বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Dance Deewane: স্বাধীনতা দিবসের বিশেষ পর্বে অশ্রুসজল চোখে মীরাবাঈ-মাধুরী! দেখুন
মীরাবাঈ চানু-মাধুরী দীক্ষিত
মীরাবাঈ চানু-মাধুরী দীক্ষিত

Dance Deewane: স্বাধীনতা দিবসের বিশেষ পর্বে অশ্রুসজল চোখে মীরাবাঈ-মাধুরী! দেখুন

  • ডান্স দিওয়ানের বিশেষ স্বাধীনতা দিবসের পর্বে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন মাধুরী দীক্ষিত এবং মীরাবাঈ চানু। দেখুন প্রোমো-

টোকিও অলিম্পিক্সে ভারোত্তলনে রূপোর পদক জিতেছেন মীরাবাঈ চানু। নাচের রিয়্যালিটি শো ডান্স দিওয়ানেতে সম্প্রতি অতিথি  হিসেবে হাজির হয়েছিলেন তিনি। স্বাধীনতা দিবসের বিশেষ পর্ব চলাকালীন আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন অলিম্পিক্সে রূপোর পদকজয়ী। সদ্য মুক্তি পাওয়া প্রোমোতে মীরাবাঈ-এর পাশাপাশি শো-এর বিচারক মাধুরী দীক্ষিতের চোখে জল দেখা যায়।

স্বাধীনতা দিবসের বিশেষ পর্বে পুলওয়ামা কাণ্ডের উপর একটি নাচ পরিবেশন করেন প্রতিযোগিরা। ঘটনায় শহীদ এক জওয়ানের বিধবা স্ত্রী কথা শুনে চোখে জল ধরে রাখতে পারেননি মীরাবাঈ চানু এবং মাধুরী দীক্ষিত। তাঁরা আবেগপ্রবণ হয়ে উঠেছিলেন, কারণ মহিলাটি তাঁর স্বামীর মৃত্যুর বিষয়ে অবহিত হওয়ার মুহূর্তটি স্মরণ করেছিলেন। বিচারক থেকে অতিথি এবং প্রতিযোগি সকলেই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন এপিসোডে।

শহীদ জওয়ানের স্ত্রী তাঁর জীবনের গল্প শোনাতে গিয়ে চোখের জল ধরে রাখতে পারেননি। শো-এর সঞ্চালিকা ভারতী সিং-কে তাঁকে সান্ত্বনা দিতে দেখা যায়। ডান্স দিওয়ানে হাজির হয়ে অনুভূতি কেমন, সেই সম্পর্কে এক দৈনিক সংবাদপত্রকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মীরাবাঈ জানিয়েছেন, ডান্স দিওয়ানের আমন্ত্রণ পেয়ে হাজির হতে পেরে তিনি দারুণ খুশি। শো-তে আসতে পারবেন, মাধুরী দীক্ষিতের সঙ্গে দেখা করবেন, সেকথা কখনো তিনি ভাবতেই পারেননি বলে জানিয়েছেন। 

পাশাপাশি অলিম্পিক্সে পদকজয়ী মীরাবাঈ আরও বলেন, ‘আমি মাধুরীর বড় ভক্ত। আমি নাচতেও ভালবাসি। ডান্স দিওয়ানে টিমের তরফ থেকে দারুণ চমক ছিল। ওঁরা আমার জন্য পিৎজা অর্ডার করেছিল। দারুণ আনন্দ করে আমরা সেটা খেয়েছি। প্রতিযোগীদের জন্য আমার একমাত্র বার্তা নিজেদের সেরা দিয়ে তাঁদের এগিয়ে যাওয়া উচিত। কঠোর পরিশ্রম ফল দেয়। কঠোর পরিশ্রম চালিয়ে যাও এবং ভারতকে গর্বিত করো’।

মীরাবাঈয়ের তাঁর সবথেকে পছন্দের প্রতিযোগির নাম বলেছেন গুঞ্জন। এবং তিনি তাঁর সমস্ত নাচ দেখেন। বিশেষ পর্বে ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেট অধিনায়ক কপিল দেব, মহিন্দর অমরনাথ, অলিম্পিক্সে যোগ্যতা অর্জনকারী প্রথম ভারতীয় ফেন্সার ভবানী দেবী এবং কুস্তিগীর প্রিয়া মালিকও উপস্থিত ছিলেন।

 

বন্ধ করুন