বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Brahmastra box office day 1 collection: শুরুতেই ৩৬ কোটি, রণবীর-আলিয়ার 'ব্রহ্মাস্ত্র'-র ফাটাফাটি রেজাল্ট শুক্রবারে
শুক্রবারেই বাজিমাত ব্রহ্মাস্ত্র-র, সঞ্জুর রেকর্ডও ছাপিয়ে গেল এই সিনেমা। 

Brahmastra box office day 1 collection: শুরুতেই ৩৬ কোটি, রণবীর-আলিয়ার 'ব্রহ্মাস্ত্র'-র ফাটাফাটি রেজাল্ট শুক্রবারে

মোট ৫টি ভাষায় মুক্তি পায় ব্রহ্মাস্ত্র-- হিন্দি, তামিল, তেলেগু, কানাড়া ও মালয়ালাম। শুক্রবার এই সিনেমা আয় করেছে ৩৫-৩৬ কোটি। রিপোর্ট বলছে শনি-রবিবারে ব্যবসার অঙ্ক আরও বাড়বে।

শুক্রবারই মুক্তি পেয়েছে রণবীর কাপুর আর আলিয়া ভাটের ব্রহ্মাস্ত্র। সাই-ফাই ছবিখানা নিয়ে দর্শকদের উৎসাহ ছিল চরমে। অয়ন মুখোপাধ্যায় পরিচালিত এই সিনেমা প্রথমদিনে আয় করল ৩৫-৩৬ কোটি টাকা, ছুটির দিন ছাড়া মুক্তি পেয়েও। রণবীরের সঞ্জুর রেকর্ডও ছাপিয়ে গিয়েছে এই সিনেমাখানা। যা ২০১৮ সালে মুক্তির দিনে আয় করেছিল ৩৪.৭৫ কোটি। 

মোট ৫টি ভাষায় মুক্তি পায় ব্রহ্মাস্ত্র-- হিন্দি, তামিল, তেলেগু, কানাড়া ও মালয়ালাম। আসলে এই সিনেমার অ্যাডভান্স বুকিংই বক্স অফিসে ছাপ ফেলতে সাহায্য করেছে। শুক্র-শনি-রবি মিলিয়ে ৬০ কোটিরও বেশি বুকিং হয়ে গিয়েছিল। যদিও খানিকটা ভয়ে ভয়েই ছিল গোটা টিম। রণবীরকে এটাও বলতে শোনা গিয়েছিল, প্রি-বুকিংয়ের উপর খুব একটা ভরসা তাঁর নেই। কারণ এখনও সিনেমা দেখেননি দর্শকরা। তাই হয়তো যে কোনও সময় বদলে যেতে পারে খেলা। আরও পড়ুন: ডিভোর্স হয়ে গেল হানি সিং আর শালিনীর! ভরণপোষণের জন্য গায়ককে দিতে হল ১ কোটি

Boxofficeindia.com-এর রিপোর্ট অনুসারে ব্রহ্মাস্ত্র ব্যবসা করেছে সব ভাষা মিলিয়ে ৩৫-৩৬ কোটি। রিপোর্ট বলছে হিন্দি ভার্সন আয় করেছে ৩২-৩৩ কোটি মতো। সঙ্গে মনে করা হচ্ছে শনি আর রবি মিলিয়ে সিনেমার বিশ্বব্যপী আয় ৮-১০ মিলিয়ান হয়ে যাবে। 

ছুটির দিন ছাড়া মুক্তি পেয়ে সবচেয়ে বেশি আয় করেছিল এসএস রাজামৌলির ‘বাহুবলি ২’। আয় ছিল ৪১ কোটি। এই সিনেমা তেলেগু আর তামিলে তৈরি হয়েছিল আর হিন্দিতে ডাবিং হয়েছিল। আরও পড়ুন: ‘যাও গিয়ে মুখ ধুয়ে আসো’, রানিকে দেখেই সেটে বলে উঠেছিলেন পরিচালক! কী হয়েছিল?

যদিও চলচ্চিত্র সমালোচকদের থেকে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পেয়েছে ‘ব্রহ্মাস্ত্র’। হিন্দুস্তান টাইমস বাংলার রিভিউ বলছে, ‘এই ছবির চিত্রনাট্যের বাঁধন কখন কখনও একটু বেশিই জটিল মনে হবে আপনার। পাশাপাশি ২ ঘন্টা ৪৫ মিনিট দীর্ঘ ছবি আপনার ধৈর্যের পরীক্ষা নিতে পারে, এমনটা অস্বীকার করবার জায়গা নেই। ছবির প্রথমার্ধের ২০ মিনিট খুব অনায়াসে ছেঁটে ফেলতে পারতেন পরিচালক। রণবীর-আলিয়ার রোম্যান্স এই ছবির অন্যতম ইউএসপি। ছবির দ্বিতীয়ার্ধ অনেক বেশি টানটান। সেখানে ব্রহ্মাস্ত্র নিয়ে অনেক জটিল ধাঁধার জট খুলবে। চিত্রনাট্য খানিকটা জটিল হলেও ছবির ভিএফএক্সের কাজ সত্যিই প্রশংসনীয়। বড় পর্দায় এই সিনেম্যাটিক অভিজ্ঞতা না দেখাটা বড় মিস!’

 

বন্ধ করুন