বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বাবার প্রথম বাৎসরিকেই নন্দনে স্ক্রিনিং হল পরিচালক শ্রীলেখার ছবি ‘এবং ছাদ’-এর
বুধবার নন্দনে দেখানো হল ‘এবং ছাদ’।

বাবার প্রথম বাৎসরিকেই নন্দনে স্ক্রিনিং হল পরিচালক শ্রীলেখার ছবি ‘এবং ছাদ’-এর

  • ‘এবং ছাদ’-এর পরিচালনা, প্রযোজনা, অভিনয় সবকিছু করেছেন শ্রীলেখা। আর বাবার প্রথম মৃত্যুবার্ষীকির দিনই তা দেখানো হল নন্দনে। 

প্রযোজক হিসেবে হাতেখড়ি শ্রীলেখার এই ছবি দিয়ে। এটির পরিচালনাও করেছেন তিনি। কথা হচ্ছে ‘এবং ছাদ’-এর। এর আগেও নন্দনে একবার এই ছবির স্ক্রিনিংয়ের কথা হয়েছিল। তবে বিশেষ কারণে শেষ মুহূর্তে এসে তা আর হয়ে ওঠেনি। তবে শেষমেশ নন্দনে যেদিন এই ছবিটা দেখানো হল, সেদিন ছিল অভিনেত্রীর বাবার এক বছরের মৃত্যুবার্ষীকি। 

‘এবং ছাদ’-এ অভিনয়ও করেছেন শ্রীলেখা। এই নিয়ে তাঁর দ্বিতীয় পরিচালনা এটা। এর আগে ‘বিটার হাফ’ নামে একটি সিনেমা পরিচালনা করেছিলেন। যার স্ক্রিনিং হয়েছিল বেঙ্গালুরু ও ঔরঙ্গাবাদের চলচ্চিত্র উৎসবে। সেরা ছবি ও সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারও পেয়েছিলেন তিনি। 

সকালে একটা পোস্ট করেছিলেন অভিনেত্রী ফেসবুকে। যাতে বাবার কাজের ছবি দিয়েছিলেন তিনি। সঙ্গে ছিল ভাইও। লিখেছিলেন, ‘২৫ সেপ্টেম্বর বাবা চলে গিয়েছিল আগের বছর। তিথি অনুসারে আজ একবছরের কাজ। পিতৃপক্ষেই পিতার কাজ আর আজ অদ্ভুতভাবে আমার পরিচালিত ছবি নন্দনে। এটা কাকতালীয় না অন্য কিছু?’

বাবাকে নিয়ে এর আগেও একধিক পোস্ট শেয়ার করেছেন শ্রীলেখা। তিনি বারবরই বাবার খুব আদুরে। আজও খুব মন খারাপ হলে বাবাকেই প্রথম মনে পড়ে। আসলে সব মেয়েরাই যে বাবার এরকমই কাছের হয়। এক বাংলা সংবাদমাধ্যমকে শ্রীলেখা জানালেন, ‘আসলে বাবা তো শুধু আমার বাবা ছিলেন না, ছিলেন বন্ধুও। আজ যদি বাবা বেঁচে থাকতেন কী যে খুশি হতেন কাউকে বলে বোঝাতে পারব না।’

বুধবার সকালে বাবার বাৎসরিকের কাজ সেরে, বিকেলে প্রিমিয়ারে যান শ্রীলেখা। নিসন্দেহে একটা অন্যরকম দিন ছিল ওটা ত

বন্ধ করুন