বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > তোমার সঙ্গে ‘আর’ অক্ষরের সম্পর্কটা ঠিক কীরকম? রণবীরের প্রশ্নে লজ্জায় লাল আলিয়া
'ব্রহ্মাস্ত্র'-র পোস্টার লঞ্চ অনুষ্ঠানে খুনসুটিতে ব্যস্ত রণবীর-আলিয়া।
'ব্রহ্মাস্ত্র'-র পোস্টার লঞ্চ অনুষ্ঠানে খুনসুটিতে ব্যস্ত রণবীর-আলিয়া।

তোমার সঙ্গে ‘আর’ অক্ষরের সম্পর্কটা ঠিক কীরকম? রণবীরের প্রশ্নে লজ্জায় লাল আলিয়া

  • 'ব্রহ্মাস্ত্র' ছবির প্রথম মোশন পোস্টার লঞ্চ অনুষ্ঠানে দিল্লিতে হাজির হয়েছিলেন রণবীর-আলিয়া।

বুধবার ১৫ ডিসেম্বর দিল্লিতে বেশ জাঁকজমক করেই অনুষ্ঠিত হল 'রালিয়া' জুটির প্রথম ছবি 'ব্রহ্মাস্ত্র'-র মোশন পোস্টার লঞ্চ অনুষ্ঠান।এদিন সন্ধ্যায় লঞ্চ করা হল 'ব্রহ্মাস্ত্র পার্ট ওয়ান: শিবা'র মোশন পোস্টার। সেই পোস্টার লঞ্চ অনুষ্ঠানে হাজির ছিলেন ছবির দুই প্রধান অভিনেতা-অভিনেত্রী রণবীর কাপুর এবং আলিয়া ভাট। সঙ্গে ছিলেন ছবির পরিচালক আয়ান মুখোপাধ্যায়।

অনুষ্ঠানের মঞ্চ তখন আলো করে দাঁড়িয়ে রয়েছেন 'রালিয়া'। নিজেদের মধ্যে খুনসুটি করছেন। তারকা-জুটিকে সঙ্গ দিচ্ছে পরিচালক আয়ান মুখোপাধ্যায়। এমন সময় 'ব্রহ্মাস্ত্র'র নায়িকা তথা নিজের রিয়েল লাইফ প্রেমিকাকে রণবীরের প্রশ্ন," আচ্ছা, তোমার জীবনে 'আর' অক্ষরটির সঙ্গে ঠিক কীরকমের সম্পর্ক একটু বলো তো?" উল্লেখ্য, কিছুদিন আগে হওয়া প্রখ্যাত পরিচালক রাজামৌলির নতুন ছবি 'আর আর আর' এর ট্রেলর লঞ্চ অনুষ্ঠানের মঞ্চেও আলিয়াকে এই প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হয়েছিল।

রণবীর যে ইচ্ছেকৃতই লজ্জায় ফেলে দেওয়ার জন্য আলিয়াকে এই প্রশ্নটি করেছিলেন তা বলাই বাহুল্য। কারণ প্রত্যেকেই জানেন রণবীরের নামের অদ্যাক্ষরটি 'আর'। আর স্বভাবতই রণবীরের মুখে এই প্রশ্ন শুনে লজ্জায় লাল হয়েছেন আলিয়া। কোনওরকমে নিজেকে সামলে সুমলে আলিয়ারও পাল্টা প্রশ্ন ছিল, :এবারে তুমি বল, তোমার জীবনে 'এ' অক্ষরটির ভূমিকা কী?" বলি-সুন্দরীর মুখে এই প্রশ্ন শোনামাত্রই অনুষ্ঠানে জড়ো হওয়া দর্শক সোৎসাহে চিৎকার করে ওঠে। রণবীরও মজা করে জবাব দেন, "আমার জীবনে 'এ' মানে আযান মুখোপাধ্যায়"। তবে সেখানেই শেষ হয় না তাঁদের খুনসুটি। রইল সেই ভিডিয়ো।সারা অনুষ্ঠান জুড়েই টুকরো টাকরা ভাবে হাসি আড্ডায় মত ছিলেন এই 'লাভ বার্ডস'। প্রসঙ্গত, ২০১৭ সাল থেকে সম্পর্কে রয়েছেন রণবীর-আলিয়া। দু'জনে একসঙ্গে বিদেশে ছুটি কাটানো থেকে শুরু করে পরস্পরের পারিবারিক অনুষ্ঠানে হামেশাই যাতায়াত করেন।

উল্লেখ্য, এই অনুষ্ঠানে প্রয়াত বাবা তথা কিংবদন্তি অভিনেতা ঋষি কাপুরকেও স্মরণ করেন রণবীর। জানান যে গত বেশ কয়েক বছর ধরে যখন এই ছবি তৈরি হচ্ছিল সেইসময় এই ছবি নিয়ে নিজের নানান মতামত শেয়ার করতেন ঋষি। কখনও রেগে গিয়ে বলতেন এত বছর ধরে কোনও ছবি তৈরি হতে পারে, তা তাঁর ধারণার বাইরে ছিল। কখনও বলতেন, ভারতে কোনও ভিএফএক্স-এর বাজার নেই, তাই এই ছবি কেউ দেখবে না। একেবারে ফ্লপ হবে 'ব্রহ্মাস্ত্র', ইত্যাদি ইত্যাদি। এই প্রসঙ্গ তুলে মুখে হাসি টেনে ধরা গলায় রণবীর বলে ওঠেন, "আমার দৃঢ় বিশ্বাস বাবা এখন এইমুহূর্তে আমাদের মধ্যেই কোথাও আছেন। সব দেখছেন। আমার মনে হয় সব দেখেশুনে তিনি এখন হাসছেন। বড্ড গর্বিত হচ্ছেন বলেই আমার ধারণা"।

বন্ধ করুন