বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > দুই মেয়ে এষা আর আহানাকে নাচ শেখাতে রাজি ছিলেন না ধর্মেন্দ্র, স্বামীর বিরুদ্ধে গিয়েছিলেন হেমা
মেয়েরা নাচ শিখুক চাননি ধর্মেন্দ্র। 
মেয়েরা নাচ শিখুক চাননি ধর্মেন্দ্র। 

দুই মেয়ে এষা আর আহানাকে নাচ শেখাতে রাজি ছিলেন না ধর্মেন্দ্র, স্বামীর বিরুদ্ধে গিয়েছিলেন হেমা

  • স্বামীর বিরুদ্ধে বহুবার গলা চড়িয়েছেন, এক সাক্ষাৎকারে নিজের মুখেই হেমা জানিয়েছেন সেকথা।

একজন ভালো অভিনেত্রীর পাশাপাশি হেমা মালিনী পরিচিত একজন ভালো নৃত্যশিল্পী হিসেবেও। তিনি একজন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ভরতনাট্যম ডান্সার আর নিজের দুই মেয়ে এষা দেওল ও আহানা দেওলকেও শিখিয়েছেন ক্লাসিক্যাল ডান্স। তবে জানেন কি, ওঁদের বাবা, ধর্মেন্দ্র প্রথমে চাইতেন না এষা আর আহানা নাচ শিখুক। 

২০১১ সালে এক সাক্ষাৎকারে একথা খোলসা করেছিলেন হেমা নিজেই। জানিয়েছিলেন সন্তানদের বড় করার ব্যাপারে তিনি বরাবরই খোলামনের। আর ধর্মেন্দ্র ছিল একটু সেকেলে। রক্ষণশীল পরিবারে বেড়ে উঠেছিলেন। তাই চাইতেন না মেয়েরা নাচ শিখুক, যদিও ধর্মেন্দ্রর এই সিদ্ধান্তের পুরোপুরি বিপক্ষে ছিলেন হেমা। 

‘প্রথমদিকে ওর রক্ষণশীল চিন্তাভাবনা আমাকে আশ্চর্য করে দিত। মেয়েদের বলত ছোট টপ না পরতে, টাইট ফিটিংস জামা না পরতে। আর আমি বলতাম, না তুমি প্রাচীণ যুগে এখনও বাস করছো। মেয়েরা ভালো জামা কাপড় পরবে, মেকআপ করবে, এটা এখনকার দিনে খুব সাধারণ একটা ব্যাপার। মেয়েদের অভিনয়ের জগতে আসা নিয়েও বিরক্তি প্রকাশ করত ধর্মেন্দ্র। তখন আমাকে আসরে নামতে হত। বলতে হত, না তুমি ভুল করছ।’

আহানা আর এষাকে নাচ শেখানো নিয়ে নিজের মতামত জানিয়ে ধর্মেন্দ্র বলেছিলেন, ‘ওদের নাচ শিখিয়ো না, এরপর ওরা অভিনয় করতে চাইবে’! যদিও রুখে দাঁড়িয়ে হেমা জানিয়েছিলেন, ‘না এটা হতে পারে না। তুমি তো ওদের নিজের মতো করে বাঁচতে শিখিয়েছো। আর যদি কোনও সমস্যা হয়, ওরা আমাকে ঢালের মতো পাবে।’

শনিবার ৭৩ বছরে পা দিলেন হেমা। এখন আর সেভাবে টিনসেল টাউনের সঙ্গে যুক্ত নন অভিনেত্রী। বরং, মন দিয়েছেন রাজনীতিতে। সম্প্রতি হাজির হয়েছিলেন পরিচালক রমেশ সিপ্পির সঙ্গে কৌন বনেগা ক্রড়োরপতির সেটে। 

বন্ধ করুন