বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘দৌড়’ ছবিতে ৩৫ হাজার টাকার রোল পেতে ইরফান খানের সঙ্গে লড়াই করেছিলেন মনোজ!
লড়াইতে জিতে যান মনোজ বাজপেয়ী!
লড়াইতে জিতে যান মনোজ বাজপেয়ী!

‘দৌড়’ ছবিতে ৩৫ হাজার টাকার রোল পেতে ইরফান খানের সঙ্গে লড়াই করেছিলেন মনোজ!

  • পরেশ রাওয়ালের ডানহাত হতে অডিশন দিতে গিয়েছিলেন মনোজ।রাম গোপাল বর্মা শুরুতে এক্কেবারেই এই চরিত্রে নিতে চাননি তাঁকে, কেন জানেন? 

ভারতীয় চলচ্চিত্রের দুই ভার্সাটাইল অভিনেতা ইরফান খান ও মনোজ বাজপেয়ী। দুইজনের অভিনয় যে কোনও ছবিতে অন্য মাত্রা যোগ করে এসেছে বছরের পর বছর। ইরফান খানকে অকালে হারিয়ে ফেলার ধাক্কা এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেনি সিনেপ্রেমীরা। তিনদিন আগেই ‘আংরেজি মিডিয়াম’ তারকার প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আমরা পার করেছি।'ব্যান্ডিট কুইন', 'সত্য','পিনজর'-এর মতো ছবির অভিনেতা মনোজ বাজপেয়ী একসময় রামগোপাল বর্মার একটি ছবিতে সহ-অভিনেতার চরিত্র পেতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন ইরফান খানের সঙ্গে। এই তথ্য নিজের মুখেই জানিয়ে ছিলেন মনোজ তিওয়ারি। 

রামগোপাল বর্মা-র ‘দৌড়’ (Daud) ছবিতে একটি সাপোর্টিং রোলের জন্য অডিশন দিয়েছিলেন ইরফান খান, বিনীত কুমার এবং মনোজ তিওয়ারি। এই তথ্য ২০১৮ সালে এক সাক্ষাত্কারে ফাঁস করেন ইরফান। ১৯৯৭ সালে মুক্তি পাওয়া RGV-র এই ছবিতে লিড রোলে অভিনয় করেছিলেন সঞ্জয় দত্ত ও উর্মিলা মাতোন্ডকর। দৌড়ে পরেশ রাওয়ালের সহকারী পুষ্করের সেই চরিত্রের মূল্য ছিল ৩৫ হাজার টাকা। হ্যাঁ, রোলটি ঝুলিতে পুরতে পারলে এই অঙ্কটি পারিশ্রমিক হিসাবে পেত সেই অভিনেতা। 

‘ দৌড় ছবিতে পরেশ রাওয়ালের ডানহান হতে আমাদেরকে প্রাথমিকভাবে বেছে নেওয়া হয়েছিল। কানন আইয়ার, যিনি এক থি ডায়েন বানিয়েছিলেন তিনি ব্যান্ডিট কুইনে শেখর কাপুরের সহকারী ছিলেন। রাম গোপাল বর্মার জন্য উনিই দৌড় ছবি লিখছিলেন। উনি বললেন, ইরফান এবং বিনীতকে ডাকা হয়েছে চরিত্রটার জন্য, পরেশ রাওয়ালের ডানহানের চরিত্র। কিন্তু যদি তোমায় দেখে উনি প্রভাবিত হয়ে যান, তবে পরের ছবিতে হয়ত বড় কোও চরিত্র পাবে। চরিত্রটা পেলে ৩৫ হাজার টাকা পাবে’, লল্লনটপ-কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে একথা জানান মনোজ বাজপেয়ী। 

মনোজ আরও বলেন, অডিশনের জন্য পৌঁছে তিনি দেখেন ইরফান ও বিনীত আগেই পৌঁছে গিয়েছিল। দুজনের সঙ্গে কথাবার্তা হওয়ার পর তাঁর নম্বর এল সব শেষে। মনোজ জানান, 'আমাদের কথা শুরু হল, আমি বললাম ব্যান্ডিট কুইনের সঙ্গে আমার যাত্রা শুরু। উনি (রাম গোপাল বর্মা) বললেন, আমি দু-বার ব্যান্ডিট কুইন দেখেছি, তুমি কোন চরিত্রটা করেছো? আমি বললাম- মান সিং-এর চরিত্রটা। উনি বিশ্বাস করতে চাইলেন না। বললেন- সত্যি কথা বলছো? তুমি এত তরুণ, সুদর্শন পুরুষ…তুমি? আমি পালটা বললাম- আমি নিজেকে তৈরি করেছিলাম স্যার। দাড়ি রেখেছিলাম, একটু বুড়োটে ভাব এনেছিলাম'। 

‘সত্য সেটে মনোজ-রামগোপাল বর্মা (ছবি-টুইটার) 
‘সত্য সেটে মনোজ-রামগোপাল বর্মা (ছবি-টুইটার) 

এরপর মনোজ বাজপেয়ীকে দৌড়-এর কথা ভুলে যেতে বলেন রাম গোপাল বর্মা। বলেন, আমি তোমাকে নিয়ে পরের ছবি তৈরি করব। এটা তোমার জন্য নয়'। কিন্তু নাছোড়বান্দা ছিলেন মনোজ, কারণ ৩৫ হাজার টাকার পারিশ্রমিকটা খুব জরুরি ছিল তাঁর জন্য। রামগোপাল বর্মা, এরপর মনোজকে জানান, 'তুমি কি আমায় বিশ্বাস করছো না? দৌড়-এর পর আমি একটা তেলুগু ছবি তৈরি করতাম। সেটা আর করব না। পরের হিন্দি ছবিতেই ফোকাস করব। তুমি একটা কাহিনিকার খুঁজে এনে দাও'। 

শুধু দৌড়-এ ৩৫ হাজারের পুষ্করের চরিত্রটি নয়, রাম গোপাল বর্মার পরের ছবি ‘সত্য’-র লিড হিরোর রোলটিও এইদিনই ঝুলিতে পুরেছিলেন মনোজ বাজপেয়ী। 

এরপর মনোজ বাজপেয়ীকে দৌড়-এর কথা ভুলে যেতে বলেন রাম গোপাল বর্মা। বলেন, আমি তোমাকে নিয়ে পরের ছবি তৈরি করব। এটা তোমার জন্য নয়'। কিন্তু নাছোড়বান্দা ছিলেন মনোজ, কারণ ৩৫ হাজার টাকার পারিশ্রমিকটা খুব জরুরি ছিল তাঁর জন্য। রামগোপাল বর্মা, এরপর মনোজকে জানান, 'তুমি কি আমায় বিশ্বাস করছো না? দৌড়-এর পর আমি একটা তেলুগু ছবি তৈরি করতাম। সেটা আর করব না। পরের হিন্দি ছবিতেই ফোকাস করব। তুমি একটা কাহিনিকার খুঁজে এনে দাও'। 

শুধু দৌড়-এ ৩৫ হাজারের পুষ্করের চরিত্রটি নয়, রাম গোপাল বর্মার পরের ছবি ‘সত্য’-র লিড হিরোর রোলটিও এইদিনই ঝুলিতে পুরেছিলেন মনোজ বাজপেয়ী। 

|#+|

 

বন্ধ করুন