বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > টাইগারের হ্যান্ডসাম লুকের পিছনে রয়েছে তুর্কি ও বেলজিয়াম কানেকশন! জানেন?
দিদিমা এবং ঠাকুমার সঙ্গে টাইগার শ্রফ
দিদিমা এবং ঠাকুমার সঙ্গে টাইগার শ্রফ

টাইগারের হ্যান্ডসাম লুকের পিছনে রয়েছে তুর্কি ও বেলজিয়াম কানেকশন! জানেন?

  • জন্মদিনে ‘বাগী’ অভিনেতার পরিবারের অজানা গল্প সম্পর্কে জানুন।

২০১৪ সালে ‘হিরোপন্তি’ ছবি দিয়ে বলিউডে যাত্রা শুরু করেন অভিনেতা টাইগার শ্রফ। তাঁর আসল নাম জয় হেমন্ত শ্রফ। বলিউডে পথ চলা শুরুর পর থেকেই একের পর এক ছবি করে গিয়েছেন তিনি। বাগী' সিরিজের দুটি ছবিই ব্লকবাস্টার হিটের তকমা পেয়েছে। ১৯৯০ সালের ২ মার্চ জন্ম হয় বলিউড তারকা জ্যাকি শ্রফ ও আয়েশা শ্রফের ছেলে টাইগারের। ৩১-এ পা দিলেন টাইগার শ্রফ। অভিনেতার জন্মদিনে পিছন ফিরে দেখা যাক।

বলিউডে পথ চলা শুরু হতেই নানা ট্রোলের সম্মুখীন হতে হয় টাইগার শ্রফকে। তাঁর মুখের গঠন ভারতীয় পুরুষদের গড়নের থেকে একটু আলাদা। সেই নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে নানা ট্রোলের মুখোমুখি হতে হয় তাঁকে। এমনকি করিনা কাপুর খানের সঙ্গে তাঁর মুখের অনেকটাই মিল রয়েছে সেই ছবিও সামাজিক মাধ্যমে ঘুরতে দেখা যায়।

ট্রোলের শিকার টাইগার (ছবি টুইটার)
ট্রোলের শিকার টাইগার (ছবি টুইটার)

বিষয়টিকে পুরোপুরি হাসির ছলে নিয়েছিলেন অভিনেতা। হিন্দুস্তান টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে করিনার সঙ্গে তাঁর মুখের মিল নিয়ে ভাইরাল ছবি সম্পর্কে টাইগারকে প্রশ্ন করা হয়েছিল। তিনি জানিয়েছিলেন, ‘হ্যাঁ আমি ওটা দেখেছি। এটা একটু হাস্যকর। করিনা কাপুর খানের মতো সুন্দরী মহিলার সঙ্গে আমার তুলনা করা হলে সেটাকে আমি প্রশংসা হিসেবেই নিলাম। তিনি প্রচণ্ড সুন্দরী এবং দিনের শেষে সুন্দর তো সুন্দরই হয়’।

‘হিরোপন্তি’ ছবিতে টাইগারের অন্য একটি লুক নজরে এসেছিল। তাঁর অসাধারণ শারীরিক গঠন এবং অ্যাকশন দৃশ্যে তাঁর চমকপ্রদ স্টান্ট, তাঁর ফ্লেক্সিবেল শরীর দারুণ আকর্ষন করেছিল দর্শকদের।

বলিউডে পা রাখার দু’বছর পর থেকেই অভিনেতাকে হলিউডের ব়্যাম্বোর সঙ্গে তুলনা করতে শুরু করেন দর্শকরা। তবে তাঁর লুক? তাঁর পিছনে লুকিয়ে রয়েছেন টাইগারের পরিবারিক গল্প।

অভিনেতা জ্যাকি শ্রফ এবং প্রাক্তন মডেল আয়েশা শ্রফের বড় ছেলে টাইগার শ্রফ। কিন্তু অনেকেই জানেন না জ্যাকি এবং আয়েশা দুজনের মা-ই ভারতীয় বংশোদ্ভূত নন। 

