বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘যে দল শূন্য আসন পেয়েছে তাদের উপর কে অত্যাচার করছে’? দেবলীনার প্রশ্নে চটলেন শ্রীলেখা
দেবলীনার প্রশ্নের জবাব দিলেন শ্রীলেখা
দেবলীনার প্রশ্নের জবাব দিলেন শ্রীলেখা

‘যে দল শূন্য আসন পেয়েছে তাদের উপর কে অত্যাচার করছে’? দেবলীনার প্রশ্নে চটলেন শ্রীলেখা

 বাম শিবিরকে কটাক্ষ করে ফেসবুক পোস্ট দেবলীনা কুমারের। বিধায়ক কন্যার প্রশ্নের ঝাঁঝালো জবাব দিলেন শ্রীলেখা মিত্র। 

বিধানসভা ভোটের ফল বলছে ২০১৬-র চেয়ে দুটি বিধায়ক বেশি নিয়ে একটানা তৃতীয়বারের জন্য বাংলার মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন মমতা। রবিবার সামনে এসেছে রাজ্যের ২৯২ বিধানসভা আসনের ফল, যেখানে ২১৩ আসনে জয় লাভ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। অন্যদিকে এই নির্বাচনে ধুয়ে-মুছে সাফ বাম-কংগ্রেস। একটি আসনও পায়নি এই দুট দল। তাঁদের জোট প্রার্থী আইএসএফ-এর শিকেয় অবশ্য একটি সিট জুটেছে। তবে ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব বাম সমর্থক, তথা বাম নেতারা। 

এই প্রসঙ্গ টেনেই বুধবার ফেসবুকের দেওয়া অভিনেত্রী তথা রাসবিহারীর জয়ী তৃণমূল বিধায়ক দেবাশিস কুমার কন্যা দেবলীনা প্রশ্ন রাখেন- ‘যে দলটি শূন্য আসন পেয়েছে, তাদের উপর আবার কারা অত্যাচার করছে? আর কেনই বা করছে’? দেবলীনা নিজের পোস্টে মনে করিয়ে দিয়েছেন এই মুহূর্তে রাজ্যের বিরোধী পক্ষ বিজেপি। বাম শিবিরকে কটাক্ষ করে দেবলীনা এমনটাও লেখেন- ‘নাকি এরকম ফল করে দুঃখ পেয়ে, ওঁনারা দুঃখে এইসব হ্যালুসিনেট করছেন! কে জানে বাবা ’

দেবলীনার পোস্ট
দেবলীনার পোস্ট

দেবলীনা নিজের পোস্টে কারুর নাম সরাসরি উল্লেখ করেননি, বা নির্দিষ্ট কারুর উদ্দেশেও এই প্রশ্ন রাখেননি। তবে টলিগঞ্জের এই নবাগতাকে জবাব দিতে এগিয়ে আসেন অভিজ্ঞ শ্রীলেখা মিত্র। যিনি বাম সমর্থক হিসাবেই পরিচিত। 

দেবলীনার এই পোস্টের স্ক্রিনশট নিজের ফেসবুকের দেওয়ালে পোস্ট করে পালটা তোপ দাগেন শ্রীলেখা। তিনি বলেন, ‘আমাদের ছেলেমেয়েদের এমনকি মা-ঠাকুমাদের উপর করা অত্যাচার নাকি হ্যালুসিনেট করছি?!!! আমি সি সত্যি এটা দেখলাম নাকি সেটা হ্যালুসিনেশন আমাকে কেউ বোঝাবে?’

দেবলীনা পরবর্তী পোস্টেও সাফ জানিয়েছেন, তিনি সার্বিকভাবে একটি বক্তব্য রেখেছিলেন। সরাসরিভাবে শ্রীলেখা মিত্রর উদ্দেশে কোনও প্রশ্নই রাখেননি। পাশাপাশি শ্রীলেখার সঙ্গে তাঁর রাজনৈতিক মতাদর্শ আলাদা হলেও একজন শিল্পী হিসাবে তাঁকে দেবলীনা সম্মান করেন বলে জানান। লেখেন- উনি আমার চেয়ে অনেক সিনিয়র। ওখানে আমি শিল্পী হিসাবে অত্যন্ত সম্মান করি'। 

দেবলীনা আরও জানিয়েছেন কোনও ভলেন্টিয়ার না হলেও তিনি করোনার বিরুদ্ধে সকলকে সাহায্য করবার যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন। এই কাজে তাঁর বাবা এবং কলকাতা পৌরসভা তাঁকে সাহায্য করছে। ক্ষুদ্র মানুষ হয়েও সকলকে হাসপাতালে বেড জোগাড় করে দেওয়া থেকে অক্সিজেন পৌঁছে দেওয়া কিংবা রেমডিসিভির-এর মতো প্রয়োজনীয় মেডিসিন খুঁজে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছেন, কখনও কখনও ব্যর্থও হয়েছেন। তবে সেইসব তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় জাহির করতে চান না। দেবলীনার এই পোস্টেও যে পরোক্ষভাবে নিশানা করা হয়েছে শ্রীলেখাকে তেমনটাই মত নিন্দুকদের। নিজের পোস্টে মা, দেবযানী কুমারকে ট্যাগ করে দেবলীনা লিখেছেন- ‘মা, এবার থেকে কাউকে সাহায্য করলে ফেসবুকে পোস্ট করবে কারণ করার থেকে আজকাল জাহির করাটা জরুরি’। 

বন্ধ করুন