বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > শরীরে খারাপ স্পর্শ,এক ব্যক্তিকে কষিয়ে চড় মারেন ফতিমা! পালটা ঘুষিতে জ্ঞান হারান
ফাতিমা সানা শেখ 
ফাতিমা সানা শেখ 

শরীরে খারাপ স্পর্শ,এক ব্যক্তিকে কষিয়ে চড় মারেন ফতিমা! পালটা ঘুষিতে জ্ঞান হারান

  • পরিবারই তাঁর জীবনের সবচেয়ে বড় সাপোর্ট সিস্টেম। বাবাই তাঁর হিরো। আর কী বললেন ফতিমা? 

আক্ষরিক অর্থেই তিনি দঙ্গল গার্ল। অন্যায়ের প্রতিবাদে সর্বদাই এক পা বাড়িয়ে থাকেন ফতিমা সানা শেখ। তবে এর জেরে কঠিন পরিস্থিতিতেও পড়তে হয়েছে অভিনেত্রীকে। সম্প্রতি বিষাক্ত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়বার ঘটনা নিয়ে মুখ খুলেছেন আমির খানের দঙ্গল ছবির নায়িকা। এবার তিনি জানালেন জীবনের সব কঠিন পরিস্থিতি তাঁর পরিবার কীভাবে তাঁর পাশে থেকেছে। পরিবারকেই নিজের সবচেয়ে বড় সাপোর্ট সিস্টেম বলে অভিহিত করেন ফতিমা। বাবাই ফাতিমার চোখে জীবনে দেখা সবচেয়ে শক্তিশালী ব্যক্তিত্বের অধিকারী পুরুষ। 

বাবার সাহাসিকতা ও ব্যক্তিত্বের প্রশংসা করতে গিয়ে এক ঘটনার কথা জানান ফাতিমা। তিনি বলেন, কীভাবে এক ব্যক্তির পিছু ধাওয়া করেছিল তাঁর বাবা। জিম থেকে ফিরছিলেন ফতিমা, এরপর এক অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি খারাপ চাউনিতে দেখছিল তাঁকে এবং এরপর অশ্লীল টিপ্পনিও করে। 

ফতিমা বলেন, এরপর কথাকাটাকাটিতে জড়িয়ে পড়েন তিনি। ক্রমেই খারাপের দিকে যাচ্ছিল এই ঝামেলা। ফাতিমা এরপর থাকে কষিয়ে চড় মারবার হুমকি দেন। এর মাঝে সেই ব্যক্তি অভিনেত্রীর গায়ে হাত দিলে পালটা চড় মারেন তিনি। সেই লোকটিই তারপর ফাতিমার মুখে সজোড়ে ঘুষি মারে। আঘাতের জেরে কিছু সময়ের জন্য জ্ঞান হারিয়েছিলেন ফতিমা। 

এরপর ফোন করে বাবাকে সব ঘটনা বলেন ফাতিমা। এরপর দু-তিন জন লোক নিয়ে এসে সেই লোকটিকে পিটিয়ে ছিলেন ফাতিমার বাবা। অভিনেত্রী বলেন, লোকটির পিছু ধাওয়া করে তাঁর বাবা-দাদারা উচিত শিক্ষা দেয়। 

ফতিমা খুব অল্প বয়স থেকেই ছবিতে অভিনয় করছেন। চাইল্ড আর্টিস্ট হিসাবে বহু ছবিতে, ক্যামার্শিয়ালে কাজ করেছেন তিনি। বক্স অফিসে তাঁর শেষ রিলিজ ছিল ‘সূরজ পে মঙ্গল ভারি', যা একেবারেই মুখ থুবড়ে পড়ে। তবে নেটফ্লিক্সে সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত ‘অজিব দাস্তানস’ দেখা গিয়েছে ফতিমা। প্রশংসিত হয়েছে তাঁর অভিনয়।

বন্ধ করুন