বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > দেশের মাটির শেষ সপ্তাহ! এদিকে ‘নোয়া’ শ্রুতির উপর থেকে রাগ কমছে না মাম্পি-ভক্তদের
শ্রুতি দাস (ছবি ইনস্টাগ্রাম)
শ্রুতি দাস (ছবি ইনস্টাগ্রাম)

দেশের মাটির শেষ সপ্তাহ! এদিকে ‘নোয়া’ শ্রুতির উপর থেকে রাগ কমছে না মাম্পি-ভক্তদের

  • ফের একবার সোশ্যাল মিডিয়ায় কটাক্ষ করা হল শ্রুতিকে।

স্টার জলসার অন্যতম বিতর্কিত ধারাবাহিক নিসন্দেহে ‘দেশের মাটি’। যদিও সেই ধারাবাহিক শেষের পথে। চলতি সপ্তাহেই শেষ সম্প্রচার। কিন্তু তাও যেন ধারাবাহিকের নায়িকা চরিত্র ‘নোয়া’ শ্রুতির ওপর থেকে রাগ কমছে না দর্শকের। ফের একবার সোশ্যাল মিডিয়ায় কটাক্ষ করা হল শ্রুতিকে। 

ধারাবাহিকে প্রথম থেকেই নোয়া-কে অপছন্দ করেন দর্শকরা। বরং, ধীরে ধীরে জনপ্রিয়তা পেতে থাকে ‘মাম্পি’ রুকমা রায়। মাম্পির সঙ্গে তুলনা টানা হতে থাকে শ্রুতির। কখনও গায়ের রং তুলে কটাক্ষ, কখনও অভিনয় পারে না বলে-- সোশ্যাল মিডিয়ায় হেনস্থা চলতেই থাকে।

নোয়াকে নিয়ে কটাক্ষ সোশ্যাল মিডিয়ায়। 
নোয়াকে নিয়ে কটাক্ষ সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

সম্প্রতি ‘দেশের মাটি’র সেটে তোলা একটি ছবি শেয়ার করে ফ্যানপেজ থেকে লেখা হয়, ‘এখনো মাম্পির প্রশংসা কেউ করলে নোয়ারানির মুখ ভার হয়, নিজের দোষে নিজের চাকরি হারিয়েছে, এখন আবার দাদুর সুপারিশে চাকরিতে ঢুকবে। অথচ সেই চ্যানেলের মুখ। শেষ সপ্তাহেও তাকেই প্রমোট করা হচ্ছে "নোয়া কি পারবে" লিখে.... এই ভুলগুলোই সিরিয়ালটাকে শেষের দিকে এগিয়ে নিয়ে দিল। এখানও চরিত্রগুলোর মধ্যে সমীকরণ ক্লিয়ার নয়। অনেক জটিলতা এখনও আছে। এমন হঠাৎ করে ধারাবাহিক বন্ধ করার মানে কি?’

নোয়াকে নিয়ে কটাক্ষ সোশ্যাল মিডিয়ায়।
নোয়াকে নিয়ে কটাক্ষ সোশ্যাল মিডিয়ায়।

অর্থাৎ, ‘দেশের মাটি’র ‘নোয়া’কেই দায়ি করা হচ্ছে ধারাবাহিক বন্ধ করার কারণ হিসেবে। ধারাবাহিকের শেষ সময়ে এসেও তা বন্ধ হওয়ার নাম নিচ্ছে না! যদিও এই নিয়ে কখনোই ভাবিত হন না শ্রুতি। নিজের সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ‘কেন এত জলদি ধারাবাহিক বন্ধ হচ্ছে তা জানি না আমি। ধারাবাহিকে যা দেখানো হবে তা পুরোটাই নির্ভর করছে প্রযোজকদের ওপর।’

বন্ধ করুন