৩১ মার্চ পর্যন্ত দিল্লির সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন কেজরিওয়াল
৩১ মার্চ পর্যন্ত দিল্লির সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন কেজরিওয়াল

করোনা আতঙ্ক: দিল্লির সব প্রেক্ষাগৃহে তালার নির্দেশ, পিছিয়ে গেল সূর্যবংশীর মুক্তি

৩১ মার্চ পর্যন্ত দিল্লির সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। এই সময়কালের মধ্যেই মুক্তি পাচ্ছে আংরেজি মিডিয়াম। তাই ক্ষতির মুখে বলিউড।পিছিয়ে গেল সূর্যবংশীর রিলিজ।

করোনা আতঙ্কে জর্জরিত বলিউড। ভারতে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এখনও পর্যন্ত ৭৩। করোনা সন্দেহে চিকিত্সাধীন কয়েকশো। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাসকে আন্তর্জাতিক মহামারী বলে ঘোষণা করে দিয়েছে। দিল্লিতেও ৬ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাই উদ্বিগ্ন দিল্লির সরকার। ৩১ মার্চ পর্যন্ত দিল্লির সব প্রেক্ষাগৃহ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। বন্ধ থাকবে স্কুল-কলেজও। অন্যদিকে সেই পরিপ্রেক্ষিতে পিছিয়ে গেল অক্ষয় কুমারের সূর্যবংশীর মুক্তি।

করোনার প্রভাবে বিরাট আর্থিক ক্ষতির মুখে বলিউড। হোমি আদাজানিয়ার আংরেজি মিডিয়াম মুক্তি পাচ্ছে শুক্রবার। রোহিত শেট্টির বিগ বাজেট কপ ফিল্ম সূর্যবংশীও মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ২৩ মার্চ। কিন্তু আপাতত সেই ছবির মুক্তি পিছিয়ে গেল। প্রযোজকরা জানিয়েছেন যে দর্শকদের স্বাস্থ্য সবার আগে। সঠিক সময়ে সূর্যবংশী ছবি রিলিজ পাবে বলে জানানো হয়েছে, যদিও পরিবর্তিত তারিখ ঘোষণা করা হয়নি।

অন্যদিকে দিল্লিতে সিনেমা রিলিজ হবে না, কেজরিওয়ালের এই সিদ্ধান্তের জেরে প্রযোজক এবং ডিস্ট্রিবিউটাররা ক্ষতির মুখে পড়বে বলে মেনে নিয়েছেন ফিল্ম সমালোচক তরণ আদর্শ।তিনি বলেছেন যে দিল্লি একটা বড় বাজার বলিউড ছবির। এখানে কোটি কোটি টাকার প্রশ্ন জড়িয়ে রয়েছে। দিল্লিকে ছাড়া বলিউড ছবি মুক্তি পাবে কী করে!

মাল্টিপ্লেক্স চেন পিভিআরের তরফে জানানো হয়েছে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

আংরেজি মিডিয়াম প্রথম হিন্দি ছবি হতে চলেছে যা করোনার জেরে বিরাট ক্ষতির মুখে পড়বে। ছবির মুক্তিতে আর মাত্র কয়েকঘন্টা বাকি, যখন দিল্লি সরকারের এই সিদ্ধান্ত সামনে এসেছে।

মানুষের স্বাস্থ্য নিঃসন্দেহে সবচেয়ে জরুরি তবে প্রেক্ষগৃহ পুরোপুরি বন্ধ রাখার নির্দেশ সমস্যা সমাধানের উপায় হতে পারে না বলেই মনে করছেন ফিল্ম এক্সিবিটার অক্ষয় রাঠি। পাশাপাশি দিল্লির সিদ্ধান্ত অনান্য রাজ্যকেও প্রভাবিত করবে বলে আশঙ্কায় রয়েছেন রাঠি। তিনি বলেন, করোনা মোকাবিলায় 'সার্জিক্যাল স্ট্রাইক দরকার, নিউক্লিয়ার বিস্ফোরণ নয়'।

তরণ আদর্শ জানিয়েছেন, শুধু দিল্লি নয় বিদেশের বাজারও প্রভাবিত হবে করোনা আতঙ্কের জেরে। যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, দুবাইতে ভারতীয় ছবির বিরাট বাজার রয়েছে তবে করোনার জেরে সেই বাজারও প্রভাবিত হবে বলেই বিশ্বাস ট্রেড অ্যানালিস্টদের।



বন্ধ করুন