বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ঘুরে দাঁড়ানোর অপেক্ষায় ‘ভূ-স্বর্গ’, বলিউডের প্রতিনিধি দল হাজির কাশ্মীরে
ভূ-স্বর্গ কাশ্মীরের সম্পদ ডাল লেক (HT_PRINT)
ভূ-স্বর্গ কাশ্মীরের সম্পদ ডাল লেক (HT_PRINT)

ঘুরে দাঁড়ানোর অপেক্ষায় ‘ভূ-স্বর্গ’, বলিউডের প্রতিনিধি দল হাজির কাশ্মীরে

  • ধীর ধীরে ছন্দে ফিরছে কাশ্মীর। পর্যটন শিল্পে বেগ পেতে বলিউডের দিকে তাকিয়ে উপত্যকা। 

ভূ-স্বর্গ কাশ্মীর সমসময়ই পরিচালকদের পছন্দের শ্যুটিং লোকেশন। বলিউড ছবিতে বারবার ঘুরে ফিরে এসেছে কাশ্মীরের নৈসর্গিক সৌন্দর্য। সাম্প্রতিক সময়েও রাজি, ফিতুর, হায়দার, বজরঙ্গি ভাইজানের মতো ছবির শ্যুটিং হয়েছে কাশ্মীরে  তবে সেখানকার রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও নিরাপত্তাজনিত কারণে ধাক্কা খেয়েছে কাশ্মীরের অর্থনীতি। শুধু শ্যুটিং নয়, সার্বিকভাবে পর্যটন শিল্পের অবস্থা প্রায় ধুঁকছে। এইসময় আশার আলো দেখাল বলিউড। 

বলিউডের বেশ কয়েকটি বড় ব্যানার সহ  প্রোডিউসার্স গিল্ডের সদস্যের নিয়ে মোট ২৪ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল বৃহস্পতিবার কাশ্মীরে পৌঁছেছে। প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালে অগস্ট মাসে জন্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা লাগু হওয়ার পর উপত্যকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। যার প্রভাব গিয়ে পড়ে পর্যটন ক্ষেত্রে। সেই বছর অগস্ট মাসে জম্মু-কাশ্মীরে পর্যটনের ক্ষেত্রে প্রায় ২ হাজার ৬১৫ কোটি টাকার লোকসান হয়। প্রায় ৬৫ হাজার মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়েছিল।

অজয় দেবগণ ফিল্মস, সঞ্জয় দত্ত প্রোডাকশন, দ্য রিলায়েন্স এন্টারটেইনমেন্ট, দ্য রোহিট শেট্টি ফিল্মস, জি স্টুডিওস, অধিকারী ব্রাদার্স এন্ড এসএবি(মারাঠী), দ্য এন্ডেমোল, ডিরেক্ট রাজকুমার হিরানি এবং দ্য এক্সেল এন্টারটেইনমেন্টের সদস্যরা কাশ্মীরে গিয়েছেন রেইকি করতে। মুম্বইয়ে প্রযোজক গিল্ডের বেশ কিছু সদস্যও তাঁদের সঙ্গে গিয়েছেন সেখানে।

কাশ্মীরের পর্যটন কেন্দ্রের পরিচালক জি.এন ইতু বলেন, সেরা প্রোডাকশন হাউসগুলি ঘুরে দেখেন বেশ কিছু লোকেশান। ছবি নির্মাতাদের তরফ থেকে ভালো প্রতিক্রিয়া পাচ্ছে কাশ্মীরের পর্যটন। এখানে পর্যটন ব্যবস্থা ফের চালু হওয়ার পর থেকে আঞ্চলিক গানের শ্যুটিং এবং কমার্শিয়াল বিজ্ঞাপনের শ্যুটিংয়ের ক্ষেত্রে বেশ ভালো প্রতিক্রিয়া মিলছে। 

পর্যটন বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, চার দিনের সফরে প্রতিনিধি দলগুলি প্রোজেক্টের শ্যুটিংয়ের জন্য কাশ্মীরে লোকেশান খুঁজতে এসেছেন। জি.এন ইতু আরও জানিয়েছেন, ছবি নির্মাতাদের কাছে কাশ্মীরে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের মধ্যে শ্যুটিং করা স্বাভাবিক। কাশ্মীরের পরিকাঠামো বিভাগ আরো সহজ করে দিয়েছে শ্যুটিংয়ের জন্য অনুমতি দেওয়ার ক্ষেত্রে।

কাশ্মীরের লোকনৃত্য পরিবেশন করছেন স্থানীয়রা
কাশ্মীরের লোকনৃত্য পরিবেশন করছেন স্থানীয়রা (AP)

উপত্যকা এখনো পর্যন্ত পর্যটন পরিকাঠমোকে স্বাভাবিক করার চেষ্টায় রয়েছে। ২০১৯ সালের ৫ অগস্ট থেকে টানা  লকডাউন ছিল কাশ্মীরে, এরপর থাবা বসায় অতিমারী করোনা।  

কর্মকর্তাদের তরফে জানানো হয়েছে প্রতিনিধিরা গুলমার্গ এবং পেহেলগাওয়ের অনেক জায়গা ঘুরে দেখেছেন। পর্যটন বিভাগের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, প্রোডিউসার গিল্ডের তরফে গুলমার্গের সৌন্দর্যকে প্রশংসা করা হয়েছে। কাশ্মীরের বিভিন্ন জায়গায় তাঁদের আগামী ছবির শ্যুটিংয়ের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছেন তাঁরা।  

বন্ধ করুন