বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > বিচ্ছেদের গুঞ্জনের মাঝে নাচ আর বেড়ানো মীনাক্ষীর, ইচ্ছাকৃত অন্তরালে কি দুর্নিবার
২০১৭ রেজিস্ট্রি বিয়ে করেছিলেন দুর্নিবার-মীনাক্ষী।

বিচ্ছেদের গুঞ্জনের মাঝে নাচ আর বেড়ানো মীনাক্ষীর, ইচ্ছাকৃত অন্তরালে কি দুর্নিবার

  • অনেক সময় মুখে যা বলা যায় না, তা নানা পোস্টার আকারে ভেসে ওঠে ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুকে। আর তারকা হলে তো কথাই নেই। বেশ কিছু ক্ষেত্রে তাঁদের মান-অভিমানের আভাস পাওয়া যায় নেটমাধ্যম থেকে। কিন্তু এ বার যেন উলট পুরাণ

ব্যক্তিজীবন টালমাটাল। তাঁদের বিচ্ছেদের গুঞ্জনে উত্তাল টলিপাড়া থেকে অনুরাগীমহল। কিন্তু এ বিষয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন দু'জনেই। দুর্নিবার সাহা এবং মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়। প্রথম জন ফোনে অধরা। নেটমাধ্যমে স্পন্দনহীন তাঁর যাবতীয় অ্যাকাউন্ট। দ্বিতীয় জন যদিও ব্যতিক্রম। ফোন তুলে তিনি বলেছিলেন, 'মন্তব্য করব না'। আর নেটমাধ্যম? দেখে মনে হয় সবই যেন স্বাভাবিক। ঘটেনি কিছুই।

অনেক সময় মুখে যা বলা যায় না, তা নানা পোস্টার আকারে ভেসে ওঠে ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুকে। আর তারকা হলে তো কথাই নেই। বেশ কিছু ক্ষেত্রে তাঁদের মান-অভিমানের আভাস পাওয়া যায় নেটমাধ্যম থেকে। কিন্তু এ বার যেন উলট পুরাণ। ব্যক্তি জীবনের টানাপড়েন, বিতর্কের মাঝেই ইনস্টাগ্রামে একের পর এক পোস্ট মীনাক্ষীর। কিন্তু সেখানে মনকেমনের 'ম'টুকুও বা মিলল কোথায়! মিলল উচ্ছ্বাস, আনন্দ।

রবিবার একটি ভিডিয়ো দিয়েছেন মীনাক্ষী। 'ভালোবেসে সখী নিভৃতে যতনে'র তালে নাচতে দেখা গিয়েছে তাঁকে। সঙ্গী দিয়াশা মুখোপাধ্যায়।

মীনাক্ষী জানান, মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে নাচটি তুলে, যাবতীয় পরিকল্পনার পর এই ভিডিয়োটি তৈরি করা হয়েছে। এখানেই শেষ নয়। দিন দুয়েক আগেই তিনি মৌসুনী দ্বীপে অবসর যাপনের ছবি দিয়েছিলেন। কখনও জনহীন সৈকত, কখনও বা ভুরিভোজের মুহূর্তকে লেন্সবন্দি করে ভাগ করে নিয়েছেন সকলের সঙ্গে।

অন্য দিকে, ইনস্টাগ্রামে দুর্নিবারের শেষ পোস্ট গত নভেম্বর মাসে। ফেসবুকেও ১০ জুনের পর থেকে আর কোনও কিছু পোস্ট করেননি তিনি। উল্লেখ্য, তাঁদের বিবাহবিচ্ছেদের গুঞ্জন নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক সেই দিন থেকেই। তবে কি ইচ্ছে করেই নিজেকে অন্তরালে রাখছেন দুর্নিবার? বিতর্ক থেকে দূরে রাখতে চাইছেন নিজেকে? উত্তর অজানা।

বন্ধ করুন