিয়েট দায়ের করা হয়েছে সুশান্তের বাবা কেকে সিং এবং নীতিশ কুমার সরকারের তরফে। 

৫ই অগস্ট, বুধবার সুপ্রিম কোর্টে এই মামলার শুনানি। এখন সুপ্রিম রায়ের দিকেই তাকিয়ে রয়েছে গোটা দেশ। 

বন্ধ করুন