আমফানের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত কলকাতায় বহু জায়গা এখনও জলমগ্ন। ছবি: এএনআই।
আমফানের তাণ্ডবে বিপর্যস্ত কলকাতায় বহু জায়গা এখনও জলমগ্ন। ছবি: এএনআই।

বাংলায় আমফানে বিধ্বস্তদের জন্য প্রার্থনা বলিউড সেলেবদের

  • ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে বাংলায় মারা গিয়েছেন কমপক্ষে ৭২ জন। ওডিশায় এক ২ মাসের শিশু-সহ মৃতের সংখ্যা দুই।

পশ্চিমবঙ্গ ও ওড়িশায় ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডবে বিপন্ন মানুষের জন্য প্রার্থনা জানাল বলিউড। বৃহস্পতিবার একাধিক তারকা এই কথা জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন। 

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, ঘূর্ণিঝড়ের দাপটে বাংলায় মারা গিয়েছেন কমপক্ষে ৭২ জন। ওডিশায় এক ২ মাসের শিশু-সহ মৃতের সংখ্যা দুই। কলকাতা-সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গ সুপার সাইক্লোনের ধ্বংসলীলার সাক্ষ্য বহন করছে হাজারে হাজারে উপড়ে যাওয়া গাছ আর অসংখ্য ভেঙে পড়া বাড়ির ইটের পাঁজায়। নষ্ট হয়েছে খেতের ফসল, গাছের আম। করোনার প্রকোপের মাঝে প্রকৃতির রোষে পড়ে অসহায় কয়েক লাখ মানুষ। 

কলকাতায় বসে আমফানের তাণ্ডব দেখেছেন পরিচালক সুজিত সরকার। টুইটারে এ দিন তিনি জানিয়েছেন, জীবনে কখনও এমন ভয়ংকর ও ধ্বংসাত্মক ঝোড়ো বাতাস দেখেননি। তাঁর মতে, ‘এই ধ্বংসস্তূপ থেকে উঠে দাঁড়াতে বাংলার অনেক সাহায্য দরকার। কিছু কিছু অঞ্চলে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরতে কয়েক বছর লেগে যেতে পারে।’ 

সুজিতের টুইটে জবাব দিয়ে অভিনেত্রী তাপসী পন্নু বলেছেন, ‘এই বিপর্যয়ও আমরা সকলে মিলে পার হয়ে যাব। হয়তো পরবর্তী দশকে পদার্পণ করার আগে এ সবই আমাদের জন্য পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। আমরা এই পরীক্ষায় দুর্দান্ত ফল করে পাশ করব। আমি আশা ছাড়তে রাজি নই।’ 

‘সন্ড কি আঁখ’ ছবিতে তাপসীর সহ-অভিনেত্রী ভূমি পডনেকর সুজিত সরকারের টুইটের জবাবে লিখেছেন, ‘স্যর, পূর্ব উপকূলের এই ভয়াবহ ঘটনায় সমস্ত অধিবাসীদের জন্য আমরা প্রার্থনা করছি। সত্যি বলছি ওখানে সকলের জন্য আমাদের সব শুভেচ্ছা পাঠাচ্ছি।’ 

পরিচালক করণ জোহর জানিয়েছেন, ‘এ বছর এর চেয়েও খারাপ কিছু হওয়া বাকি রয়েছে? নিরাপদে থাকো, বাংলা। তোমার নিরাপত্তা ও সুরক্ষার জন্য আমরা সকলে প্রার্থনা করছি।’

অভিনেতা রাজ কুমার রাও টুইট করেছেন, ‘আমফান সুপার সাইক্লোনে নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত সকলের জন্য প্রার্থনা করছি। বাংলার জন্য প্রার্থনা। ওড়িশার জন্য প্রার্থনা।’ 

আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য প্রার্থনা করছেন বলে জানিয়েছেন অভিনেত্রী তিসকা চোপড়া।

জাতীয় আবহাওয়া দফতরের দাবি, গত ১০০ বছরে বাংলায় হিংস্রতম ঘূর্ণিঝড় আমফান। গতকাল দুপুর আড়াইটেতে দীঘা উপকূলে আছড়ে পড়ে এই ঝড়। তার রেষ থেকে যায় বুধবার গভীর রাত পর্যন্ত।  

বন্ধ করুন