বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > টলিউডে আসার আগে বেশ ‘গোলুমোলু’ ছিলেন দেবলীনা! আগের-পরের ছবি দিয়ে চমকে দিলেন

টলিউডে আসার আগে বেশ ‘গোলুমোলু’ ছিলেন দেবলীনা! আগের-পরের ছবি দিয়ে চমকে দিলেন

নিজের ওজন কমানোর ছবি শেয়ার করলেন দেবলীনা সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

দেবলীনা কুমার ভাগ করে নিলেন নিজের আগের ও পরের চেহারার ছবি। আপাতত তা নিয়েই চর্চা সোশ্যাল মিডিয়ায়। 

টলিউডে পা রাখার আগে ওজন ঝরিয়ে ছিপছিপে হয়েছেন দেবলীনা কুমার। নিজের মুখেই সে কথা বহুবার জানিয়েছেন। সঙ্গে ‘মোটা চেহারা’র ছবিও বেশ কয়েকবার শেয়ার করে নিয়েছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। ‘বডি পজিটিভিটি’র বার্তা দিয়েছেন গৌরব চট্টোপাধ্যায়ের পত্নী।

‘Transformation Monday’ ট্যাগে আগের ও পরের ছবি শেয়ার করেছেন দেবলীনা। লিখেছেন, ‘আমি জানি আমাকে আগের ছবিতে মিষ্টি লাগছে। কিন্তু বিশ্বাস করুন এটা এমন একটা জার্নি যার জন্য আমি অনেক পরিশ্রম করেছি আর রোজ করছি।’ সঙ্গে জানান, ‘এখন আমার নিজেকে বেশি ভালো লাগে, কারণ সব রকম পোশাকে এখন আমি আত্মবিশ্বাস পাই।’

ওজন কমানো নিয়ে একবার সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে দেবলীনা জানিয়েছিলেন, তিনি খেতে খুব ভালোবাসেন। তাই খাওয়াদাওয়া কিছুদিন কন্ট্রোল করার পরই বুঝে গিয়েছিলেন সেটা তাঁর দ্বারা সম্ভব নয়। ওজন ঝরাতে গেলে তাঁকে ঘাম ঝরাতে হবে। দেবলীনা জানিয়েছেন, ‘আমি সপ্তাহে ৪-৫ দিন মাটন খাই। তবে অল্প পরিমাণে। বিকেল হলে দুধ চা খাই। আবার মাঝেমধ্যে ইচ্ছা হলে রাতে বিরিয়ানিও খেয়ে ফেলি। এ সব খাওয়ায় কোনও অসুবিধা নেই। মাপ বুঝে ক্যালোরি ঝরিয়ে ফেললেই সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে।’ কড়া নিয়ম মেনে চলেন। বাড়িতেই কিছু মেশিন কিনে একটি ছোট জিম তৈরি করে ফেলেছেন। সেখানেই ঘাম ঝরিয়ে নিজেকে সতেজ রাখছেন অভিনেত্রী। জিম বা শরীরচর্চা করতে হবে বলে করেন না, বরং শরীরচর্চা করতে পছন্দ করেন। তাঁর সাইকেলিং-এর ফোটো তো প্রায় রোজই চোখে পড়ে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় সকলে বেশ প্রশংসা করেছে অভিনেত্রীর। একজন লিখেছেন, ‘রোগা হোক বা মোটা তোমাকে দু'রকম চেহারাতেই ভালো লাগে। আর যত ওজন তুমি কমিয়েছ তা সত্যি প্রশংসা পাওয়ার মতো।’ আরেকজন লিখেছেন, ‘অনেকেই সাহস পাবে না নিজের এরকম ছবি পোস্ট করতে। নিজের উপর ভরসা আর বিশ্বাস থাকলেই সম্ভব।’ তবে কেউ কেউ আবার মনে করছে অভিনেত্রীর লেখা ‘রোগা হওয়ার পর সব পোশাকে আত্মবিশ্বাস পাই’ কথাটা কেউ যেন ভুলভাবে না নেয়! কারও যেন মনে না হয়, রোগা চেহারা ছাড়া পরা যায় না সব পোশাক।

বন্ধ করুন