জ্যাকির মা তুর্কির কাজাকিস্তানের এবং আয়েশার মা বেলজিয়ামের বাসিন্দা ছিলেন। জ্যাকির বাবা কাকুভাই শ্রফ গুজরাটের মানুষ। অন্যদিকে আয়েশার বাবা বাঙালি। তিনি ভারতীয় বায়ু সেনার এয়ার ভাইস মার্শালের পদে নিযুক্ত ছিলেন।

২০১৫ সালে পিটিআইকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জ্যাকি জানিয়েছিলেন তিনি তাঁর মায়ের ওপর একটি ডকুমেন্টারি করতে চান। তিনি বলেন, ‘আমি আমার মায়ের কাছ থেকে গল্প শুনেছি কীভাবে তিনি তাঁর পরিবারের সঙ্গে মধ্যে এশিয়ার দ্বীপ শহর থেকে মুম্বইতে এসে পৌঁছান। তাঁর একটি দারুণ গল্প রয়েছে এবং সেটাকে আমি পর্দায় তুলে ধরতে চাই। আমি সেটাকে নিয়ে কাহিনি লিখতে চাই। যদি সেটা সম্ভব না হয় তবে সেটার ডকুমেন্টারি করতে চাই’।

টেলিগ্রাফকে দেওয়া অপর একটি সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছিলেন, তাঁর জীবনের সবথেকে বড় পূণ্য তিনি ধৈর্য ধরা শিখেছিলেন। তিনি আরও বলেন, ‘আমার বাবা গুজরাটের কাথিওয়ারের রাজকোটের মানুষ ছিলেন। অন্যদিকে আমার মা তুর্কিস্তানের মানুষ ছিলেন। যেটা সোভিয়েত রাশিয়া অংশ ছিল। দুজনের একে অপরের বাড়ি বহুদূরে থাকা সত্ত্বেও কোনো সমস্যা ছিলনা। তাঁরা একে অপরকে ভালবাসতেন, সম্মান করতেন, মূল্যবোধ দিতেন’।

রাজ্যসভা টিভিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জ্যাকি জানিয়েছিলেন, কীভাবে তাঁর মায়ের পরিবার কাজাকিস্তান থেকে ভারতে আসে। তিনি বলেছিলেন, ‘ওঁনাদের ওখানে আচমকা অভ্যুত্থান ঘটেছিল। আমার মা তুর্কির মানুষ ছিলেন। সেই সময় কাজাকিরা হামলা করতে আসত। সেই সময় তাঁরা বাচ্চাদের এমনকি আমার মা ও গায়ে আদা বাঁটা লাগিয়ে রেখেছিল। সেনারা আসলে তাঁদের দেখে ভেবেছিল কুষ্ঠরোগী। তাই তাঁদের সেই সময় ছেড়ে দিয়েছিল... এভাবে সাত জন বাচ্চা এবং বেশ কিছু মহিলা বেঁচে গিয়েছিল। এরপরই তাঁরা লাদাখে চলে এসেছিল’।

এরপরই তাঁদের পরিবার লাহোরে থাকতে শুরু করে। পরে দিল্লি হয়ে মুম্বইতে পাড়ি দেন। এবং সেখানে এসে তাঁর মা এবং বাবার সাক্ষাৎ হয়, তাঁরা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। একই সাক্ষাৎকারে বাবা সম্পর্কে বলতে গিয়ে জ্যাকি জানান, তাঁর বাবা স্টর ট্রেডিং পরিবারের হয়েও পেশায় জ্যোতিষী ছিলেন। লেনদেনে সব টাকা পয়সা খুইয়ে তিনি বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান। এরপরই তাঁর বাবা-মায়ের দেখা হয় এবং তাঁরা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। 

অন্যদিকে, আয়েশার পরিবারে তাঁর বাবা রঞ্জন দত্ত ভারতীয় বায়ু সেনায় কর্মরত ছিলেন। বেলজিয়াম মহিলা ক্লউডিয়া মেরি দত্ত দে ক্যাভে-কে তিনি বিয়ে করেন। টাইগারের বোন কৃষ্ণা শ্রফের গালের দুপাশের উঁচু হাড় সম্পর্কে ধারণা করলেই বোঝা যায় তাঁর পিছনে রয়েছে এই কারণ। 

বন্ধ করুন