বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Ganesh Acharya: মহিলা সহকর্মীকে মারধর ও হেনস্থার মামলায় জামিন পেলেন কোরিওগ্রাফার গণেশ আচার্য
গণেশ আচার্য (AFP)

Ganesh Acharya: মহিলা সহকর্মীকে মারধর ও হেনস্থার মামলায় জামিন পেলেন কোরিওগ্রাফার গণেশ আচার্য

  • চলতি বছর এপ্রিলে এই মামলায় চার্জশিট পেশ করে পুলিশ। মুম্বইয়ের নিম্ন আদালত মঞ্জুর করল কোরিওগ্রাফারের জামিনের আর্জি। 

সহকর্মীর তরফে আনা যৌন হেনস্থার মামলায় জামিন পেলেন বলিউড কোরিওগ্রাফার গণেশ আচার্য। বৃহস্পতিবার মুম্বইয়ের এক ম্যাজিস্ট্রেট কোর্ট থেকে জামিন পান কোরিওগ্রাফার। ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে এক সহকারী কোরিওগ্রাফারকে মারধরের অভিযোগে আম্বোলি পুলিশ থানায় মামলা দায়ের হয়েছিল এই নামজাদা বলিউড কোরিওগ্রাফারের বিরুদ্ধে। 

এই মামলায় গ্রেফতার হননি গণেশ আচার্য, আদালতের কাছে জামিনের আবেদন জানিয়েছিলেন তিনি। গণেশ আচার্য এবং আরও দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল ‘ভারতীয় ফিল্ম এবং টেলিভিশন কোরিওগ্রাফার অ্যাসোসিয়েশন’-এর এক অনুষ্ঠান চলাকালীন ওই মহিলা নৃত্যশিল্পীকে হেনস্থা করেছেন তাঁরা। ঘটনাটি ২০২০ সালের ২৬শে জানুয়ারির। 

এখানেই শেষ নয়, ওই নির্যাতিতা মহিলা অভিযোগ করেন, ‘ভারতীয় ফিল্ম এবং টেলিভিশন কোরিওগ্রাফার অ্যাসোসিয়েশন’-এর সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর থেকেই নানাভাবে গণেশের হাতে হেনস্থার শিকার হয়েছেন তিনি। অভিযোগকারিনীর মতে, ‘প্রায়শই অফিসে ডেকে জোর করে অশালীন ভিডিয়ো দেখতে বাধ্য করতেন গণেশ আচার্য। এমনকি এক লক্ষ টাকার মেম্বারশিপ চার্জ দেওয়ার পরেও ওই অ্যাসোসিয়েশন থেকে আমার ছ'মাসের সদস্য পদ বাতিল করে দেন গণেশ আচার্য। গণেশের সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হওয়ার ভয়ে অন্যান্য কোরিওগ্রাফারও আমাকে কাজ দিতে অস্বীকার করেছেন।’

ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৫৪-এ (যৌন হয়রানি), ৩৫৪-সি (মহিলার ব্যক্তিগত মুহূর্তের ছবি তোলা বা দেখা), ৩৫৪-ডি (স্টকিং), ৩২৩ (আঘাত করা), ৫০৪ (শান্তি ভঙ্গ করার উদ্দেশ্যে ইচ্ছাকৃতভাবে অপমান করা) সহ বিভিন্ন ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে গণেশ আচার্যের বিরুদ্ধে। যদিও তিনি সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

 

বন্ধ করুন