বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘পরিবারের মধ্যে ঝামেলা তো হয়েই থাকে’, কেন একথা বললেন টলি-তারকা দেব ও রাজ!
দেব ও রাজ চক্রবর্তী। (ফাইল ছবি)
দেব ও রাজ চক্রবর্তী। (ফাইল ছবি)

‘পরিবারের মধ্যে ঝামেলা তো হয়েই থাকে’, কেন একথা বললেন টলি-তারকা দেব ও রাজ!

  • টলিপাড়ায় শুরু হল করোনার ভ্যাকসিন ক্যাম্প। যাতে হাজির ছিলেন দেব ও রাজ চক্রবর্তী।

দু'জনেই টলিউডের নামজাদা তারকা। দু'জনেই তৃণমূল কংগ্রেসের প্রথম সারির রাজনীতিবিদ। তা হঠাৎ তাঁদের মুখে এহেন সমস্যার কথা কেন এল? তবে কি বনিবনা হচ্ছে না দেব আর রাজ চক্রবর্তীর? গল্পটা আসলে একটু অন্য রকম। এখানে সমস্যার কেন্দ্রবিন্দুতে নেই এই দুই তারকা। বরং, দু'জনেই চান সমস্যা জলদি মিটে যাক। কাদের? ফেডারেশন ও টলিপাড়ার (পড়ুন প্রযোজকদের)। ‘শ্যুট ফ্রম হোম’কে কেন্দ্র করে বেশ কিছুদিন ধরেই সরগরম টলিউড। কখনো প্রযোজকদের তরফে, তো কখনও ফেডারেশনের তরফে তোপ দাগা হয়েছে। 

যদিও রবিবার থেকে সিনে ফেডারেশনের উদ্যোগে শুরু হয়েছে টলিপাড়ায় ভ্যাকসিন কর্মসূচী। যাতে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস, ফেডারেশন সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস, অভিনেতা-প্রযোজক দেব এবং প্রযোজক-পরিচালক রাজ চক্রবর্তী সহ অনেকেই। দেব ও রাজের আগমনে স্বভাবতই প্রশ্ন ওঠে ফেডারেশনের সঙ্গে প্রযোজকদের যে সমস্যা চলছিল তা কি মিটে গিয়েছে! 

সে প্রসঙ্গে দেব জানান, ‘ইন্ডাস্ট্রির সবাই একমত হয়ে কাজ করুক। ভ্যাকসিন হয়ে যাচ্ছে। আশা করা যায় এবার এবার সহজ ভাবে শুটিং করা সম্ভব হবে’। অন্য দিকে রাজের গলাতেও শোনা গেল একই সুর। ফেডারেশন ও প্রযোজকদের মধ্যে চলা ঝামেলা প্রসঙ্গে রাজ জানালেন, ‘পরিবারে এমন ঝামেলা তো হয়েই থাকে। বড় করে দেখা দরকার নেই। সব ঠিক হয়ে যাবে।’

মঙ্গলবার ওই টিকাকরণ অনুষ্ঠানে সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস জানান, শনিবারের মধ্যেই টলিপাড়ায় সকলকে ভ্যাকসিন দিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। ১৫ দিন পর একটা রিভিউ করা হবে। তাতে যেসব শিল্পী এবং টেকনিশিয়ানরা বাকি থাকবেন তা দেখে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে। সঙ্গে ফেডারেশনের তরফে জানান হয়েছে, এই ভ্যাকসিন কর্মসূচীর ৫০ থেকে ৫৫ শতাংশ ব্যয়ভার বহন করেছেন তাঁরা। বাকি ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে সরকারের তরফে।

বন্ধ করুন