বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > কেমন আছেন কনিকা কাপুর? হাসপাতালের বিছানায় শুয়েই জানালেন মনের ইচ্ছা
ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছেন কনিকা কাপুর (ছবি সৌজন্যে-ইসন্টাগ্রাম)
ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছেন কনিকা কাপুর (ছবি সৌজন্যে-ইসন্টাগ্রাম)

কেমন আছেন কনিকা কাপুর? হাসপাতালের বিছানায় শুয়েই জানালেন মনের ইচ্ছা

দু সপ্তাহ ধরে লখনউয়ের সরকারি হাসাপাতালের করোনা ওয়ার্ডেই রয়েছেন কনিকা কাপুর। এখন কেমন আছেন গায়িকা? জানালেন মনের ইচ্ছার কথা।

গত ১৪ দিন ধরে লখনউয়ের সঞ্জয় গান্ধী পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ইনস্টিটিউড অফ মেডিক্যাল সায়েন্স (PGIMS)-এর করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি কনিকা কাপুর। বুধবার হাসপাতালের ডিরেক্টর আরকে ধীমান এবং অন্য আধিকারিকদের সঙ্গে কথা বলার ইচ্ছা প্রকাশ করলেন কনিকা। কনিকার ওয়ার্ডে নিযুক্ত চিকিত্সক এবং অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের এই কথা জানিয়েছেন গায়িকা। কনিকা নিজেই জানিয়েছেন আগের থেকে অনেকটাই সুস্থবোধ করছেন তিনি। যদিও এখনও পর্যন্ত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কনিকার সঙ্গে সরাসরি কথা বলেনি বলেই খবর।

প্রসঙ্গত মঙ্গলবার পঞ্চমবারের জন্য কনিকা কাপুরের করোনাভাইরাসের নমুনা পরীক্ষা করা হয়, এবং সেই পরীক্ষার রিপোর্টও পসিটিভ আসে, যা নিয়ে যথেষ্ট চিন্তায় পড়েছিলেন হাসাপাতালের চিকিত্সকরা। এরপর তড়িঘড়ি বেবি ডল গায়িকার চিকিত্সা পদ্ধতিতে কিছু পরিবর্তন করা হয়, পাশাপাশি তাঁর ডায়েট চার্টেও পরিবর্তন আনা হয়। রোগ প্রতিরোধক ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এমন ধরণের খাবার দেওয়া হচ্ছে কনিকাকে। খাবারে ভিটামিন, প্রোটিন এবং কার্বোহাড্রেটের মাত্রা আগের তুলনায় বাড়ানো হয়েছে। এরপর থেকেই দ্রুত কনিকার শারীরিক অবস্থার উন্নতি ঘটে। জানা যাচ্ছে আপতত জ্বর এবং কাশির কোনও লক্ষণ নেই কনিকার শরীরে।

জানিয়ে রাখি, প্রত্যেক করোনা আক্রান্তের নমুনা ৪৮ ঘন্টা অন্তর পরীক্ষা করা হয়। মঙ্গলবার পঞ্চম পরীক্ষার ফল নেগেটিভ আসবে আশা করেছিলেন কনিকা। তবে সেই আশা ভুল প্রমাণিত হওয়ায় কিছুটা হতাশার কালোমেঘ জমেছিল কনিকার মনে। তবে এখন অনেকটাই সুস্থ রয়েছেন তিনি। হাসপাতালের ডিরেক্টর আর কে ধীমান আগেই জানিয়েছেন কনিকার অবস্থা স্থিতিশীল,চিন্তার কোনও কারণ নেই।

৯ মার্চ করোনা জর্জরিত লন্ডন থেকে ফিরে নিজেকে কোয়ারেন্টাইনে না রেখে কেন একের পর এক শহরে ঘুরে বেড়ালেন সেই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় নেটিজেনদের রোষের মুখে পড়তে হয়েছে গায়িকাকে। কনিকার দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণে ক্ষুদ্ধ লখনউয়ের স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। আগেই কনিকার বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় এফআইআর দায়ের করেছেন লখনউয়ের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক।

বন্ধ করুন