বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Poonam Pandey: স্বামীর হাতে মার খেয়ে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ, গন্ধ শোঁকার ক্ষমতা হারিয়েছিলেন পুনম!
পুনম পাণ্ডে এবং তাঁর স্বামী (ছবি সৌজন্য টুইটার @iPoonampandey এবং ইনস্টাগ্রাম poonampandeyoffiicial)
পুনম পাণ্ডে এবং তাঁর স্বামী (ছবি সৌজন্য টুইটার @iPoonampandey এবং ইনস্টাগ্রাম poonampandeyoffiicial)

Poonam Pandey: স্বামীর হাতে মার খেয়ে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ, গন্ধ শোঁকার ক্ষমতা হারিয়েছিলেন পুনম!

  • ‘লক আপ’ থেকে বেরিয়েই প্রাক্তন স্বামীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক পুনম পাণ্ডে। বরের হাতে মারধর খেয়ে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছিল পুনমের, এর জেরে নাকি কোনওরকম গন্ধই পেতেন না এই মডেল-অভিনেত্রী। 

‘লক আপ’ থেকে বেরিয়েই প্রাক্তন স্বামীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক পুনম পাণ্ডে। ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন পুনম ও স্যাম। তবে হানিমুনে গিয়েই স্বামীর বিরুদ্ধে গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ আনেন পুনম পাণ্ডে। এমনকী গোয়া পুলিশের হাতে গ্রেফতারও হয়েছিলেন স্যাম বম্বে। মাস কয়েকের মধ্যেই ভেঙে যায় এই বিতর্কিত বিয়ে।

কঙ্গনা রানাওয়াতের রিয়ালিটি শো ‘লক আপ’-এর মঞ্চে দাঁড়িয়েই পুনম বলেছিলেন স্বামীর মারধরের ফলে মস্তিষ্কে গুরুতর আঘাত পান তিনি। এমনকী ব্রেন হ্যামারেজ পর্যন্ত হয়েছিল। এবার এক সাক্ষাত্কারে এই অ্যাডাল্ট মডেল অভিযোগ করলেন, মস্তিষ্কে আঘাত লাগার কারণে গন্ধ শোঁকার ক্ষমতা পুরোপুরি হারিয়ে ফেলেছিলেন তিনি।

ইটাইমসকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে তিনি বলেন, ‘আমি কোনও জিনিসের গন্ধ পেতাম না। যখন আমার সঙ্গে গার্হস্থ্য হিংসার ঘটনা ঘটেছিল আমি পুরোপুরিভাবে গন্ধ শোঁকবার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছিলাম। ওটা ব্রেন হ্যামারেজের সঙ্গে জড়িত ছিল। কিন্তু সত্যি বলতে আমি এখন মানসিকভাবে এবং শারীরিকভাবে অনেক মজবুত’।

স্যামের বিরুদ্ধে গার্হস্থ্য হিংসার অভিযোগ এনেছিলেন বিয়ের কয়েক সপ্তাহ পরেই। ২০২০ সালের সেপ্টেম্বর মাসে বিয়ের পর্ব সারেন দুজনে। তিনি ফের একবার জানান, কুকুরদের ভালোবাসার জন্যও স্বামীর হাতে বেধড়ক মার খেতে হত তাঁকে। পুনমের প্রশ্ন, ‘আপনারাই বলুন কুকুরকে ভালোবাসার জন্য ব্রেন হ্যামারেজের শিকার কেন হতে হবে আমাকে?’

পুনম আরও বলেন তাঁর মস্তিষ্কের চোট পুরোপুরি মোটেই সারেনি, কারণ আঘাত পাওয়া জায়গাতেই স্যাম বারবার ফের মারত। একা অনেক ভালো আছেন তিনি, বলেন পুনম পাণ্ডে।

বন্ধ করুন